আজকাল অনেকেই খুব সহজে গুগল এডসেন্স থেকে আয় করছেন। এটা ঘরে বসেই করা যায়।

আপনি চাইলে আপনার মোবাইল থেকেই লেখালেখি করে আয় করতে পারেন।

এমনকি মোবাইল অ্যাপ, গেম, ভিডিও বানিয়ে আয় করতে পারেন।

যাদের একটি ব্লগ ওয়েবসাইট, অ্যাপ বা ইউটিউব চ্যানেল আছে। তারা খুব সহজেই ঘরে বসে এর মাধ্যমে আয় করতে পারছেন।

আপনাদের আগে জানতে হবে গুগল এডসেন্স কি?

আপনি ব্লগ ওয়েবসাইট বানিয়ে, ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে অথবা অ্যাপ বানিয়ে গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করতে পারবেন। অ্যাপের মাধ্যমে Adsense লাগানোকে Google Admob বলে।

গুগল এডসেন্স কি?

এটি গুগলের একটি সার্ভিস। এর মাধ্যমে আপনি বিজ্ঞাপণ দেখিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন।

আমরা বিভিন্ন ওয়েবসাইটে, অ্যাপে ও ইউটিউব ভিডিওতে এই অ্যাডগুলো দেখে থাকি।

এমনকি আমরা বিভিন্ন অ্যাপে এই অ্যাড দেখে থাকি।

এই অ্যাডগুলো দেখিয়ে সেই ওয়েবসাইট, ভিডিও বা অ্যাপের মালিক টাকা আয় করে থাকে।

আপনিও চাইলেই আপনার ওয়েবসাইটে বা ইউটিউব ভিডিওতে অ্যাড দেখিয়ে ইনকাম করতে পারবেন।

এখানে যারা এড প্রদান করে, তাদেরকে বলে advertiser.

যারা এড দেখায়, তাদেরকে বলে publisher । Advertiser রা গুগলে টাকা দেয় তাদের কোম্পানী বা পণ্যের প্রচারণার জন্য।

পাবলিশাররা তাদের ব্লগ ওয়েবসাইট, ইউটিউব চ্যানেলে সেই এডগুলি দেখিয়ে থাকে।

এই এড বা বিজ্ঞাপণ দেখানোর জন্য তারা টাকা ইনকাম করতে পারে।

এতে করে উভয় পক্ষই লাভবান হয়ে থাকে।

Google Adsense থেকে আয় করার জন্য এখানে Apply করতে হবে।

এরপর গুগল অ্যাপ্রুভ করে দিলে ব্লগ ওয়েবসাইট, অ্যাপ বা ইউটিউব চ্যানেলের মালিক এখান থেকে টাকা আয় করতে পারেন।

কেন গুগল এডসেন্স থেকে আয় করা যায়?

ধরুন, আপনার একটি ওয়েবসাইট আছে। অথবা আপনার একটি Youtube Channel বা Mobile Apps আছে।

আপনার সেই ওয়েবসাইট, চ্যানেল বা অ্যাপে প্রতিদিন অনেক ভিজিটর হয়। তারা আপনার কাছ থেকে এক ধরনের সেবা পাচ্ছে।

সেই সেবার বিনিময়ে আপনি টাকা আয় করতে চাচ্ছেন।

গুগল আপনাকে সেই ব্যবস্থা করে দিয়েছে। আপনি আপনার ওয়েবসাইট, চ্যানেল বা অ্যাপে গুগলের অ্যাড বা বিজ্ঞাপণ দেখিয়ে তখন টাকা আয় করতে পারবেন।

কারণ এই এড বা বিজ্ঞাপণ দেখানোর জন্য গুগল আপনাকে টাকা দিবে। এটি দিবে Google Adsense এর মাধ্যমে। এর জন্য আপনাকে গুগল এডসেন্সে Apply করতে হবে।

গুগল আপনার অ্যাপ্লাই Approve করে দিলে আপনি তখন আপনার ওয়েবসাইট, ভিডিও বা অ্যাপে এড দেখিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন।

এডসেন্স বা গুগলের বিজ্ঞাপণ দেখানোর Approval পাওয়ার জন্য আপনাকে অবশ্যই তাদের Program policies মেনে চলতে হবে।

গুগল অ্যাডসেন্স থেকে আয়

How to Make Money with Google AdSense?

 

এখন আপনার প্রশ্ন হল এতে গুগলের কি লাভ ? এখানে গুগলের লাভ আপনার থেকেও বেশি।

কারণ তারা আপনার সার্ভিসে যে এড দিবে। সেই এডের প্রতিষ্ঠান থেকে টাকা আগেই সংগ্রহ করেছে। সেই প্রতিষ্ঠানের টাকা থেকেই আপনাকে টাকা দিবেন।

আপনার প্রশ্ন হতে পারে। এখানে সেই প্রতিষ্ঠানের লাভ কি? সেই প্রতিষ্ঠানের লাভ হল আপনার ওয়েবসাইট, ভিডিও বা অ্যাপে মাধ্যমে তাদের পণ্যের প্রচারণা হচ্ছে।

গুগল এডসেন্স থেকে আয় করার উপায়

যে সকল উপায়ে খুব সহজেই গুগল এডসেন্স মাধ্যমে আয় করা যায়। দেখুন-

১. ব্লগ ওয়েবসাইটের মাধ্যমে

২. Youtube এর মাধ্যমে

৩. মোবাইল অ্যাপ ও গেমের মাধ্যমে

১) ব্লগ বা লেখালেখির ওয়েবসাইটের মাধ্যমে

এই প্রক্রিয়ায় প্রথমে আপনাকে একটি ব্লগ ওয়েবসাইট খুলতে হবে। ওয়েবসাইটটি ওয়ার্ডপ্রেস বা ব্লগার এ হলে খুব ভাল হয়।

এর জন্য আপনাকে প্রথমে WordPress বা Blogger এ ওয়েবসাইট খোলা শিখতে হবে।

এরপর আপনাকে পর্যাপ্ত পরিমাণ ব্লগ বা আর্টিকেল লিখতে হবে।

তবে মনে রাখতে হবে, ব্লগ গুলিতে যেন পর্যাপ্ত পরিমাণ শব্দ (words) থাকে।

আর ব্লগগুলি যেন ইউনিক হয়। অর্থাৎ এগুলি যেন কপি কন্টেন্ট না হয়।

আপনার ব্লগে বা লেখায় প্রতিদিন যেন অনেক ভিজিটর হয়। সেদিকেও নজর দিতে হবে।

কারণ আপনার ওয়েবসাইটের ভিজিটরের উপর আপনার আয় নির্ভর করছে।

আপনার একটি ওয়েবসাইট হল। অনেকগুলি ব্লগ হল। ব্লগে অনেক অনেক ভিজিটর আসা শুরু হল। এবার আপনার গুগল এডসেন্স লাগানোর পালা। এর জন্য প্রথমে আপনাকে গুগল অ্যাডসেন্সে Apply করতে হবে।

ব্লগ ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্সে অ্যাপ্লাই করার নিয়ম-

Blog বা আর্টিকেল ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্স এ আবেদনের নিয়ম দেখে নিন-

১. সাইন ইন করাঃ অ্যাপ্লাই করার জন্য এই লিংকে ক্লিক করতে হবে। এখান থেকে আপনাকে একটি গুগল একাউন্টের (Google Account) এর মাধ্যমে সাইন ইন করতে হবে।

২. সাইট যুক্ত করাঃ গুগল এডসেন্স ড্যাশবোর্ড থেকে Your site এ website এর Domain name দিতে হবে। এরপর Country সিলেক্ট করে দিতে হবে। তারপর Terms and conditions এ টিক দিয়ে Start using adsense বাটনে ক্লিক করতে হবে।

৩. আপনার তথ্য দেওয়াঃ

 

Enter information বাটনে ক্লিক করে Account type, Address, Phone number দিতে হবে।

৪. ভেরিফিকেশন কোড সেট করাঃ

Lets go বাটনে ক্লিক করলে আপনাকে একটি কোড দিবে। এই কোডটি কপি করে আপনার ওয়েবসাইটের Header এ পেস্ট করতে হবে।

এরপর Verify বাটনে ক্লিক করতে হবে। তারপর Request review বাটনে ক্লিক করতে হবে।

তারপর আপনাকে কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে। কিছুদিন পর আপনার এডসেন্স অ্যাপ্রুভ হয়ে যাবে।

তবে Google Adsense Approval সম্পূর্ণ গুগলের উপর নির্ভর করে। আপনি যদি সঠিকভাবে গুগলের Adsense program Policies অনুযায়ী সবকিছু করে থাকেন, তবে আপনি Approval পাবেন।

৪. Ads.txt সেট করাঃ আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাপ্রুভ হয়ে গেলে আপনার ওয়েবসাইটে Ads.txt সেট করতে হবে।

Ads.txt একটি কোড। এটি গুগল এডসেন্স ড্যাশবোর্ড থেকে সংগ্রহ করতে হবে।

কোডটি আপনার ওয়েবসাইটের root এ সেট করতে হবে। যা হবে এরকম- Domain/ads.txt।

Blog ওয়েবসাইটে যেভাবে গুগল এডসেন্স এর অ্যাড লাগাতে হয়-

গুগল এডসেন্স এর অ্যাড ২ ভাবে লাগানো যায়। একটি কোডের মাধ্যমে। আর একটি হল গুগল কর্তৃক অটো অ্যাড।

অ্যাড কোডের মাধ্যমেঃ এরজন্য এডসেন্সের ড্যাশবোর্ড থেকে Ads বাটনে ক্লিক করতে হবে। এরপর অ্যাড কোড তৈরি করতে হবে।

এই অ্যাড কোডগুলি আপনি আপনার ওয়েবসাইটের যেকোন জায়গায় দিতে পারবেন। অর্থাৎ আপনি যেখানে যেখানে অ্যাড দেখাতে চান, সেখানে অ্যাড দিতে পারবেন।

এর জন্য By ad unit থেকে Display ads, In-feed ads, In-article ads, Multiplex ads ইত্যাদি বিভিন্ন টাইপের Ads এর Ad code তৈরি করে ওয়েবসাইটের বিভিন্ন জারগায় সেই কোড বসিয়ে এড দেখিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

Auto Ad এর মাধ্যমেঃ এছাড়া আপনি চাইলে Auto এডও সেট করতে পারেন।

Auto এড এর মাধ্যমে গুগল তার ইচ্ছামত এড আপনার ওয়েবসাইট অনুযায়ী অটোমেটিক প্লেস করবে।

auto ads format

অটো এড লাগাতে অবশ্যই আপনার এডসেন্সের Verification code ওয়েবসাইটের <Head> tags এর ভেতরে সেট করতে হবে।

অটোমেটিক ভাবে এড দেখানোর বিভিন্ন Formats আছে।

যেমনঃ Anchor ads, Side rail ads, Vignette ads, Banner Ads, Multiplex ads, Related search.

এরপর আপনার ওয়েবসাইটে যত বেশি ভিজিটর হবে। তত আপনার অ্যাড মানুষ বেশি দেখবে ও অ্যাডে ক্লিক করবে।

আর তখন আপনি টাকা আয় করতে পারবেন। যত বেশি অ্যাডে ক্লিক, তত বেশি টাকা আয়।

আপনার এই আয় করা টাকা আপনি আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে তুলতে পারবেন।

এভাবে খুব সহজে একটি ব্লগ ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে গুগল এডসেন্স থেকে আয় করতে পারবেন।

গুগল অ্যাডসেন্স এর টাকা যেভাবে হাতে পাব-

আপনার একাউন্টে ১০ ডলার জমা হতে হবে। এরপর আপনাকে আপনার ঠিকানা ড্যাশবোর্ড থেকে সেট করতে হবে।

গুগল আপনার ঠিকানায় একটি চিঠি দিবে। সেখানে একটি পিন কোড থাকবে। চিঠিটি আপনার ঠিকানায় এসে পৌছালে অ্যাডসেন্সের ড্যাশবোর্ড থেকে আপনাকে পিন কোডটি Verify করতে হবে।

এরপর আপনার ব্যাংক একাউন্ট সেট করতে হবে। আপনার একাউন্টে ১০০ ডলার জমা হলে, গুগল ২১ থকে ২৬ তারিখের মধ্যে আপনার টাকা ব্যাংক একাউন্টে পাঠিয়ে দিবে। যা আপনি টাকা হিসেবে পাবেন।

২) Youtube এর মাধ্যমে

আমরা সকলেই ইউটিউবের সাথে পরিচিত। অনেকেই আছেন সারাদিনে ৪-৫ ঘন্টা ইউটিউব না হলে চলে না। ইউটিউব হল একটি ভিডিও প্ল্যাটফর্ম। এখানে আমরা সবাই ভিডিও দেখে বিনোদিত হই।

ঠিক তেমনি এখানে ভিডিও আপলোড করে টাকা ইনকাম করা যায়।

আর ইউটিউব থেকে টাকা আয় করা অনেক সহজ। আপনি চাইলেই আপনার হাতে থাকা মোবাইলে ভিডিও বানিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন।

যেভাবে ইউটিউবে ভিডিও দিতে হয়-

প্রথমে Youtube.com এ ঢুকতে হবে। আপনি মোবাইলের ইউটিউব অ্যাপ থেকেও ঢুকতে পারেন। এরপর জিমেইল (Gmail) এর মাধ্যমে লগইন করতে হবে।

তারপর একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলতে হবে। চ্যানেল খোলা হয়ে গেলে ইউটিউবে আপনার পছন্দের ভিডিও দিতে থাকতে হবে।

আপনি যেকোন ধরনের ভিডিও বানিয়ে এখানে দিতে পারবেন। তবে মনে রাখতে হবে। অন্যের ভিডিও দেওয়া যাবে না।

যেভাবে ইউটিউব চ্যানেলে গুগল এডসেন্স এর জন্য অ্যাপ্লাই করতে হয়-

দেখে নিন সঠিক উপায়ে কিভাবে ইউটিউব চ্যানেলে অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্লাই এর উপায়-

১. ইউটিউবের চ্যানেলের Dashboard এ যেতে হবে। এখান থেকে customize channel বাটনে ক্লিক করতে হবে।

২. এখান থেকে Earn বাটনে ক্লিক করতে হবে। আপনার যখন চ্যানেলে ১০০০ subscriber, গত ১ বছরে ৪০০০ ঘন্টা watch hours অথবা ৯০ দিনে ১০ মিলিয়ন shorts views হবে, তখন আপনি Youtube Partner Program এর জন্য eligible হবেন।

৩. আপনি eligible হলে নিচে একটি Apply বাটিন দেখাবে।

৪. Apply করার সময় আপনার Google Adsense এর সাথে Youtube Channel লিংক করতে হবে।

৫. আপনার যদি এডসেন্স একাউন্ট না থাকে, তাহলে গুগল একাউন্টের (Google Account) মাধ্যমে একটি এডসেন্স (Google Adsense) একাউন্ট খুলতে হবে।

৬. Website অপশনে আপনার ইউটিউব চ্যানেলের URL দিতে হবে।

৬. নতুন অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে Address ও pin ভেরিফিকেশন করতে হবে।

এরপর ২৪ ঘন্টা থেকে কয়েকদিনের মধ্যে আপনার ইউটিউব চ্যানেল অ্যাপ্রুভ হয়ে যাবে।

তবে এখানে Approval যে সবাই পায়, তা কিন্তু নয়। আপনাকে অবশ্যই YouTube channel monetization policies মেনে চলতে হবে। তবেই Approval পাবেন।

ইউটিউব ভিডিওতে অ্যাড কোড বসানোর নিয়ম-

আপনি ভিডিওতে ম্যানুয়ালি ও অটোমেটিক দুইভাবে অ্যাড বসিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন।

আপনার অ্যাডে যত বেশি ভিউ ও ক্লিক হবে। আপনি তত বেশি টাকা আয় করতে পারবেন।

এর জন্য আপনার ভিডিও এর কোয়ালিটি অনেক ভাল হতে হবে। যাতে করে আপনার ভিডিওতে অনেক বেশি ভিউ হয়।

আর আপনার আয়কৃত টাকা প্রতি মাসে গুগল আপনার ব্যাংক একাউন্টে পাঠিয়ে দিবে।

আরো পড়ুনঃ

৩) অ্যাপ বা গেমের এর মাধ্যমে

আপনি যদি একজন App Developer হয়ে থাকেন। সেক্ষত্রে আপনি Android বা Ios অ্যাপ বা গেম বানিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন।

কারণ এখানেও আপনি গুগল এডসেন্স এর অ্যাড বসাতে পারবেন। এর জন্য সবার প্রথমে আপনাকে অ্যান্ড্রয়েড বা আইওএস অ্যাপ বা গেম বানাতে হবে।

এরপর অ্যাডসেন্স এর জন্য Google AdMob এ অ্যাপ্লাই করতে হবে।

Google AdMob এ অ্যাপ্লাই এর উপায়-

দেখে নিন যেকোন অ্যাপ বা গেমে Admob অ্যাপ্লাই করার উপায়-

১. প্রথমে এই লিংকে ক্লিক করতে হবে। এরপর Get start বাটনে ক্লিক করতে হবে। Google Account এর মাধ্যমে sign in করতে হবে।

২. Country এবং Terms দিয়ে Start using Admob বাটনে ক্লিক করতে হবে।

৩. এরপর Continue to Admob বাটনে ক্লিক করতে হবে। এরপর Get start বাটনে ক্লিক করতে হবে।

৪. Android অথবা Ios সিলেক্ট করে Continue বাটনে ক্লিক করতে হবে।

৫. App name দিয়ে দিতে হবে। এরপর Add App বাটনে ক্লিক করতে হবে।

৬. Admob এর Dashboard থেকে payment information দিতে হবে। এরপর Apps বাটনে ক্লিক করে Ad unit তৈরি করতে হবে।

আপনার অ্যাপ বা গেমে এই কোডগুলি বসিয়ে অ্যাড দেখাতে পারবেন।

আপনার একাউন্টে ১০ ডলার হয়ে গেলে গুগল আপনাকে চিঠি পাঠাবে।

এরপর আপনাকে আপনার Address ও pin ভেরিফিকেশন করতে হবে। আপনি আপনার ব্যাংক একাউন্টে আপনার আয়কৃত টাকা নিতে পারবেন।

FAQ,

১. গুগল এডসেন্স থেকে মাসে কত টাকা আয় করা সম্ভব?

Google Adsense থেকে প্রতি মাসে ১ লাখ থেকে ৫ লাখ টাকা অনায়েসেই আয় করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে ধৈর্য্য ধরতে হবে ও পরিশ্রম করতে হবে।

প্রথম দিকে আয় কম হলেও হতাশ হবেন না। আপনার আয় ধীরে ধীরে বাড়তেই থাকবে।

২. এডসেন্স থেকে টাকা তোলার পদ্ধতি কি?

গুগল এডসেন্স একাউন্টে আপনার ব্যাংক একাউন্ট যুক্ত করতে হবে। প্রতিমাসে আপনার আয়কৃত টাকা সয়ংক্রিয়ভাবে আপনার ব্যাংক একাউন্টে যোগ হয়ে যাবে।

৩. অ্যাডসেন্স প্রতি ১০০০ ভিউতে কত টাকা দেয়?

এটা নির্ভর করে আপনার কন্টেন্টের ধরণ, ক্যাটাগরি, দেশ ও ক্লিকের উপর। আপনি প্রতি ১০০০ ভিউতে ১ ডলার পেতে পারেন। আবার ১০ ডলারও পেতে পারেন।

উপসংহার

গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইট, ভিডিও ও অ্যাপে দেশ বিদেশে এড দেখাতে পারবেন।

আর এই এড দেখিয়ে অনেক টাকা আয় করতে পারবেন। আপনার কাছে এই প্রক্রিয়া কঠিন মনে হলে আগে ভালভাবে এটা নিয়ে গবেষণা করুন।

তারপর ঠিক করুন আপনি কোন অপশন দিয়ে গুগল এডসেন্স থেকে আয় করবেন। ওয়েবসাইট, অ্যাপ, গেম নাকি ভিডিও। তবে যেটাই করুন না কেন। লেগে থাকুন। আর ভিজিটর আনতে থাকুন। একদিন আপনিও সফল হবে।

পোস্টটি শেয়ার করুন-