আজকাল ঘরে বসে অনেকেই ফ্রিল্যান্সিং করছে। কিন্তু ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো এটা সবাই জানতে চায়।

অনেকেই মনে করেন, ফ্রিল্যান্সিং কাজ করতে শুধু ডেস্কটপ কম্পিউটার বা ল্যাপটপের প্রয়োজন। আসলে বিষয়টি এমন নয়।

আপনি চাইলে আপনার নিজের মোবাইল দিয়েও এটি শিখতে পারেন ও করতে পারেন। তবে মোবাইলটি অবশ্যই স্মার্টফোন হতে হবে।

আমাদের মধ্যে অনেকই আছেন। যারা টাকার অভাবে কম্পিউটার কিনতে পারেন না।

আবার টাকা দিয়ে যে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ শিখবেন সে অবস্থাও নেই।

অনেকেই ফ্রিল্যান্সিং শেখার ব্যাপারে কোন টাকা ইনভেস্ট করতে চান না।

কারণ তারা মনে করেন ফ্রিল্যান্সিং কাজ অনেক টাকা দিয়ে শিখেও যদি তারা মার্কেটপ্লেসেগুলিতে কাজ না পান। তাহলে পুরো টাকাই নষ্ট হয়ে যাবে।

তবে চিন্তার কিছু নেই। আপনি আপনার হাতে থাকা মোবাইল দিয়েই ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ শিখতে পারবেন। আবার মোবাইল দিয়ে কাজ করেই লাখ লাখ টাকা আয় করতে পারবেন। এখন প্রশ্ন হল কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো ।

অবশ্যই পড়ুনঃ

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো ?

আপনাকে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করার জন্য এর ধাপগুলি মাথায় রাখতে হবে। এর ধাপগুলি হল-

১. ফ্রিল্যান্সিং যেকোন একটি কাজে খুব ভালভাবে দক্ষ হতে হবে। যেমনঃ ডিজিটাল মার্কেটিং, ভিডিও এডিটিং, ডাটা এন্ট্রি, সোস্যাল মিডিয়া মার্কেটিং ইত্যাদি।

২. এরপর সেই ফ্রিল্যান্সিং কাজে এর অনেকগুলি পোর্টফোলিও ও ডেমো প্রস্তুত করতে হবে।

৩. বিভিন্ন ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট খুলতে হবে। যেমন- Upwork, Fiverr, Guru ইত্যাদি।

৪. আপনাকে মোটামুটি মানের ইংলিশ জানতে হবে। যাতে করে আপনি বায়ারের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করতে পারেন।

বায়ার কি কাজ দিচ্ছে তা বোঝার মত ইংরেজী জানা দরকার। আর বায়ারকে আপনার কাজের ব্যাপারে লিখে জানানোর মত ইংরেজী জানতে হবে।

৫. আপনি ফাইবারে কাজ করলে গিগ খোলা ও কাজে অ্যাপ্লাই করার জানতে হবে।

৬. আপনার একটি পেমেন্ট গেটওয়ে প্রস্তুত করতে হবে। অর্থাৎ আপনার আয়কৃত টাকা তোলার জন্য একটি ব্যাংক একাউন্ট, পেওনার একাউন্ট ইত্যাদির ব্যবস্থা করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো এই প্রশ্নে উত্তর হবে, ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করতে আগে ভালভাবে কাজ শিখতে হবে।

ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করার জন্য প্রথমে এটি খুব ভালভাবে শিখতে হবে।

কেননা ভালভাবে ফ্রিল্যান্সিং না শিখলে কোনভাবেই কাজ পাওয়া যাবেনা।

অথবা কাজ পেলেও তা বায়ারের জন্য তা ভালভাবে করা সম্ভব হবেনা।

যার ফলে কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শিখবো এটি জানা জরুরী।

আত ভালোভাবে কাজ না শিখলে আপনার ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার নষ্ট হয়ে যাবে। এখন দেখে নিন কি কি উপায়ে Freelancing এর কাজ  শেখা যায়। সাধারণত ৩টি উপায়ে আপনি ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারেন। তা হল-

  • ফ্রিল্যান্সিং এর কাজের কোন কোর্স করে।
  • বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং কাজ সম্পর্কে অনলাইনে আর্টিকেল বা ব্লগ পড়ে।
  • ইউটিউব ভিডিও দেখে।

১. ফ্রিল্যান্সিং কোর্স করে

আমাদের মনে অনেকেরই প্রশ্ন ফ্রিল্যান্সিং কাজ কিভাবে শিখবো ।

আপনি হয়তো জেনে থাকবেন, এই কাজ শেখার জন্য অনেক কোর্স আছে। আপনাকে একটি ভাল প্রতিষ্ঠান খুঁজে নিতে হবে।

আর আপনি যে Freelancing কাজটি করতে চান সে কাজটি এমনভাবে শিখতে হবে যেন আপনি সেই কাজে অনেক বেশি দক্ষ হতে পারেন। এর জন্য আপনাকে একটি ভাল ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ কেন্দ্র খুঁজে নিতে হবে।

আপনি অনলাইনে এইরকম অনেক ট্রেনিং সেন্টার পাবেন। যারা জুম ভিডিও এর মাধ্যমে ও ভিডিও প্রদানের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং শেখায়। আর তাদের ফি অনেক কম।

আপনি ৫ হাজার টাকার মধ্যেই যেকোন Freelancing এর কাজ এর এই কোর্স গুলি করতে পারবেন। অনেক প্রতিষ্ঠান অনেক কোর্স ফ্রিতেও করায়।

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো

How to get freelancing knowledge and training?

২. আর্টিকেল পড়ে ফ্রিল্যান্সিং শেখা

আপনি যদি আপনার মোবাইল থেকে গুগলে সার্চ ইঞ্জিনে সার্চ করেন, ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো বা কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো তাহলে অনেক ওয়েবসাইট দেখতে পাবেন।

যারা ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে সব তথ্য আপনাকে দিবে।

এখান থেকে আপনি অনেক কিছুই জানতে পারবেন ও শিখতে পারবেন। আর আপনি যে স্কিল বা দক্ষতার কাজ করতে চাচ্ছেন।

সেটা কিভাবে শিখতে হবে। তা লিখে সার্চ করলে একটি ধারণা পাবেন। সেখান থেকে তা শিখতে পারবেন।

ধরুন আপনি ডাটা এন্ট্রি শিখতে চাচ্ছেন। তাহলে আপনাকে সার্চ করতে হবে, ”কিভাবে ডাটা এন্ট্রি করতে হয়”।

তাহলে আপনি সার্চে হাজার হাজার এই সম্পর্কিত আর্টিকেল দেখতে পাবেন। আপনাকে তখন সেই অনুযায়ী কাজ শিখতে হবে। আর প্রাকটিস করতে হবে।

এভাবে আর্টিকেল পড়ে আপনি ফ্রিতে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ

৩. ইউটিউব ভিডিও দেখে ফ্রিল্যান্সিং শেখা

ফ্রিল্যান্সিং শিখে ক্যারিয়ার গড়ার জন্য ইউটিউব (Youtube) এর কোন বিকল্প নেই।

আপনি ইউটিউব ভিডিও দেখে ফ্রিল্যান্সিং শিখে একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হতে পারবেন। ইউটিউব হল ভিডিও এর ভান্ডার।

এমন কিছু নেই। যা ইউটিউব দেখে শেখা যায় না। আপনি আর্টিকেল পড়ে হয়তো অনেক কিছুই বুঝতে পারবেন না।

কিন্তু ইউটিউব ভিডিও দেখে আপনি সব কিছুই বুঝতে পারবেন। আর ইউটিউব থেকে আপনি সম্পূর্ণ ফ্রিতে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারবেন।

আপনি যদি কোন অনলাইন বা অফলাইন কোর্স করেন। তাহলেও এত কিছু শিখতে পারবেন না। যতটা আপনি ইউটিউব ভিডিও দেখে শিখতে পারবেন। আপনি যদি ইউটিউবে সার্চ করেন, ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো বা ফ্রিল্যান্সিং কাজ কিভাবে শিখবো তাহলে এগুলির ব্যাপারে লাখ লাখ ভিডিও পাবেন। আর ভিডিও দেখে আপনি Freelancing এর কাজ শিখে নিতে পারবেন।

ধরুন আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে চাচ্ছেন। তাহলে আপনাকে ইউটিউবে সার্চ করতে হবে ‘কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং করতে হয়‘।

তখন আপনি এটা নিয়ে অনেক ভিডিও দেখতে পাবেন। আপনি তখন একটার পর একটা ভিডিও দেখতে থাকবেন।

আর নিজে নিজে আপনার মোবাইল দিয়ে প্রাকটিস করতে থাকবেন। এভাবে নিজে নিজে প্রাকটিস করতে করতে একটা সময় আপনি দক্ষ হয়ে উঠবেন।

বিভিন্ন ইউটিউব চ্যানেল খুব সুন্দর করে ফ্রিল্যান্সিং ব্যাপারটা বুঝিয়ে দিয়েছে। আপনি ফ্রিতে সেখান থেকে শিখে নিতে পারবেন।

এছাড়া ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস কি, কিভাবে সেখানে একাউন্ট খুলতে হয়, কিভাবে কাজ খুঁজতে হয়, এই সকল কিছু আপনি ইউটিউব থেকে দেখে শিখে নিতে পারেন

আরো পড়ুনঃ

যে কারণে ইউটিউব ভিডিও দেখে ফ্রিল্যান্সিং শেখা উচিত

উপরের ৩টি উপায়ের মধ্যে আপনি ইউটিউব দেখে ফ্রিল্যান্সিং শেখা শুরু করতে পারেন। কারণ-

১. ইউটিউবের মাধ্যমে আপনি যেমন কাজ সম্বন্ধে জানতে পারবেন। আবার প্রকাটিক্যালি তা দেখতে পারবেন।

২. আপনি বিনামূল্যে ইউটিউবে কাজ শিখতে পারবেন।

৩. বিভিন্ন চ্যানালের বিভিন্ন ভিডিও দেখে আপনি নিজেকে দক্ষ করে নিতে পারবেন।

৪. যেকোন সময় আপনার পছন্দমত কাজ শিখতে পারবেন।

৫. ভিডিও রেজুলেশন কমবেশি করে দেখতে পারবেন। যাতে করে আপনার মোবাইল ডাটা সেভ হবে।

৬. নিজ দেশীয় চ্যানেলের পাশাপাশি বিদেশী চ্যানেল দেখেও শিখতে পারবেন।

ইউটিউব দেখে ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো | যা যা শিখবো

আপনি ইউটিউব থেকে কোন প্রকার ঝামেলা ছাড়াই ফ্রিল্যান্সিং এর বিভিন্ন কাজ শিখতে পারবেন। নিচে দেখে নিন আপনি ইউটিউব দেখে ফ্রিল্যান্সিং এর কি কি শিখবেন-

১. আপনি যে কাজ করে ফ্রিল্যান্সিং করে আপনার ক্যারিয়ার গড়তে চান। সেই কাজটি খুব ভালভাবে শেখা। আর সেই কাজে স্কিলফুল হওয়া।

২. ফ্রিল্যান্সিং শেখার পর কিভাবে পোর্টফোলিও করতে হয় তা শেখা।

৩. বিভিন্ন মার্কেটপ্লেস এ কিভাবে অ্যাকাউন্ট খুলতে হয় তা শেখা।

৪. ফাইবারে গিগ কিভাবে খুলতে হয় তা শেখা।

৫. কাজে অ্যাপ্লাই করার উপায় শেখা ও কিভাবে বায়ারকে কাজ জমা দিতে হয় তা শেখা।

৬. আওয়ারলি ও ফ্রিক্সড প্রাইসের কাজ করার উপায় জানা।

৭. কিভাবে ইংলিশে ম্যাসেজ দিতে হয়। কিভাবে বায়ারের সাথে যোগাযোগ করতে হয় তা শেখা।

৮. আর পেমেন্ট মেথড সেট নিয়ম শেখা।

এই সকল কিছুই ইউটিউব দেখে খুব সহজে একদম ফ্রিতে শেখা সম্ভব।

FAQ:

নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং করা কি অনেক কঠিন?

না এটা একদম ঠিক নয়। আপনি যদি কোন কাজে অনেক দক্ষ হোন। তাহলে নতুন হয়েও কাজ পেতে পারবেন। এখানে বায়ার আপনার কাজ দেখে ও ট্যালেন্ট দেখে আপনাকে নিবে। যদি এমন হত যে শুধু পুরাতনরাই কাজ পায়। তাহলে নতুনরা কোনদিনই আর অ্যাকাউন্ট খুলত না। আর কাজও পেত না।

মোবাইল দিয়ে কি প্রফেশনাল ভাবে ফ্রিল্যান্সিং করা যায়?

হ্যাঁ। আপনি চাইলেই মোবাইল দিয়েই প্রফেশনালি ফ্রিল্যান্সিং করে মাসে লাখ টাকা আয় করতে পারবেন। তবে এর জন্য যে কাজগুলি শুধুমাত্র মোবাইলে করা যায়। সেই কাজগুলি করতে হবে।

মার্কেটপ্লেসে এই রকম কাজের ছড়াছড়ি। তবে সব কাজ মোবাইল দিয়ে করা যায়না। তখন ডেস্কটপ বা ল্যাপটপ কম্পিউটারের প্রয়োজন।

শেষকথা

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো তা আশাকরি আপনার এখন খুব ভালোভাবেই জানতে পেরেছন।

আপনাকে একটি কথা সব সময় মনে রাখতে হবে যে, Freelancing এর কাজ করার জন্য আপনাকে আগে ভালভাবে কাজ শিখতে হবে। আর এই কাজ আপনি আপনার মোবাইল দিয়ে ইউটিউবের মাধ্যমে শিখতে পারেন।

আর ইউটিউব থেকে ফ্রিল্যান্সিং সংক্রান্ত যাবতীয় সকল কিছুই শিখতে পারবেন। তাই দেরি না করে আজ থেকে ফ্রিল্যান্সিং শেখা শুরু করে দিন।

অবশ্যই পড়ুনঃ

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন-