আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন। যারা মোবাইলে টাইপিং করে টাকা ইনকাম করতে চাচ্ছেন।

কারণ সকলের পক্ষে কঠিন কাজ শেখা সম্ভব না। আবার অনেকের একটু জটিল ডাটা এন্ট্রির কাজ করা কঠিন হয়ে পড়ে।

যারা ছাত্র বা যারা চাকরির পাশাপাশি অন্য কোন কিছু করার চিন্তা করছেন। তারা অবশ্যই অনলাইনে টাইপিং করে আয় করতে পারেন। কারণ এই কাজে কোন স্কিল লাগেনা।

আপনার যদি কম্পিউটার নাও থাকে। তবুও আপনি আপনার স্মার্টফোন দিয়ে এই টাইপিং জব করতে পারেন।

বিশ্বায়নের এই যুগে সবকিছু ডিজিটাল হওয়ায়। এখন মানুষের যেকোন ডকুমেন্টের কপি ডিজিটাল করতে হচ্ছে। আর যেকোন অফিসিয়াল কাজ এখন কম্পিউটারের মাধ্যমে করতে হচ্ছে।

তাই এখন সবকিছু টাইপিং নির্ভর হচ্ছে। আর বিভিন্ন বায়ার তাদের টাইপিং এর কাজ মানুষদের দিয়ে করে নিচ্ছে। আর এতে করে বায়ারদের তাদের সময় বেঁচে  যাচ্ছে। আর যারা টাইপিং এর কাজ করছে, তাদের কিছু ইনকাম হচ্ছে।

এখন বিভিন্ন ই-বুক, কবিতা টাইপ করে ওয়েবসাইটে প্রকাশ করছে বিভিন্ন কোম্পানী।

তারাও তাদের এই সকল বই, উপন্যাস টাইপারদের মাধ্যমে টাইপ করে নিচ্ছে।

এতে করে বিভিন্ন টাইপাররেরা টাইপিং করে টাকা ইনকাম করে নিতে পাচ্ছে।

আমরা এখানে জানব আপনিও টাইপিং করে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়। আর কোন কোন সাইট থেকে অনলাইনে টাইপিং করে টাকা আয় করা যায়।

অবশ্যই পড়ুনঃ

দৈনিক ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা ইনকাম করার উপায়

মাসে ৫০ হাজার টাকা ইনকাম করার উপায়

টাইপিং কি?

Typing মানে হল কোন লেখা টাইপ করা। আপনি যখন মোবাইলের কিবোর্ড দিয়ে অথবা কম্পিউটেরের কিবোর্ড দিয়ে কিছু লিখেন। একে টাইপ করা বলে।

এই টাইপ করাকেই টাইপিং বলে। এটা করতে কোন প্রকার ব্রেন খাটাতে হয় না। এটা শেখাটাও কোন কঠিন কিছু না।

মোবাইলের পাশাপাশি কম্পিউটার দিয়েও টাইপিং করতে পারবেন।

দুই ধরনের টাইপিং এর কাজ অনলাইনে পাওয়া যায়।

একটি হল দেখে দেখে টাইপ করা। আর একটি হল টাইপ করে বই, উপন্যাস, ব্লগ ইত্যাদি লেখা। এই দুই উপায়েই খুব সহজে আয় করা যায়। অনলাইনে অনেক টাইপিং করে ইনকাম সাইট রয়েছে।

আপনি মোবাইল বা কম্পিউটার দুইটা দিয়েই টাইপিং করতে পারেন। আপনার কাছে যেটা ভাল লাগে আপনি সেটা দিয়ে শুরু করে ইনকাম শুরু করতে পারেন।

কিভাবে টাইপিং করে টাকা ইনকাম করা যায়

টাইপিং কাজ কোন প্রকার দক্ষতা ছাড়াই ইনকাম করতে পারবেন। টাইপিং করতে কোন প্রাতিষ্ঠানিক জ্ঞান লাগেনা।

তবে আপনার টাইপিং স্পিড যত ভাল হবে। তত সেটা আপনার জন্য ভাল হবে।

আপনি নিয়মিত টাইপিং করতে করতে আপনার স্পিড ঠিক হয়ে যাবে। এই ব্লগে এমন কয়েকটি কাজ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

যেখানে আপনার টাইপিং স্পীড কোন ফ্যাক্ট হবে না।

আপনি ধীরে ধীরে টাইপিং করতে পারলেও আপনার ইনকাম হবে। আর কোন কোন টাইপিং করে ইনকাম সাইট থেকে কাজ করে আপনি আয় করতে পারবেন, সে ব্যাপারেও বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

আর আপনার টাইপিং করে আয় করা টাকা আপনি খুব সহজেই আপনার হাতে পাওয়ার উপায় এখানে বলা হয়েছে। আর এটি করে আপনি মাসে কত টাকা আয় করতে পারবেন সে ব্যাপারেও আপনি জানতে পারবেন।

তাই মনোযোগ সহকারে এবার নিচের লেখাগুলি পড়ুন। যেসকল সেরা ওয়েবসাইট থেকে অনলাইনে টাইপিং করে টাকা ইনকাম করা যায়-

১. 2Captcha

২. Clickworker

৩. Scribie

৪. Lionbridge

৫. Flexjobs

৬. Pocket Novel

৭. Upwork

১. 2captcha

এটি একটি সেরা টাইপিং করে ইনকাম সাইট । আপনাদের যাদের কোন প্রকার কাজের অভিজ্ঞতা বা স্কিল নেই।

তারা খুব সহজে এই সাইট থেকে ক্যাপচা পূরণ করে টাকা আয় করতে পারবেন।

এটা খুবই সহজ একটা কাজ। আপনাকে একের পর এক কিছু ক্যাপচা দেওয়া হবে।

আপনাকে শুধু সেই ক্যাপচা গুলি দেখে দেখে পূরণ করতে হবে। এটা পুরোটাই কপি পেস্ট একটা কাজ।

যেকেউ চাইলেই এই কাজটি করতে পারবেন। আপনি যত ক্যাপচা পূরণ করবেন, আপনার ততই টাকা আয় হতে থাকবে।

আর আপনি সেই টাকা খুব সহজেই আপনার হাতে পাবেন। এখান থেকে টাকা ইনকামের জন্য আপনাকে প্রথমে এই ওয়েবসাইটে ঢুকতে হবে। এরপর আপনাকে যেসকল ক্যাপচা দিবে তা পূরণ করতে হবে।

2Captcha ওয়েবসাইট থেকে টাকা আয় করার প্রসেস হল-

১. প্রথমে এখানে সাইন আপ করতে হবে। এরপর Worker এ যেতে হবে।

২. এরপর Start work এ ক্লিক করে ক্যাপচা দেওয়া শুরু করতে হবে। এভাবে দেখে দেখে ১৬ টি ক্যাপচা পূরণ করতে হবে।

৩. আপনি যদি এটা মোবাইল দিয়ে করতে চান তাহলে 2 captcha অ্যাপ আপনার মোবাইলে ইন্সটল করতে হবে।

৪. এরপর আপনি মোবাইল দিয়ে প্রতিদিন ক্যাপচা পূরণ করে আয় করতে পারবেন।

আপনার টাইপিং স্পীড যত ভাল হবে। আপনি তত এখান থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। এদের পেমেন্ট সিস্টেম খুবই ভাল।

আপনি মাত্র ৫০ সেন্ট জমাতে পারলেই এখান থেকে সাথে সাথে টাকা উঠাতে পারবেন।

এদের টাকা উঠানোর অনেক মাধ্যম আছে। এদের Webmoney, Payeer ইত্যাদি মাধ্যম আছে। আপনি Payeer থেকে সরাসরি বিকাশে আপনার টাকা নিতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ

২. Clickworker

Clickworker খুবই নির্ভরযোগ্য একটা ওয়েবসাইট। আপনি যদি অনলাইনে আসলেই টাইপিং করে টাকা ইনকাম করতে চান।

তাহলে এই ওয়েবসাইটটি আপনার জন্য বেস্ট হবে।

কেননা এখানে টাইপিং এর মত খুবই সহজ কাজ করে টাকা আয় করতে পারছেন। এখান থেকে প্রতি ঘন্টায় ১০ ডলার পর্যন্ত টাকা ইনকাম করা সম্ভব।

এখান থেকে টাকা আয় করার প্রসেস হল-

১. প্রথমে এই ওয়েবসাইটে ঢুকতে হবে। এরপর উপরের দিকের Earn money as click worker এ বাটনে ক্লিক করতে হবে। এরপর এখানে সাইন আপ করতে হবে।

২. সাইন আপ করার পর এখান থেকে বিভিন্ন কাজের জন্য টাকা দেওয়া হবে। যেমন- টাইপিং, ট্রান্সক্রিপশন, ছবি আপলোড ইত্যাদি।

৩. এখানে আপনারা ছোট ছোট বিভিন্ন কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এই টাকার পরিমাণ মাস শেষে পাঁচশ থেকে হাজার ডলার হতে পারে। আপনার একাউন্টে ১০ ডলারের মত হলে আপনি টাকা উঠাতে পারবেন।

এখান থেকে আপনি Paypal, Payoneer এর মাধ্যমে টাকা উঠাতে পারবেন। আর এগুলো থেকে সরাসরি আপনি টাকা আপনার ব্যাংক একাউন্ট বা বিকাশে নিতে পারবেন।

টাইপিং করে টাকা ইনকাম

How to Make Money Typing?

৩. Scribie

Scribie তে ট্রান্সক্রিপশনের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

ট্রান্সক্রিপ্ট মানে হল কোন অডিও বা ভিডিও দেখে ও শুনে টাইপ করা। এটি একটি অসাধারণ টাইপিং জব সাইট।

এখানে সফটওয়ারের মাধ্যমে কোন অডিও এর ৬০% অটোমেটিক লেখা হয়ে যায়। আপনাকে শুধু সেই লেখাগুলি ঠিক করতে হবে।

এটা দারুণ একটি ওয়েবসাইট আপনি খুব সহজেই এখান থেকে টাইপিং করে আয় করতে পারবেন।

এখানে আপনি ভিডিও, পডকাস্ট, মার্কেটিং ইত্যাসি ট্রান্সক্রিপশন টাইপিং করার কাজ পাবেন।

আর এই কাজ করে আপনি অনেক বেশি পরিমাণ টাকা আয় করতে পারবেন। তবে এখানে কাজ করার আগে।

আপনি ইউটিউব থেকে শিখে এসে কাজ করলে আরো বেশি ইনকাম করতে পারবেন।

এখানে কাজ করার প্রসেস-

১. প্রথমে ওয়েবসাইটে ঢুকুন। এরপর এখানে সাইন আপ করতে হবে।

২. আপনার কাজের অভিজ্ঞতা না থাকলে আপনাকে Beginner হিসেবে জয়েন হতে হবে।

৩. এরপর আপনি যেকোন টাস্ক এখান থেকে নিয়ে কাজ শুরু করতে পারেন। এখানকার টাস্ক হল- Video, Audio, Podcast ট্রান্সক্রিপশন।

আপনি এখানে প্রথম অবস্থায় মাসে ৪০০ ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারবেন।

আর আপনার আয়কৃত টাকা সহজেই আপনার পেপাল অ্যাকাউন্ট থেকে বিকাশে নিতে পারবেন।

৪. Lionbridge

আপনি জেনে খুশি হবেন যে আপনি Lionbridge ওয়েবসাইটের মাধ্যমে সহজেই টাইপিং করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

এখানে ট্রান্সক্রিপ্ট এর মাধ্যমে  শুনে শুনে টাইপিং করতে হবে। আপনি এই বিষয়টি একবার রপ্ত করতে পারলে অনায়েসেই টাকা আয় করতে পারবেন।

এই ওয়েবসাইট থেকে আপনার অনেক বেশি টাকা আয় করার সুযোগ রয়েছে। কেননা এটা একটা জেনুইন টাইপিং জব সাইট। এখানে কাজ করার জন্য এদের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন

এখানে কাজের প্রসেস হল-

১. ওয়েবসাইটে ঢুকে Join our team বাটনে ক্লিক করুন। এরপর এখান থেকে Translators & Agencies এ ক্লিক করুন।

২. এরপর View Open Projects এ ক্লিক করুন।

৩. এখানে আপনি অনেকগুলি কাজ দেখতে পাবেন। এই কাজের মধ্য থেকে English Language এর কাজ করুন। আপনাকে শুধু টাইপিং এর কাজ করতে হবে। কাজ করার জন্য এখানে ফ্রিতে জয়েন হয়ে নিন।

এখান থেকে আপনি খুব সহজেই টাকা আয় করতে পারবেন। আর আয়কৃত টাকা আপনি এই প্রসিদ্ধ টাইপিং করে ইনকাম সাইট থেকে খুব সহজেই তুলতে পারবেন এখান থেকে।

৫. Flexjobs

যারা অনলাইনে কাজ করেন তাদের মধ্যে অনেকেই Flexjobs ওয়েবসাইটের নাম শুনে থাকবেন।

এটা একটা ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস। এখানে আপনি খুবই সহজ সহজ টাইপিং এর কাজ পাবেন।

এখানে আপনি অফিসিয়াল বিভিন্ন ডিজিটাল ডকুমেন্টের টাইপিং এর কাজ পাবেন।

প্রতিদিন এখানে প্রচুর ডাটা এন্ট্রির কাজ পাওয়া যায়। এখানে সহজ কাজের মধ্যে রয়েছে কপিপেস্ট ডাটা, মাইক্রোসফট ওয়ার্ডে ডাটা এন্ট্রি। এছাড়াও রয়েছে এক্সেল শীটে টাইপ, গুগল স্প্রেডশীটে টাইপ ইত্যাদি।

আপনি এখানে খুব সহজে ইনকাম করতে পারবেন। আর এখানে কাজের রেট অনেক বেশি। কেননা এখানে আপনি সরাসরি কোম্পানীর সাথে কাজ করা সুযোগ পাবেন।

ফ্লেক্সজবে কাজের প্রসেস হল-

১. আপনাকে প্রথমে এদের ওয়েবসাইটে যেয়ে sign up করতে হবে।

২. এরপর আপনাক Typing লিখে সার্চ করে কাজ দেখতে হবে। আপনাকে যেই কাজটি পারেন। এই কাজে অ্যাপ্লাই করতে হবে। এই কাজগুলি সরাসরি তাদের কোম্পানীর সাথে করবেন।

৩. এরপর কাজ পেলে আপনাকে কোম্পানীর সাথে জয়েন হয়ে কাজ করতে হবে।

এখান থেকে আপনি paypal এর মাধ্যমে টাকা নিতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ

৬. Pocket Novel

আপনি যদি ভাল গল্প, উপন্যাস টাইপ করে লিখতে পারেন।

তাহলে এই টাইপিং জব সাইট থেকে আয় করতে পারবেন।

এখানে আপনি বাংলা, ইংলিশ ভাষায় গল্প লিখতে পারবেন।

এখানে কাজ করার জন্য এদের ওয়েবসাইট থেকে Pocket Novel অ্যাপটি ডাউনলোড করতে হবে।

আপনি চাইলে ওয়েবসাইট ও অ্যাপ উভয় জায়গা থেকেই কাজ করতে পারবেন।

এখানে গল্প টাইপ করে আপনি মাসে ১৫ হাজার টাকার মত আয় করতে পারবেন। এই সাইটে কাজ করার জন্য আপনাকে খুব ভাল লিখতে জানতে হবে।

আপনি বাংলা ভাষতেই শুরু করতে পারেন। এখানে মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে কাজ করাটাই সবথেকে সহজ হবে।

এখানে অ্যাপের মাধ্যমে কাজ করার প্রসেস হল-

১. অ্যাপ ইনস্টল করে Continue with phone number এ ক্লিক করতে হবে। এরপর OTP ফিলাপ করতে হবে। এরপর আপনার নাম, বয়স, ভাষা সেট করতে হবে।

২. এরপর এখান থেকে টাকা ইনকাম এর জন্য writer বাটনে ক্লিক করতে হবে।

৩. এরপর এখান থেকে আপনাকে ৩০ হাজার শব্দের গল্প লিখে অ্যাপ্লাই করতে হবে।

৪. এরপর আপনাকে নেওয়া হলে। আপনি নিয়মিত এখানে টাইপিং করে টাকা আয় করতে পারবেন। এই ওয়েবসাইট থেকে আয় করার জন্য আপনাকে বিভিন্ন গল্প লিখতে হবে। লেখার সময় আপনাকে টাইটেল, ছবি, মেটা, ক্যাটাগরি সেট করে দিতে হবে।

Pocket Novel থেকে আয় করা টাকা তোলা অনেক সহজ। আপনি paytm, ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে টাকা তুলতে পারবেন।

৭. Upwork

Upwork একটি ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লসে। Upwork এর নাম শোনেননি এমন মানুষ পাওয়া কঠিন।

বিশেষ করে যারা ফ্রিল্যান্সিং করেন, তারা সকলেই আপওয়ার্কের নাম শুনেছেন।

এই আপওয়ার্কে হাজার হাজার বাংলাদেশী ও ভারতীয় মানুষ শুধুমাত্র টাইপিং করে টাকা ইনকাম করছেন।

আর এখানে কাজের রেট অনেক বেশি। কেননা এটা সবথেকে ভাল একটা কজের ক্ষেত্র।

আপনি আপওয়ার্কে যেয়ে Typing লিখে সার্চ করেন। তাহলে এখানে কাজের ছড়াছড়ি।

বিভিন্ন রকমের টাইপিং এর কাজ এখানে পাওয়া যায়। আপনাকে এখান থেকে সহজ কাজ বেছে নিতে হবে।

এখানে বায়ার কাজ পোস্ট করে। একটি কাজের জন্য অনেকে অ্যাপ্লাই করে।

তাই এখানে কাজ করার আগে আপনাকে একটু দক্ষ হতে হবে। আর আপনাকে মোটামুটি ইংলিশ জানতে হবে।

আপনাকে আপনার পূর্বের কাজের কিছু স্যাম্পল আপনার অ্যাকাউন্টে যোগ করতে হবে।

এখানে কাজ করাটা নতুনদের জন্য অনেকটাই কঠিন। কিন্তু আপনি একবার অভিজ্ঞ হয়ে গেলে এখানে কাজ করে আপনি আপনার ক্যারিয়ার গড়তে পারবেন।

কেননা এখানে কাজের রেট অনেক হাই। আপনি ২০ থেকে ৩০ পেজ টাইপিং করে ২০০ থেকে ৩০০ ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। তাও যেকোন একটি কাজে।

আপওয়ার্কে যেসকল টাইপিং কাজ পাওয়া যায় তা হল। কপি পেস্ট, ওয়ার্ড টি এক্সেল, পিডিএফ ট ওয়ার্ড টাইপিং, যেকোন শীটে টাইপিং ইত্যাদি সকল সহজ কাজ।

কিভাবে আপওয়ার্কে কাজ করতে হয়

১. প্রথমে এদের ওয়েবসাইটে যেয়ে Freelancer হিসেবে সাইন আপ করতে হবে। এরপর আপনার সকল তথ্য দিয়ে দিতে হবে।

২. এরপর আপনার কাজের টাইটেল, বর্ণনা, ক্যাটাগরি সেট করে দিতে হবে, ক্যাটাগরি হিসেবে আপনাকে Data Entry দিতে হবে।

৩. আপনি প্রতি ঘন্টায় কত টাকা চার্জ করবেন। এটাও এখানে সেট করে দিতে হবে। এছাড়াও এখানে আপনার একটি প্রোফাইল ছবি সেট করতে হবে।

৪. এরপর এখান থেকে টাইপিং এর কাজ করার জন্য আপনাকে সার্চ অপশনে যেতে হবে। সেখানে আপনাকে Typing লিখে সার্চ করতে হবে।

৫. এখানে অনেক কাজ দেখাবে। আপনাকে এখান থেকে কপি পেস্ট জব, সিম্পল টাইপিং জবগুলিতে অ্যাপ্লাই করতে হবে।

৬. এরপর বায়ার আপনাকে কাজে নিলে আপনি কাজ সাবমিট করে টাকা আয় করতে পারবেন। এখানে আপনি ঘন্টা হিসেবে বা ফিক্সড অ্যামাউন্টে কাজ করতে পারবেন।

আপওয়ার্কে কাজ করাটা নতুনদের জন্য অনেক কঠিন হতে পারে। তবে এখানে একবার কাজ শিখলে অনেক সহজ হবে। আর এখান থেকে মাসে ১ লাখ টাকাও আয় করা যাবে। কেননা এটা অনেক প্রসিদ্ধ একটা ওয়েবসাইট।

আপওয়ার্ক থেকে আয় করা টাকা আপনি আপনার ব্যাংক একাউন্ট দিয়ে সহজেই তুলে নিতে পারবেন। আপওয়ার্কের মত আরো দুইটি প্রসিদ্ধ ওয়েবসাইট আছে। ফাইবার ও ফ্রিল্যান্সার। এই ওয়েবসাইটগুলি থেকেও আপনি টাইপিং করে টাকা আয় করতে পারবেন।

তবে এই ওয়েবসাইটগুলিতে কাজ করা কিছুটা জটিল। নতুন হিসেবে আপনার এখানে একাউন্ট খোলা অনেক কঠিন মনে হতে পারে। তবে ফাইবার ও ফ্রিল্যান্সারে টাইপিং করে আয় করার কাজের ছড়াছড়ি।

তাই এখানে কাজ করার জন্য আপনাকে অনেকটা অভিজ্ঞ হতে হবে। তবে আপনি চেষ্টা করলে আপওয়ার্ক, ফাইবার, ফ্রিল্যান্সার থেকেও ইনকাম করতে পারবেন।

FAQ:

১. টাইপিং করে প্রতি মাসে কত টাকা আয় করা যায়?

আপনি যদি খুব ভাল টাইপ করতে পারেন। আপনার টাইপিং স্পিড যদি অনেক ভাল হয়।

তাহলে আপনি টাইপিং করে প্রতি মাসে গড়ে ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা অনায়েসেই আয় করতে পারবেন। আর যদি আপনি একদম নতুন হোন।

একেবারেই যদি আপনার কোন অভিজ্ঞতা না থাকে। তাহলে আপনি মাসে ১৫ হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন।

তবে অনেকে টাইপিং করে ১ লাখ টাকা পর্যন্ত আয় করছেন।

তারা বেশিরভাগই ভাল কোন মার্কেটপ্লেসে কাজ করেন। আপনিও নিজেকে ঐ রকম করে গড়ে তুলতে পারেন।

২. টাইপিং জবকে কি আমি ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে পারি?

আপনি যদি ছোট কোন ওয়েবসাইটে পার্ট টাইম ক্যাপচা, ট্রান্সক্রিপশন টাইপের টাইপিং কাজ করেন। তাহলে এটা আপনি পড়াশুনা বা চাকরির পাশাপাশি করতে পারেন।

আর যদি এটাকে প্রফেশনাল ভাবে নিতে চান, তাহলে অবশ্যই আপনাকে টাইপিং রিলেটেড ডাটা এন্ট্রির কাজ শিখতে হবে।

এরপর বড় বড় ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে হবে। যেমন- আপওয়ার্ক, ফাইবার, ফ্রিল্যান্সার ইত্যাদি মার্কেটপ্লেস।

শেষকথা

পরিশেষে একটা কথাই বলা যায়। আপনি যদি সত্যিই টাইপিং করে ইনকাম সাইট থেকে আয় করতে চান।

তাহলে উপরের নিয়মগুলি ফলো করুন। প্রথমে সহজ উপায় দিয়েই শুরু করুন।

যেমন ক্যাপচা এন্ট্রি করে শুরু করুন। কাজ করতে করতে এক সময় যখন অনেক দক্ষ হয়ে উঠবেন।

তখন ধীরে ধীরে কঠিনভাবে শুরু করুন। আপনি যতই সহজে কাজ করবেন। আপনার ইনকাম তত কম হবে।

কিন্তু যতই অ্যাডভ্যান্স ভাবে কাজ করবেন।

আপনার আয় বাড়তে থাকবে। যেমন- আপনি যদি একবার আপওয়ার্ক, ফ্রিল্যান্সার, ফাইবারের মাধ্যমে টাইপিং এর কাজ করা রপ্ত করতে পারেন। তাহলে আপনি টাইপিংকে আপনার ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে পারবেন।

অবশ্যই পড়ুনঃ

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন-