বর্তমানে অনলাইনে আমরা কমবেশি সবাই সময় কাটিয়ে থাকি। এই অনলাইনেই ফ্রিতে ডলার ইনকাম করা সম্ভব।

অযথা অনলাইনে সময় নষ্ট না করে অনলাইনে ফ্রীতে টাকা আয় করা অনেক ভাল।

আর এখানে অনেক বেশি পরিমাণ আয় করা সম্ভব হয়ে থাকে।

যা ডলারে ইনকাম করা যায়। আর ডলারের রেট দিন দিন বাংলা টাকায় বাড়তেই আছে। তাই যত বেশি ডলার ইনকাম হবে, তত ভালো ইনকাম হবে।

চাকরি করে বা ব্যবসা করে ইনকাম করার থেকে অনলাইনে আয় করা অনেক সহজ। আবার এমন অনেক অ্যাপ আছে, যাদের সাহায্যে অনলাইনে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করা যায়।

আবার অফলাইনে ব্যবসা করে টাকা ইনকাম করার জন্য অনেক টাকা ইনভেস্ট করতে হয়।

তাই অনলাইনে বিভিন্ন ডলার ইনকাম করার সাইট ও ডলার ইনকাম করার অ্যাপস থেকে ইনকাম করা অনেক ভালো।

আমরা এই ব্লগে ফ্রিতে ডলার ইনকাম করার উপায়গুলি সম্পর্কে জানব।

অবশ্যই পড়ুনঃ

ফ্রিতে ডলার ইনকাম করার জন্য আপনার কি কি থাকতে হবে

আপনি যদি মনে মনে চিন্তা করে থাকেন যে, আপনাকে অনলাইন থেকে ডলারে টাকা ইনকাম করতেই হবে।

তাহলে, আপনার যা যা থাকতে হবে- 

  • আপনার কমপক্ষে একটি স্মার্টফোন থাকতেই হবে। যে স্মার্টফোনের সাহায্যে আপনি খুব সহজেই ইনকাম করতে পারবেন।
  • স্মার্টফোন ছাড়াও আপনার থাকতে হবে ইন্টারনেট কানেকশনআর ইন্টারনেটের গতি অনেক ভাল হতে হবে।
  • এছাড়া আপনার মধ্যে ধৈর্য্যশীল হওয়ার গুণাবলি থাকতে হবে।
  • আর অনলাইন থেকে ডলারে ইনকাম হওয়া অর্থ উঠানোর জন্য আপনার ব্যাংক, বিকাশ, রকেট, নগদ ইত্যাদি একাউন্ট থাকতে হবে।আর আপনার বয়স যদি ১৮ না হয়। তবে আপনি আপনার পিতামাতা বা পরিবারের যে কোন সদস্যের একাউন্ট দিয়ে ডলার উঠাতে পারবেন।

ফ্রিতে ডলার ইনকাম করার সেরা ৫ উপায়

আপনি যদি অনলাইনে ডলার ইনকাম করতে চান, তাহলে আপনাকে আসল উপায়গুলি জানতে হবে। আপনি আসল উপায় জেনে সহজে ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

আর আপনার সেই ইনকাম হবে সম্পূর্ণ বিনা ইনভেস্টে বা কোন প্রকার পুঁজি ছাড়াই।

আপনি জেনে খুশি হবেন যে, একদম ফ্রিতে অনলাইনে ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

আর সেই ডলার সহজেই টাকাতে রুপান্তর করে আয় করতে পারবেন। এখন দেখে নিন কিভাবে অনলাইন থেকে ডলারে টাকা ইনকাম করা যায়।

১. ব্লগ বা আর্টিকেল লিখে আয়

আপনার যদি লেখালেখি করার অভ্যাস থাকে। তাহলে আপনি খুব সহজেই অনলাইনে লেখালেখি করে ডলারে টাকা আয় করতে পারবেন।

অনলাইনে জগতে লেখালেখির প্রচুর চাহিদা। আপনি ব্লগ লিখে অনলাইন থেকে ডলার ইনকাম করতে পারেন।

কেননা মানুষ যেকোন কিছু জানতে গুগলে সার্চ করে।  আর আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ব্লগ লিখেন, তাহলে যেকেউ গুগলে আপনার ব্লগ পাবে ও পড়বে। আর মানুষ যত বেশি বেশি আপনার ওয়েবসাইট ভিজিট করবে, আপনার তত ইনকাম হবে।

সাধারণত ব্লগ বা আর্টিকেল লিখে ২ ভাবে আয় করা যায়।

১। নিজের ওয়েবসাইটে ব্লগ লিখে আয়।

২। অন্যের জন্য ব্লগ বা আর্টিকেল লিখে আয়

নিজের ওয়েবসাইটে ব্লগ লিখে আয়

আপনি ব্লগ লিখে ফিতে ডলার ইনকাম করার জন্য আপনাকে একটি ব্লগার এর মাধ্যমে ফ্রি ওয়েবসাইট বানাতে হবে।

এরপর সেই ওয়েবসাইটে যেকোন বিষয়ের উপর ব্লগ লিখে যেতে হবে। আপনি সমসাময়িক বিষয়, টেক, রান্না, খেলা ইত্যাদি বিষয়ে ব্লগ লিখতে পারেন।

আপনার অনেক ব্লগ লেখা হয়ে গেলে, আপনি আপনার ওয়েবসাইটে Google adsense এর বিজ্ঞাপণ লাগিয়ে মাসে হাজার হাজার ডলার আয় কর‍তে পারবেন।

তবে এর জন্য আপনাকে অবশ্যই আপনার ব্লগ ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্সের অ্যাপ্রুভাল পেতে হবে। ওয়েবসাইটে কিভাবে গুগল এডসেন্স পেতে হয়, সে বিষয়েও আপনাকে জানতে হবে।

এছাড়াও আপনি আপনার ব্লগ ওয়েবসাইট থেকে অ্যাফেলয়েট মার্কেটিং ও স্পন্সরশীপ, প্রডাক্ট বিক্রি ইত্যাদি নানা মাধ্যমে ডলারে ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি আপনার ইনকামকৃত ডলার সহজেই ব্যাংক, বিকাশ, নগদ, রকেট বা অন্য কোন মাধ্যমে টাকা হিসেবে নিতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ

অন্যের জন্য ব্লগ বা আর্টিকেল লিখে আয়

আপনি যদি খুব ভাল ও গুছিয়ে লিখতে পারেন। তাহলে আপনার জন্য রয়েছে ইনকামের বিশাল সুযোগ।

অনলাইনের বিভিন্ন Freelancing Platform আছে। যেমন: Upwork, Fiverr, Freelancer ইত্যাদি। এই প্ল্যাটফর্ম গুলিতে লেখালেখি করার জন্য ডলার বা টাকা দেওয়া হয়ে থাকে।

একটি আর্টিকেল লিখে এ সমস্ত ওয়েবসাইট থেকে ২০ থেকে ৫০ ডলার পর্যন্ত আয় করা যায়।

এই সকল ফ্রিল্যান্সিং সাইটে আপনি সহজেই লেখালেখির কাজ পাবেন।

আপনিও চাইলেই এই ওয়েবসাইটগুলিতে একাউন্ট খুলে ব্লগ বা আর্টিকেল লেখার কাজগুলি করে প্রতিমাসে ডলারে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

২. ইউটিউব এর মাধ্যমে আয়

আপনি জেনে অবাক হবেন যে, ইউটিউব ভিডিও বানিয়ে এখন অনেকেই মাসে কোটি টাকা ইনকাম করছেন। আপনিও Youtube থেকে ইনকাম শুরু করে দিতে পারেন। এখানে আপনি সম্পূর্ণ ফ্রিতে ইনকাম করতে পারেন।

ইউটিউব হল একটি ভিডিও প্ল্যাটফর্ম। এখানে প্রতিদিন হাজার হাজার ভিডিও আপলোড হচ্ছে।

আর এই ভিডিও যারা বানাচ্ছে, তারা প্রতিমাসে হাজার হাজার ডলার ইনকাম করছেন। 

আপনিও যেকোন ক্যাটাগরির ভিডিও আপনার হাতের মোবাইল দিয়েই বানাতে পারেন। আর মোবাইলের ভিডিও এডিটিং অ্যাপ দিয়ে ফ্রিতে ভিডিও এডিট করে নিতে পারবেন।

আপনি ইউটিউবে আপনার নিজের চেহারা দেখিয়ে বা না দেখিয়ে ভিডিও বানিয়ে ইনকাম করতে পারবেন।

ইউটিউবে আপনি শিক্ষামূলক, বিনোদনমূলক ফানি, টিউটোরিয়াল, রিভিও ইত্যাদি বিষয়ে ভিডিও বানাতে পারেন।

ইউটিউব থেকে ইনকামের পদ্ধতি

Youtube থেকে ইনকাম করার জন্য আপনাকে একের পর এক ভিডিও আপনার ইউটিউবের চ্যানেলে আপলোড দিয়ে যেতে হবে।

এরপর ভিডিও গুলিতে ভিজিটর আসা শুরু হলে Google Adsense এর বিজ্ঞাপণ দিয়ে, অ্যাফেলিয়েট মার্কেটিং করে, স্পন্সরশীপ ইত্যাদি মাধ্যমে প্রতিমাসে হাজার হাজার ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

আর আপনার আয়কৃত ডলার টাকায় কনভার্ট হয়ে খুব সহজে আপনার ব্যাংক একাউন্টে নিতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ

ফ্রিতে ডলার ইনকাম

Earn Free Cash Online

 

৩. ছবি বিক্রি করে আয়

আপনি জেনে খুশি হবেন যে, শুধুমাত্র আপনার মোবাইলের ক্যামেরা দিয়ে ছবি তুলে আপনি ডলারে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি যেকোন ছবি তুলে ডলার ইনকাম করতে পারবেন। আর আপনার এই তোলা ছবিগুলি কিছু অনলাইন ফটোগ্রাফি ওয়েবসাইটে বিক্রি করে ফ্রিতে আয় করতে পারবেন।

এই ওয়েবসাইটগুলি হল: Istock, Pond5, Gettyimage, 500Px ইত্যাদি। এই ওয়েবাসাইটগুলি থেকে ইনকাম করার জন্য আপনার এক টাকাও খরচ হবেনা। আপনাকে শুধু সেই ওয়েবসাইটে আপনার তোলা ছবিগুলি আপলোড করতে হবে।

আপনি যত বেশি ছবি তুলে আপলোড করবেন। আপনার তত বেশি ফ্রিতে ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

আর আপনার আয়কৃত ডলার আপনি খুব সহজেই বিকাশ, নগদ, রকেট সহ যেকোন মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে টাকা হিসেবে নিতে পারবেন।

অনলাইনে ছবি বিক্রি করে আপনি মাসে লাখ টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ

৪. ফ্রিল্যান্সিং করে আয়

অনলাইন থেকে ডলার ইনকামের সবথেকে কার্যকরী মাধ্যম হল ফ্রিল্যান্সিং করে আয়।

ফ্রিল্যান্সিং নাম শোনেনি এমন মানুষ খুব কম আছে। এর অর্থ হল ফ্রিতে ঘরে বসে কাজ করা। এতে কারো অধীনে কাজ করতে হয়না।

আপনি খুব সহজেই ঘরে বসে ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে সহজ কাজ করে ইনকাম করতে পারবেন।

এর মধ্যে কিছু কিছু কাজ আছে। যা একদম সহজ।

আপনি চাইলেই এই কাজগুলি করে মাসে মাসে হাজার হাজার ডলার আয় করতে পারবেন। কয়েকটি ফ্রিল্যান্সিং কাজ হল:

  • ডাটা এন্ট্রি
  • কন্টেন্ট রাইটিং
  • টাইপিং
  • ডিজিটাল মার্কেটিং
  • ভিডিও এডিটিং 
  • এসইও
  • গ্রাফিক্স ডিজাইন 
  • ওয়েব ডিজাইন

ফ্রিল্যান্সিং করে কিভাবে ইনকাম করতে হয়

আপনাকে প্রথমে ফ্রিল্যান্সিং এর যেকোন কাজ শিখতে হবে। আপনি ইউটিউব দেখে শিখতে পারেন। এছাড়া কোন আইটি সেন্টার থেকে শিখতে পারেন।

এরপর আপনাকে Upwork, Fiverr, Freelancer, Guru, Peopleperhour ইত্যাদি মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট খুলতে হবে।

এরপর আপনার কাজ অনুযায়ী কাজের জন্য আবেদন করতে হবে। কাজ পাওয়ার পর কাজ করে তা বায়ারকে দিতে হবে। এরপর বায়ার আপনাকে ডলার প্রদান করবে।

আপনি এখানে ঘন্টা হিসাবে ও ফিক্সড প্রাইজে কাজ করে ফ্রিতে ডলার ইনকাম করতে পারবেন। আর আপনার টাকা খুব সহজেই ব্যাংক থেকে উঠাতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং করে প্রতি মাসে ৫০০ ডলার থেকে ৫০০০ হাজার ডলার পর্যন্ত আয় করা সম্ভব। বাংলা টাকায় যা ৫০ হাজার থেকে ৫ লাখ টাকার মত।

আরো পড়ুনঃ

৫. ফেসবুক এর মাধ্যমে আয়

আমরা সকলেই ফেসবুকে ঘন্টার পর ঘন্টা সময় পার করি। কিন্তু এখানেই রয়েছে ডলার ইনকামের বিশাল ক্ষেত্র।

আপনি ডলারে টাকা ইনকাম করতে চাইলে Facebook এর মাধ্যমে করতে পারেন।

ফেসবুক নানা উপায়ে ডলার ইনকাম করা যায়। যেমন-

১. ফেসবুকে ভিডিও আপলোড করে

২. রিলস ভিডিও বানিয়ে

৩. ফেসবুক পেজে গুগল এডসেন্স যুক্ত ওয়েবসাইট এর লিংক শেয়ার করে।

৪. অ্যাফেলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে

৫. স্পন্সরশীপের মাধ্যমে

৬. পণ্য বিক্রি করে

৭. ড্রপশিপিং এর মাধ্যমে ইত্যাদি

উপরের এই উপায়গুলির মাধ্যমে ফেসবুক থেকে ইনকাম করা একদম সহজ।

তবে আপনি যেটাই করেন না কেন। তা খুব ভালভাবে করতে হবে। ফেসবুক থেকে প্রতিমাসে হাজার ডলারের উপর ইনকাম করা সম্ভব।

আরো পড়ুনঃ

উপসংহার

আপনার যদি ফ্রিতে ডলার ইনকাম করার প্রয়োজন পড়ে। তাহলে আপনি উপরের যেকোন একটি উপায় অবলম্বন করে ইনকাম করা শুরু করে দিতে পারেন। 

আসলে অনলাইনে ডলার আয় করাটা অনেক সহজ। কিন্তু এটা কিভাবে করতে হয়। তার সঠিক উপায় জানাটাই সবচেয়ে গুরত্বপূর্ণ। আর কাজে দক্ষতা অর্জন করাটাও অনেক বেশি প্রয়োজন।

আশাকরি আপনি এই উপায়গুলি জেনে নিজেও আয় শুরু করে দিতে পারবেন।

অবশ্যই পড়ুনঃ

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন-