আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন, যারা রিয়েল টাকা ইনকাম সাইট খুঁজছেন। কেননা আজকের এই ডিজিটাল পৃথিবীতে টাকা ইনকাম করা অনেকটাই সহজ হয়ে গিয়েছে।

এখন মানুষ ঘরে বসেই ফ্রি টাকা ইনকাম apps এর মাধ্যমে ইনকাম করছে। আবার অনেক ওয়েবসাইট আছে, যেখান থেকে সহজেই টাকা ইনকাম করা যায়। কিছু কিছু ওয়েবসাইট আছে যেখানে কাজ করতে দক্ষতার প্রয়োজন হয়।

আবার এমন অনেক সাইট (websites) আছে, যেখানে দক্ষতা ছাড়াই টাকা ইনকাম করা যায়। আমরা আজকে সেই সকল রিয়েল সাইট সম্পর্কে জানব।

আমাদের একটা কথা মাথায় রাখতে হবে যে, অনলাইনে টাকা ইনকাম করার অনেক উপায় আছে। কিন্তু আমাদেরকে সঠিক উপায়টি জানতে হবে।

আমাদের জানতে হবে কোন কোন সাইটে কাজ করে আসলেই টাকা পাওয়া যায়। আপনি যদি একটি প্যাসিভ ইনকাম করতে চান। তাহলে আপনাকে অবশ্যই দক্ষতা সম্পন্ন কাজ করতে হবে।

আর যেসকল কাজে কোন দক্ষতার প্রয়োজন হয়না। সেই সমস্ত কাজ করে মোটামুটি ইনকাম করা গেলেও, খুব ভাল পরিমাণ টাকা ইনকাম করা যায়না।

আপনি যদি আসলেই ঘরে বসে অনলাইনে ইনকাম করতে চান, তবে এর জন্য আপনার প্রয়োজন হবে দক্ষতা, সময় ও এনার্জির।

যদিও এমন অনেক কাজ আছে, যেগুলি করতে তেমন কোন দক্ষতার প্রয়োজন হয়না। শুধুমাত্র একটি মোবাইল ও ইন্টারনেটের মাধ্যমেই সেই কাজগুলি করা যায়।

তবে দক্ষতা ছাড়া কাজের ভবিষ্যৎ খুব একটা ভালো নয়। কারণ কিছু দিন পর পর এই সকল দক্ষতাহীনভাবে কাজ করা যায়, এমন ওয়েবসাইটগুলি বন্ধ হয়ে যায়।

তবে আপনি এই সকল কাজ পার্ট টাইম ভাবে ও অতিরিক্ত (Extra) ইনকামের জন্য করতে পারেন। ভালভাবে ইনকামের জন্য আপনার যেসকল অন্যতম দক্ষতা থাকা প্রয়োজন-

  • ব্লগিং (Blogging)
  • অ্যাফেলিয়েট মার্কেটিং (Affiliate Marketing)
  • পণ্য বিক্রি করা (Selling Products)
  • সার্ভে করা (Online Surveys)
  • ফ্রিল্যান্সিং জব (Freelancing Job)
  • অন্যকে শেখানো বা কোচিং (Online Teaching)
  • ইউটিউবিং (Youtubing)

উপরের দক্ষতাগুলি থাকলে আপনি অনলাইনে কাজ করে নিজের ক্যারিয়ার গড়তে পারবেন। এছাড়া আপনি এখানে Full Time কাজ করে ইনকাম করতে পারবেন।

এছাড়া আপনি অনলাইনে আরো নানা উপায়ে বিভিন্ন সাইটের মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

অনেক ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করার জন্য কোন দক্ষতারই প্রয়োজন হয়না। আপনি সেই সকল সাইট থেকে ফ্রিতে ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

এই সকল ওয়েবসাইট থেকে আপনি স্পিন করে, রেফার করে, ক্যাপচা পূরণ সহ আরো নানা সহজ উপায়ে আয় করতে পারবেন।

এখন জেনে নেই, Real টাকা আয় করা যায়, এমন ১৫টি ওয়েবসাইট সম্পর্কে।

সেরা ১৩টি সেরা রিয়েল টাকা ইনকাম সাইট

আপনি নানা উপায়ে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারেন। কেননা অনলাইনে ইনকাম আগের থেকে অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে।

ব্লগিং করে বা ব্লগ লিখে, কন্টেন্ট তৈরি করে, ডিজিটাল মার্কেটিং করে, সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট সহ আরো নানা উপায়ে খুব সহজেই আয় করতে পারেন।

তবে আপনাকে জানতে হবে কোন কোন সাইটের মাধ্যমে ইনকাম করা যায়। যেসকল ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই ইনকাম করতে পারবেন, তা হলঃ

১. Gettyimages

২. 2captcha

৩. Shopify

৪. Blogger

৫. Freecash

৬. Clickbank

৭. Ysense

৮. Fiverr

৯. Swagbucks

১০. Youtube

১১. Flippa

১২. Neobux

১৩. Upwork

এখন বিস্তারিত আলোচনা পড়ুন-

১) Gettyimages.com

আপনি যদি একজন ভালো ফটোগ্রাফার (Photographer) হয়ে থাকেন। তাহলে এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে খুব সহজেই ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি মোবাইল বা DSLR ক্যামেরা দিয়ে ছবি তুলে, সেই ছবি এই ওয়েবসাইটে আপলোড করে ইনকাম করতে পারবেন।

আপনাকে খুব ভাল ছবি তুলতে হবে। আর খেয়াল রাখতে হবে যেন, আপনার তোলা ছবি যেন অনেক ভাল রেজ্যুলেশন (Resulation) সম্মৃদ্ধ হয়।

আর ছবিটি অবশ্যই আপনার নিজের হতে হবে। অন্য কারো ছবি বা ইন্টারনেট থেকে ডাউনলোড করা ছবি হওয়া যাবেনা।

আপনি এখানে যেকোন ক্যাটাগরির যেকোন ছবি আপলোড করতে পারেন। এই ওয়েবসাইট থেকে আয় করার জন্য প্রথমে এদের এখানে Contributor হিসেবে যোগ (Join) দিতে হবে।

এর জন্য এদের ওয়েসবাইটের Android অথবা Ios অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে।

এরপর অ্যাপ থেকে sign up করতে হবে বা Join হতে হবে। আপনাকে এরপর ৩ থেকে ৬ টি ছবি আপলোড করতে হবে।

Review করে আপনার ছবিগুলি অ্যাপ্রুভ (Approve) হয়ে গেলে আপনাকে নিয়মিত ছবি আপলোড করতে থাকতে হবে।

এই ওয়েবসাইটের যখন কোন প্রিমিয়াম কাস্টমার (Premium Customer) আপনার ছবিগুলি ডাউনলোড করবে। তখন আপনার ইনকাম করা টাকা জমা হতে হবে।

আপনি প্রতিনিয়ত ছবি আপলোডের মাধ্যমে অনেক ভাল পরিমাণ টাকা খুব সহজেই প্রতিমাসে ইনকাম করতে পারবেন।

আর এখানে অনেক বেশি পরিমাণ টাকা ইনকামের সুযোগ রয়েছে। আপনার আয় করা টাকা Payoneer, Paypal এর মাধ্যমে খুব সহজেই উঠাতে পারবেন।

সুবিধাঃ

  • এখানে অনেক বেশি রেটে ছবি বিক্রি করার সুযোগ রয়েছে।
  • আপনার ছবিগুলি খুব সহজেই এখান থেকে খুঁজে পাওয়া যাবে।

২) 2captcha.com

আপনি কোন প্রকার দক্ষতা ছাড়াই শুধুমাত্র ক্যাপচা পূরণ করে এই ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

মানুষ নাকি রোবট তা যাচাই করার প্রক্রিয়া হল ক্যাপচা (Captcha)। ক্যাপচাতে কিছু শব্দ, ছবি, অংক লেখা থাকে। আর যা লেখা থাকে, তা দেখে দেখে পূরণ করতে হয়।

আপনি ১ মিনিটে ৩০ থেকে ৪০ টি ক্যাপচা এন্ট্রি করতে পারবেন, যদি আপনার টাইপিং স্পিড ভালো হয়।

এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে এই রকম অনেক ক্যাপচা পূরণ করে, আপনি মোটামুটি মানের ইনকাম করতে পারবেন।

এখানে আপনি যত ক্যাপচা এন্ট্রি করতে পারবেন, তত টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তবে এই ওয়েবসাইট থেকে কাজ অনুযায়ী তুলনামূলক কম উপার্জন সম্ভব।

আপনি পার্ট টাইম জব হিসেবে এই কাজটি করতে পারেন। এখানে কাজ করার জন্য এদের ওয়েবসাইটে Sign Up করেই কাজ শুরু করে দিতে পারেন।

এখান থেকে আপনি আপনার আয়কৃত টাকা Webmoney, Payeer, Perfect money ইত্যাদির মাধ্যমে খুব সহজেই হাতে পাবেন।

সুবিধাঃ

  • এই কাজটি করা একদম সহজ
  • আপনি এখান থেকে ইনস্ট্যান্ট (instant) টাকা পেতে পারবেন।

৩) Shopify.com

দিন দিন ই কমার্স (e-commerce) ওয়েবসাইটের উপর মানুষ অনেক বেশি নির্ভরশীল হয়ে পড়ছে।

কারণ, এই কর্ম ব্যস্তময় জীবনে মানুষ চায়, ঘরে বসে কেনাকাটা (shopping) করতে।

এখানে কম দামে অনেক ভাল মানের পণ্য পাওয়া যায়।

Shopify ই কমার্স ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি ড্রপ শিপিং (Dropshipping) করে ইনকাম করতে পারবেন।

ড্রপশিপিং হল সরবরাহকারীর ও গ্রাহকের মধ্যস্থতাকারী হওয়ার কাজ।

এখানে আপনাকে পণ্য নিয়ে, শিপিং (Shipping) বা ডেলিভারী নিয়ে কোন চিন্তা করতে হবেনা।

এমনকি আপনাকে পণ্যটি ছুঁয়েও দেখতে হবেনা।

আপনাকে শুধু পণ্যটি বিক্রি করে দেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে।

এক্ষেত্রে আপনি পণ্যটির লক্ষ্যমাত্রার থেকে অধিক দামে বিক্রি করে দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন।

ড্রপশিপিং এর মাধ্যমে ইনকামের জন্য আপনাকে Shopify এর সাথে একটি অনলাইন স্টোর সেট করতে হবে।

এরপর এদের থেকে পণ্য নিয়ে মার্কেটিং শুরু করে দিতে হবে।

অনেকেই ড্রপশিপিং করে মাসে লাখ টাকা পর্যন্ত আয় করছেন। আপনি কেন বসে থাকবেন? আপনিও আজ থেকে ড্রপশিপিং শুরু করে দিন।

৪) Blogger.com

ব্লগার (Blogger) হল এমন একটি প্ল্যাটফর্ম, যেখানে আপনি ফ্রিতে আর্টিকেল লিখে ইনকাম করতে পারবেন।

এখানে আপনি যেকোন ধরনের, যেকোন ক্যাটাগরির ব্লগ লিখতে পারবেন। এখানে ব্লগ লিখে তা ক্যাটাগরি, ট্যাগ দিয়ে সেট করা যায়।

এছাড়া এখানে আপনি ব্লগ বা আর্টিকেলের সাথে ছবি ও ভিডিও যুক্ত করতে পারবেন।

ব্লগার (Blogger) খুবই ইউজার ফ্রেন্ডলি (user-friendly) একটি প্ল্যাটফর্ম। এখানে সম্পূর্ণ ফ্রিতে ব্লগ লেখা যায়।

আর এখানে প্রতিটি ব্লগ ওয়েবসাইটের সাথে ফ্রিতে একটি Blogspot.com যুক্ত Domain দেওয়ায় হয়।

আপনি চাইলে আপনার নিজস্ব Domain ব্লগার ওয়েবসাইটের সাথে যুক্ত করতে পারেন।

ব্লগার (Blogger) এ ব্লগ বা আর্টিকেল লিখতে একটি gmail অ্যাকাউন্টের প্রয়োজন হয়।

আপনি ব্লগারের মাধ্যমে Google Adsense থেকে, স্পন্সরশীপের মাধ্যমে, অ্যাফেলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে আয় করতে পারবেন। আপনি আজই ব্লগার থেকে একটি ব্লগ তৈরি করে পোস্ট দেওয়া শুরু করতে পারেন।

৫) Freecash.com

Freecash হল অনলাইনে টাকা ইনকাম করার খুবই ভাল জনপ্রিয় একটি ওয়েবসাইট। এটা টাকা ইনকামের একটি জেনুইন ওয়েবসাইট।

এখান থেকে আপনি সার্ভে করে, গেম খেলে, বিভিন্ন Tasks পূরণ করে ইনকাম করতে পারবেন। Freecash থেকে আপনার ইনকামের টাকা আপনি সহজেই Paypal, Bitcoin, Bank transfer এর মাধ্যমে তুলতে পারবেন।

সুবিধাঃ

  • ইন্সট্যান্ট paypal ক্যাশ আউটের সুবিধা।
  • মাত্র ১০০০ coins এ ১ ডলার পাওয়া যায়।

৬) Clickbank.com

যারা অনলাইনে অ্যাফেলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে ইনকাম করতে চান, তারা হয়তো clickbank এর নাম শুনে থাকবেন।

Clickbank এ ৬ মিলিয়নের বেশি পণ্য (Produts) ও ২০০ মিলিয়নের বেশি কাস্টমার রয়েছে। এই প্লাটফর্মে রয়েছে উন্নত ধরনের ট্রাকিং সিস্টেম।

এখানে কমিশন পাওয়া যায় সময়মতো। তাই বিক্রেতা, অ্যাফেলিয়েট, ক্লায়েন্ট (Clients) সকলেই সন্তুষ্ট থাকেন।

এবার জানা যাক, অ্যাফেলিয়েট মার্কেটিং কি?

অ্যাফেলিয়েট (Affiliate) মার্কেটিং হল এমন এক প্রক্রিয়া, যে পদ্ধতিতে আপনি কারো পণ্য বা ডিজিটাল জিনিস বিক্রি করে দিয়ে, তার লাভ থেকে একটি কমিশন (Commision) অর্জন করবেন।

এক্ষেত্রে আপনার একটি রেফারেল লিংক এর মাধ্যমে সেই পণ্য বা সেবাটি বিক্রি করতে হবে। Clickbank এ এভাবে অ্যাফেলিয়েট মার্কেটিং করে আপনি প্রতিমাসে মোটা অংকের টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

৭) Ysense.com

Ysense এর মাধ্যমে আপনি নানা উপায়ে ইনকাম করতে পারবেন। আপনি এক্সট্রা ইনকামের জন্য Ysense ব্যবহার করতে পারেন।

এখান থেকে আপনি সার্ভে করে (survey), অ্যাপ ডাউনলোড করে, নতুন ওয়েবসাইটে সাইন আপ করে, ভিডিও দেখে, ইত্যাদি নানা উপায়ে সহজেই ইনকাম করতে পারবেন।

এছাড়া আপনি এখানে রেফারের (Referrals) মাধ্যমেও আয় করতে পারবেন। এদের AndroidIos অ্যাপ থাকায় আপনি সহজেই মোবাইল দিয়েই ইনকাম করতে পারবেন।

এখান থেকে খুব বেশি টাকা আয় করা সম্ভব নয়। আপনি চাইলে এক্সটা (Extra) ইনকামের জন্য এখানে কাজ করতে পারেন।

Ysense কে PTC সাইট হিসেবে স্বীকৃত করা হয়। এখানে যারা কাজ করেন, তাদের মধ্যে বেশিরভাগই সন্তুষ্ট। আপনি Ysense থেকে ইনকামকৃত টাকা Paypal, Payoneer সহ আরো নানা উপায়ে তুলতে পারবেন।

৮) Fiverr.com

Fiverr হল একটি ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট। যারা অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম করতে চান, তাদের জন্য Fiverr একটি সেরা অপশন।

এখানে আপনি যেকোন দক্ষতার কাজ করতে পারেন। যেমনঃ ডাটা এন্ট্রি, টাইপিং, লোগো ডিজাইন, ভিডিও এডিটিং, Translation, Voice overs, সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট, ওয়বে ডিজাইন, গ্রাফিক্স ডিজাইন ইত্যাদ।

এখানে কাজ করার জন্য আপনার কাজের ধরণ অনুযায়ী গিগ (gig) খুলতে হয়। এখানে আপনি আপনার গিগের সর্বনিম্ন চার্জ ৫ ডলার করতে পারেন।

আপনি আপনার গিগে যত কাজের অর্ডার পারেন, আপনার তত ইনকাম হবে।

এই প্ল্যাটফর্ম থেকে অনেকেই প্রতিমাসে লাখ টাকা ইনকাম করছেন।

৯) Swagbucks.com

Swagbucks এর মাধ্যমেও আপনি সহজেই অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন। এটি মূলত একটি অনলাইন সার্ভে (survey) ওয়েবসাইট।

আপনি এই ওয়বেসাইটে sign up করার সাথে সাথে ১০ ডলার বোনাস পেয়ে যাবেন।

এখানে সার্ভে ছাড়াও গেম খেলে, গিফট কার্ড (Gift card) কিনে, শপিং করে, ভিডিও দেখে ইত্যাদি উপায়ে আয় করতে পারবেন।

আপনি এখান থেকে দিনে ৫ ডলারের বেশি টাকা আয় করতে পারবেন।

১০) Youtube.com

আমরা প্রায় সকলেই ইউটিউব (Youtube) সম্পর্কে অবগত। আপনি যদি আসলেই টাকা ইনকাম করতে চান ও অনলাইনে নিজের ক্যারিয়ার গড়তে চান।

তাহলে ইউটিউব হবে আপনার জন্য সেরা অপশন। আপনি ইউটিউবে বিভিন্ন ক্যাটাগরির ভিডিও বানিয়ে তা আপলোড করে ইনকাম করতে পারেন।

ইউটিউব থেকে ইনকাম করার জন্য প্রথমে আপনার একটি Gmail একাউন্ট দিয়ে ইউটিউবে লগইন করতে হবে।

এরপর একটি Youtube Channel খুলতে হবে। আপনাকে একে একে আপনার তৈরি করা ভিডিও সেই চ্যানেলে আপলোড করতে হবে।

আপনি ইউটিউব থেকে তাদের partners program এ যুক্ত হয়ে, অ্যাফেলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে, নিজের পণ্য বিক্রি করে ইত্যাদি নানা উপায়ে ইনকাম করতে পারবেন।

আপনার ইউটিউব চ্যানেল জনপ্রিয় হওয়ার সাথে সাথে আপনার ইনকাম বৃদ্ধি পাবে। ইউটিউব থেকে অনেকেই মাসে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করছে। আপনিও শুরু করে দিতে পারেন।

আপনি যা জানেন বা পারেন, সেই টপিকের উপর ভিডিও বানাতে পারেন।

শুরুতে আপনার ইনকাম কম হলেও ধীরে ধীরে এটি বাড়তেই থাকবে। তবে আপনাকে সৎ, পরিশ্রমী ও ধৈর্য্যশীল হতে হবে।

১১) Flippa.com

আপনি আপনার ডিজিটাল assets বা সম্পদ বিক্রি করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। Flippa তে Domain, ওয়েবসাইট, অ্যাপ ইত্যাদি বিক্রি করতে পারবেন বেশ চড়া মূল্যে।

ধরুন, আপনার একটি ব্লগ ওয়েবসাইট আছে। সেখানে আপনি প্রতিমাসে Google Adsense, অ্যাফেলিয়েট মার্কেটিং ইত্যাদি থেকে ১০০০ ডলার ইনকাম করেন। তাহলে এই ওয়েবসাইটটি আপনার একটি ডিজিটাল সম্পদ।

এখন আপনি যদি মনে করে আপনি আপনার এই ওয়েবসাইটিকে ৫০০০০ হাজার টাকায় বিক্রি করতে চান, কারণ আপনার টাকার দরকার।

তাহলে আপনি তখন Flippa এর মাধ্যমে সহজেই আপনার এই ওয়েবসাইটটি নির্ধারিত দামে বিক্রি করতে পারবেন। Website ছাড়াও আপনি অ্যাপস, ডোমেইন ইত্যাদি বিক্রি করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

১২) Neobux.com

 

Neobux হল একটি অনলাইন PTC ওয়েবসাইত। PTC মানে হল Paid to Click. এখান থেকে টাকা ইনকামের জন্য আপনাকে এদের এডে ক্লিক করতে হবে।

আপনি Neobux থেকে ইনকাম করার জন্য এখানে Registration করতে হবে। এরপর Dashboard থেকে এদের দেখানো এডে ক্লিক করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

এখানে আপনি রেফার করেও ইনকাম করতে পারবেন। এই ধরনের সাইট থেকে খুব বেশি পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে না পারলেও, হাত খরচের টাকা উঠাতে পারবেন।

আপনি দিনে ৫ থেকে ১০ ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারবেন।

Neobux থেকে আপনি আপনার আয়কৃত টাকা সহজেই Paypal, Payoneer এর মাধ্যমে তুলতে পারবেন। আপনি Payoneer থেকে সরাসরি টাকা ব্যাংকেও নিতে পারবেন।

১৩) Upwork.com

Upwrok হল খুবই প্রসিদ্ধ একটি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস। ফ্রিল্যান্সিং যত সাইট আছে, এদের মধ্যে Upwork সবথেকে অন্যতম।

আপনি ফ্রিল্যান্সিং যেকোন কাজে ( ওয়েবডেভেলপমেন্ট, ভিডিও এডিটিং, কন্টেন্ট রাইটিং, মার্কেটিং, অ্যাকাউন্টিং, বুকিং, কনসালটেন্সি, গ্রাগিক্স ডিজাইন ইত্যাদি) দক্ষ বা অভিজ্ঞ হয়ে থাকলে

Upwork এ যুক্ত হয়ে কাজ শুরু করে দিতে পারেন। আপওয়ার্কে আপনি আপনার কাজের Value বা মূল্যায়ন অন্যান্য মার্কেটপ্লসের তুলনায় বেশি পাবেন। তাই আপওয়ার্কে ইনকাম টাও বেশি।

এখানে ফিক্সড প্রাইজ (Fixed price), ঘন্টা হিসেবে (Hourly) কাজ করতে পারেন।

আপওয়ার্ক থেকে আপনি ঘন্টায় ২০ থেকে ২৫ ডলার পর্যন্ত ইনকাম করতে পারবেন।

আপনার ইনকামের কিছু পরিমাণ টাকা Upwork কেটে নিবে। আপনি দক্ষতার সহিত আপওয়ার্কে কাজ করে আপনার ক্যারিয়ার গড়তে পারেন।

এখানে থেকে আপনি সহজেই ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে টাকা তুলতে পারবেন।

রিয়েল টাকা ইনকাম করার জন্য কি কি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে?

 

অনলাইনে টাকা ইনকামের অনেক সাইট আছে। এর মধ্য থেকে আমাদের সঠিক সাইট টি বেছে নিতে হবে। কেননা এখানে অনেক ওয়েবসাইট আমাদের সাথে প্রতারণা করে।

আমাদের ইনকাম হওয়া টাকা দিতে চায়না। অনেকে তাদের ওয়েবসাইটটি বন্ধ করে দেয়।

তাই অনলাইনে টাকা ইনকামের ক্ষেত্রে আমাদের সেই সকল ওয়েবসাইটটি থেকে দূরে থাকতে হবে। কিভাবে বুঝব যে সাইটটি অরিজিনাল নাকি ফেক?

১. অনলাইন রিভিও (Review):

আপনি যে সাইটে কাজ করতে চান, তা আসল কিনা জানার জন্য এদের গুগল রিভিও, Trustpilot Review দেখতে পারেন।

এছাড়া তাদের যদি কোন App থাকে, তাহলে সেই অ্যাপের Review দেখে নিতে পারেন। এখানে অধিকাংশ মানুষ যদি তাদের ব্যাপারে ভাল বলে বা ভাল Review দেয়। তাহলে আপনি সেই সাইটে কাজ করতে পারেন

২. Https চেক করাঃ

ওয়েবসাইটের Https ওয়েবসাইটের সিকিউরিটি নির্দেশ করে। আপনি যে সাইটে কাজ করতে চান, সেই ওয়েবসাইটের লিংক https কিনা তা দেখে নিন।

Https থাকলে বুঝতে হবে, সেই ওয়েবসাইটে SSL certificate আছে।

সাধারণত এই ধরনের ওয়েবসাইট স্ক্যাম (scam) করেনা। তবে যেসকল ওয়েবসাইটের লিংকে শুধুমাত্র Http আছে। সেই ওয়েবসাইটে কাজ না করাই উত্তম।

৩. পেমেন্ট মেথড (Payment Method) চেক করাঃ

আপনি যে সাইটে কাজ করছেন, তার পেমেন্ট Structure ঠিক আছে কিনা দেখে নিন। আর এদের পেমেন্ট মেথড সহজলভ্য ও সব জায়গায় সাপোর্টিভ কিনা দেখে নিন।

৪. টাইটেলে clickbait শব্দ আছে কিনা চেক করাঃ

এমন অনেক ওয়েবসাইট আছে, যারা তাদের টাইটেলে অনেকে আকর্ষণীয় ও লোভনীয় কথা লিখে প্রচারণা করে। বিশেষ করে তারা তাড়াতাড়ি বড়লোক হওয়ার কথা বলে থাকে। এই ধরনের ওয়েবসাইট থেকে দূরে থাকুন।

FAQ: 

কোন কোন সাইট থেকে রিয়েল টাকা ইনকাম করা যায়?

আপনি ফ্রিল্যান্সিং সাইট, Youtube, Facebook, PTC সাইট, Gettyimages, Google Adsense, Flippa, Clickbank, Blogger, Shopify ওয়েবসাইট থেকে রিয়েল (Real) বা আসলেই টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

অনলাইন ইনকাম কি রিয়েল?

হ্যাঁ অবশ্যই। আপনি অনলাইনে থেকেই খুব সহজে ইনকাম করতে পারবেন। তবে আপনাকে রিয়েল সাইট খুঁজে নিতে হবে।

কিভাবে ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করা যায়?

আপনি একটি ওয়েবসাইট থেকে বিজ্ঞাপণ দেখিয়ে, পণ্য বিক্রি করে, অ্যাফেলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে, স্পন্সরশীপের মাধ্যমে আয় করতে পারবেন।

উপসংহার

উপরের লেখাটি পড়ে আপনারা জেনে গিয়েছেন, অনলাইনে কি কি আসল সাইট থেকে টাকা ইনকাম করা যায়।

আশা করি, এখন আপনারা এই আসল সাইটগুলিতে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আমাদের মধ্যে যারা বেকার বসে আছি, তারা চাকরির পেছনে না ছুটে ঘরে বসে টাকা ইনকাম শুরু করে দিতে পারি।

উপরের সাইট ছাড়াও আরো অনেক অনলাইন ইনকামের অ্যাপ ও সাইট আছে।

আসলে অনলাইনে আয়ের উপায়েরে শেষ নেই। আপনাকেই এদের মধ্য থেকে একটি উপায় খুঁজে বের কাজ শুরু করে দিতে হবে।

পোস্টটি শেয়ার করুন-