বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং খুবই জনপ্রিয় হচ্ছে। অনেক বাংলাদেশি  ফ্রিল্যান্সিং সাইট আছে, যেখান থেকে খুব সহজেই ইনকাম করা যাচ্ছে।

ফ্রিল্যান্সিং অনেক জনপ্রিয় হওয়ার কারণ হল, আপনি সহজেই যেকোন জায়গা থেকে, যেকোন সময়ে কাজ করতে পারেন। এখানে আপনার কোন বস নেই। আপনি নিজেই নিজের বস।

আপনি অনলাইনে ফেসবুকে ভিডিও দেখে ইনকাম করতে পারেন বা ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে পারেন।

তবে অনলাইনে ইনকামের অন্যতম মাধ্যম হল ফ্রিল্যান্সিং।

সারা পৃথিবী জুড়ে ফিল্যান্সিং এর বিস্তার ও প্রসার ঘটেছে।

বাংলাদেশও তার ব্যতিক্রম নয়। বাংলাদেশেও অনেকেই ফিল্যান্সিং করছেন। আর বেকারত্ব থেকে মুক্তি পাচ্ছেন।

পৃথিবীজুড়ে বাংলাদেশী ফ্রিল্যান্সারদের অনেক কদর আছে। এখন ফ্রিল্যান্সিং এর দিক দিয়ে বাংলাদেশ বেশ ভাল অবস্থানে আছে।

বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ রয়েছে। যেমনঃ

  • কন্টেন্ট রাইটিং  (Content Wrinting)
  • ভার্টুয়াল এসিস্টেন্ট (Virtual Assistant)
  • গ্রাফিক্স ডিজাইনার  (Graphics Designer)
  • সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজার (Social Media Manager)
  • ডাটা এন্ট্রি জব (Data Entry Jobs)
  • ওয়েব ডেভেলপার (Web Developer)
  • ওয়েব ডিজাইনার (Web Designer)
  • অনলাইন টিউটর (Online Tutor)
  • ট্রান্সলেটর (Translator)
  • ডিজিটাল মার্কেটার (Digital Marketing)
  • ভিডিও এডিটিং (Video Edditing)
  • এস ই ও (SEO) ইত্যাদি

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করার জন্য আপনাকে সঠিক ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস বেছে নিতে হবে।

বাংলাদেশি অনেক ফ্রিল্যান্সিং সাইট আছে, যেগুলিতে মোটামুটি ভাল পরিমাণ ইনকাম করা যাবে। 

বর্তমানে এই সাইট গুলিতে খুব বেশি পরিমাণ কাজ না পাওয়া গেলেও ভবিষ্যতে এই সাইটগুলির অবস্থান অনেক ভাল হবে।

তাই যারা এখন এই সমস্ত সাইটে কাজ করছেন। তারা একসময় প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে সকলেই কাজ করতে চায়। কিন্তু এখানে কাজ করে ইনকাম করাটা খুব বেশি সহজ নয়। আবার খুব কঠিনও নয়।

আপনি যেকাজ করতে চান সেই কাজে আপনাকে অনেক দক্ষ হতে হবে ও আপনার কাজের Portfolio বানাতে থাকতে হবে।

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস কি?

এটি এমন একটি অনলাইন প্লাটফর্ম (platform) যেখানে ফ্রিল্যান্সারদের কাজের প্রোফাইল থাকে। এখানে বায়ার বা ক্লায়েটরা ফ্রিল্যান্সারদের কাছ থেকে কাজ করিয়ে নেয়। আর বিনিময়ে তারা ফ্রিল্যান্সারদের টাকা প্রদান করে।

এখানে ফ্রিল্যান্সারেরা টাকা ইনকাম করে। আর বায়াররা টাকা দিয়ে তাদের বিভিন্ন কাজ করিয়ে নেয়। 

ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার জন্য কিসের প্রয়োজন?

আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম করতে চান, তাহলে আপনার যা যা প্রয়োজন হবে।

১. কাজের দক্ষতা

২. কম্পিউটার বা ল্যাপটপ

৩. ইংরেজীতে দক্ষতা

৪. সঠিক মার্কেটপ্লসে

৫. ইন্টারনেট কানেকশন

৬. একটি স্মার্টফোন

৭. প্রবল ইচ্ছাশক্তি

সেরা ৬টি বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সিং সাইট যেখানে আপনি কাজ খুঁজতে পারেন

বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সিং সাইট

Top 6 Bangladeshi Freelancing Site

 

ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার গড়ার জন্য আমাদের সেরা ওয়েবসাইটে কাজ করতে হবে। অনেক মোবাইল ফ্রিল্যান্সিং সাইট আছে, যেখানকার কাজ আপনি আপনার মোবাইল দিয়েও করতে পারবেন।

তবে একটা কথা মাথায় রাখতে হবে, ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য কম্পিউটার বা ল্যাপটপ হলে সবথেকে ভাল হবে।

মোবাইল দিয়ে কিছু কিছু কাজ করা গেলেও, কম্পিউটার দিয়েই আপনাকে ফ্রিল্যান্সিং করা উচিত।

এই ওয়েবসাইটগুলি বাংলাদেশীদের জন্য বেস্ট হবে।

আমরা এই মার্কেটপ্লেস গুলিতে সকল ধরনের কাজ সহজেই করে ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করতে পারব।

তবে নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং কিছুটা কঠিন মনে হলেও ধীরে ধীরে দক্ষতা বাড়ার সাথে সাথে তা অনেক সহজ হয়ে যাবে। বাংলাদেশি এই ফ্রিল্যান্সিং সাইটে শিক্ষার্থীরা সহজেই কাজ করতে পারবে। দেখে নিন সেরা ৭টি বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস তালিকা।

১. Belancer

২. Shocchol

৩. Dealancer

৪. Outsourcemyjob

৫. Workedbd

৬. Giveawork

১) Belancer

বাংলাদেশে যখন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লসে চালু হয়, তখন এই সাইটের আবির্ভাব ঘটে। এই ওয়েবসাইটে যেসকল ক্যাটাগরির কাজ পাওয়া যায়-

  • মোবাইল ও ওয়েব অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট (Mobile and Web App Development
  • গ্রাফিক্স ডিজাইন (Graphics Design)
  • রাইটিং (Wrinting)
  • ট্রান্সলেশন (Translation) 
  • মার্কেটিং (Marketing) 
  • ডাটা অ্যানালাইসিস (Data Analysis) 
  • ডাটা এন্ট্রি (Data Entry) 
  • ভিডিও এডিটিং
  • এসইও (Seo) ইত্যাদি

 

এখানে কাজ করার জন্য এই ওয়েবসাইটে যেতে হবে। এরপর sign up বাটনে ক্লিক করে Sign up as Freelancer বাটনে ক্লিক করতে হবে। এরপর আপনার তথ্য দিয়ে এখানে Join হতে হবে।

আপনাকে এখানে কাজ করার জন্য মোবাইল, ইমেইল ও আইডি (ID) অবশ্যই ভেরিফিকেশন করতে হবে।

এরপর আপনাকে আপনার প্রোফাইলটি সাজাতে হবে। এক্ষেত্রে আপনাকে Edit profile থেকে আপনার ছবি, Overview, ঘন্টাতে কত টাকা নিবেন, email, education, portfolio, skills ইত্যাদি সেট করতে হবে।

এখানে কাজ করে ইনকাম করার জন্য আপনাকে Browse Project বাটনে ক্লিক করতে হবে। দেখা যাবে, অনেক কাজ পোস্ট হয়েছে।

এখান থেকে আপনি আপনার skill বা ক্যাটাগরি অনুযায়ী কাজ পছন্দ করে Bid করতে পারবেন। এরপর কাজ পেলে আপনি এখানে কাজ করে ইনকাম করতে পারবেন।

এই সাইট থেকে আপনার আয়কৃত টাকা Paypal, Bkash এর মাধ্যমে নিতে পারবেন।

 

২) Shocchol

বাংলাদেশী এই মার্কেটপ্লেসটি অনেকটা Fiverr এর মত। যারা নতুন ফ্রিল্যান্সার, তারা এই ফ্রিল্যান্সিং সাইটে কাজ করতে পারেন।

এখানে গ্রাফিক্স ডিজাইন, ডিজিটাল মার্কেটিং, ট্রান্সলেশন, Photography, এসইও, ভিডিও এডিটিং, ডাটা এন্ট্রি, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, ডাটা এন্ট্রি ইত্যাদি প্রায় সকল ধরনের কাজ পাওয়া যায়

এখানে আপনি যেকাজ পারেন, তার বিবরণ ও মূল্য দিয়ে সেট করতে হবে।

এরপর কেউ যদি আপনাকে পছন্দ করে তাহলে সে আপনাকে টাকা দিয়ে আপনার কাছ থেকে কাজ করিয়ে নিবে।

এই ওয়েবসাইটটি এখনো তেমন একটা জনপ্রিয় হয় নাই। তবে ধীরে ধীরে যখন এখানে বায়ার বা ক্লায়েন্ট বেড়ে যাবে, তখন আপনি ভাল পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

এটি নিরাপদ ও বিশ্বস্থ ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেস। এখানে কাজ করার জন্য আপনাকে Register বাটনে ক্লিক করে একাউন্ট খুলতে হবে।

এরপর আপনি যে কাজ পারেন তার টাইটেল, ক্যাটাগরি, Description, কাজের মূল্য দিয়ে কাজ সেট করতে হবে।

নির্ধারিত মূল্যে আপনাকে দিয়ে কেউ কাজ করালে আপনি টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি আপনার আয়কৃত টাকা সহজেই Bkash, Nagad ও রকেটের মাধ্যমে তুলতে পারবেন।

 

৩) Dealancer

বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সারদের জন্য এটি একটা অসাধারণ সাইট। অনেকেই এই সাইটে কাজ করছেন ও টাকা ইনকাম করছেন। এই সাইটের মডেলটিও Fiverr এর মত। 

অর্থাৎ এখানে আপনার স্কিল বা জব সেল (sell) করে ইনকাম করতে পারবেন।

এখানে আপনি ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, Google Adsense, Youtube marketing, Facebook marketing, থীম ডেভেলপমেন্ট, গ্রাফিক্স ডিজাইন, রাইটিং ইত্যাদি কাজ করে আয় করতে পারবেন।

এছাড়া এখানে আপনি থীম, ডোমেইন, Seo service বিক্রি করেও ইনকাম করতে পারবেন।

এই সাইটে কাজ করার জন্য Register বাটনে ক্লিক করে একাউন্ট খুলতে হবে।

এরপর post new service অপশন থেকে আপনার service বা আপনি যে কাজ পারেন, তা যোগ করতে হবে।

আপনার কাজের টাইটেল (Title), কাজের মূল্য (service price), ক্যাটাগরি (Category), বর্ণনা (Description), Tags, Faq, ডেলিভারী সময় (Delivery time), কাজের ছবি, extra ইত্যাদি যুক্ত করে একটি Service যুক্ত করতে হবে।

এরপর আপনাকে কোন বায়ার কাজে নিলে আপনি সেই কাজ নির্ধারিত সময়ের মধ্যে করে জমা দিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি আপনার আয় করা টাকা বিকাশ (Bkash), নগদ (Nagad), রকেট (Rocket) এর মাধ্যমে তুলতে পারবেন।

 

৪) Outsourcemyjob

আমরা যারা বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সার আছি, তারা এই সাইটে কাজ করে ইনকাম করতে পারি। এখানে প্রায় সকল ক্যাটাগরির কাজ পাওয়া যায়। যেমনঃ ভার্টুয়াল এসিস্টেন্ট, লোগো ডিজাইন, ডাটা এন্ট্রি, রাইটিং,মার্কেটিং ইত্যাদি।

আপনিও এখানে Sign Up করে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে যুক্ত হতে পারেন। এখানে বেশ ভাল অ্যামাউন্টের টাকার Fixed Price এর কাজ পাওয়া যায়। তবে গত দুই বছর এই সাইটে কোন নতুন কাজ পোস্ট হয়নি।

আপনি এখানে একাউন্ট খুলে রেখে দিতে পারেন। যখন এখানে আবার কাজ পোস্ট হবে, তখন আপনি এখানে কাজে অ্যাপ্লাই করতে পারবেন।

এই সাইটে ১৭ হাজারেও বেশি ফ্রিল্যান্সার জয়েন (Join) হয়েছেন।

 

৫)  Workedbd

আরো একটি বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সিং সাইট এটি। এখানে মূলত Micro Job বেশি পাওয়া যায়। অর্থাৎ অল্প বাজেটের কাজ এখান মূলত পাওয়া যায়। এখানে ইমেইল মার্কেটিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ইত্যাদি কাজ করা যায়। 

এই মার্কেটপ্লেসে কাজ করার জন্য আপনাকে sign up বাটনে ক্লিক করে একাউন্ট খুলতে হবে।

এরপর আপনার কাজ সেট করতে হবে। বায়ার আপনাকে কাজে নিলে আপনি টাকা ইনকাম করতে পারেন।

এছাড়াও এই ওয়েবসাইট থেকে বিভিন্ন Micro job করে ইনকাম করতে পারবেন।

যেমন Gmail খোলা, sign up করা, ক্যাপচা এন্ট্রি ইত্যাদি কাজ করেও আপনি ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি আপনার আয়কৃত টাকা বিকাশ, নগদ, রকেটের মাধ্যমে নিতে পারবেন।

 

৬) Giveawork

এটিও একটি মাইক্রো ওয়ার্ক ওয়েবসাইট। এখানে অনেক সহজ ছোট ছোট কাজ করে ইনকাম করা যায়।

এছাড়া এখানে অনেক Project Based কাজও আছে। 

এখানে কাজ করার জন্য আপনাকে Login বাটনে ক্লিক করে একাউন্ট খুলতে হবে। এরপর কাজ করে ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি নগদ, বিকাশ, রকেটের মাধ্যমে টাকা হাতে পাবেন।

বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সিং সাইট থেকে মাসে কত টাকা আয় করা সম্ভব?

বেশিরভাগ বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সিং সাইটগুলি নতুন হওয়ার জন্য এখান থেকে আপনি বর্তমানে খুব বেশি পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারবেন না।

তবে ভবিষ্যতে এই সাইট গুলি জনপ্রিয় হলে আপনি ভাল

পরিমাণের টাকা ইনকাম করতে পারবেন। বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সারেরা বর্তমানে যেসকল ফ্রিল্যান্সিং সাইটে কাজ করে ভাল পরিমাণ টাকা ইনকাম করছে তার তালিকা-

১. Upwork

২. Fiverr

৩. Freelancer

৪. People Per Hour

৫. Guru

৬. Toptal

৭. Jooble

৮. SimplyHired

৯. Guru

১০. LinkedIn

১১. Behance

১২. 99 designs

১৩. Dribbble

১৪. Service Scape

১৫. Designhill

১৬. Task Rabbit

১৭. We Work Remotely

১৮. Flexjobs

১৯. Authentic Jobs

২০. DesignCrowd

২১. Seo Clerks

২২. Truelancer

উপরের এই সাইট গুলিতে কাজ করে প্রতিমাসে লাখ টাকা ইনকাম করা সম্ভব।

একটি ভাল ফ্রিল্যান্সিং সাইটের বৈশিষ্ট্য কি কি?

আমাদের ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কাজ করার আগে জানতে হবে, সেই ওয়েবসাইটটি ভাল কিনা। কেননা এর উপর আমাদের ইনকাম নির্ভর করে । ভাল ফ্রিল্যান্সিং সাইটের বৈশিষ্ট্য হল-

১. নিজস্ব মোবাইল অ্যাপঃ একটি ভাল সাইটের নিজস্ব অ্যাপ থাকবে। আর সেই অ্যাপের সাহায্যে কাজ দেখা, কাজে apply, বায়ারের সাথে চ্যাটিং ও কল সুবিধা থাকবে।

২. কাস্টমার সাপোর্টঃ তাদের কাস্টমার সাপোর্ট ব্যবস্থা থাকবে। আপনি কোন সমস্যায় পড়লে ২৪ ঘন্টা সাপোর্টের (Support) এর ব্যবস্থা থাকবে।

৩. রিভিও (Review): একটি ভাল ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটের গুগল রিভিও, Trustpilot রিভিও অবশ্যই অনেক ভাল হবে।

৪. ইন্টারন্যাশনাল কায়েন্ট (clients): অবশ্যই তাদের সারা বিশ্ব ব্যাপী বায়ার থাকবে। শুধুমাত্র লোকাল বায়ার থাকবেনা।

৫. পেমেন্ট মেথডঃ ভাল ও বিশ্বস্থ সাইটের পেমেন্ট মেথড ইন্টারন্যাশনাল হবে। যেমনঃ Wire transfer, Paypal, Payoneer.

৬. ভাল মানের বেশি বাজেটের কাজ ও প্রচুর পরিমাণ কাজঃ একটি আসল ও ভাল মানের ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম সাইটের বৈশিষ্ট্য হল এদের এখানে প্রতিদিন প্রচুর কাজ পোস্ট হতে থাকবে ও এদের অনেক ভাল বাজেটের কাজ পাওয়া যাবে। 

FAQ:

১. বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস কি কি?

বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলি হলঃ ১. Belancer, Shocchol, Dealancer, Outsourcemyjob, Workedbd, Giveawork, Workupjob ইত্যাদি।

২. বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং এর সবথেকে ডিমান্ডেবল সেক্টর কোনটি?

বর্তমানে চাহিদা আছে এমন ৫টি ফ্রিল্যান্সিং সেক্টর হল- ডিজিটাল মার্কেটিং, ভিডিও এডিটং, ডাটা এন্ট্রি, সোস্যাল মিডিয়া মার্কেটিং, এসইও।

৩. নতুন ফ্রিল্যান্সারদের জন্য সেরা মার্কেটপ্লেস কোনটি?

ফাইবার (Fiverr), গুরু (Guru), আপওয়ার্ক (Upwork), ফ্রিল্যান্সার (Freelancer), পিউপল পার আওয়ার (People Per Hour).

উপসংহার,

পরিশেষে আমরা জানতে পারলাম, বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সিং সাইট সম্পর্কে। আমরা যারা নতুন ফ্রিল্যান্সার আছি, তারা এই সাইটগুলিতে কাজ পাওয়ার চেষ্টা করতে পারি।

যদিও এই সাইটগুলি এখনও তেমন জনপ্রিয় হয়ে উঠতে পারেনি। তবে আশা করা যায়, ভবিষ্যতে এই সাইটগুলি থেকে অনেক কাজ পাওয়া যাবে ও অনেক ইনকাম হবে।

পোস্টটি শেয়ার করুন-