বর্তমানে আমাদের এই করুণ অর্থনৈতিক অবস্থায় প্রতিমাসে ২০ হাজার টাকা ইনকাম করুন।

কিভাবে এটা খুব সহজেই করা যায়, তা আমরা এখানে জানতে পারব।

আপনি ঘরে বসেই মাসে ২০ থেকে ৩০ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। আপনি যদি রিয়েল টাকা ইনকাম করতে চান, তাহলে এই ব্লগটি ভালকরে পড়ুন।

আমাদের অর্থনৈতিক অবস্থা এতই খারাপ যে, আমাদের পরিবার চালানোই অনেক কঠিন হয়ে পড়েছে। তার উপর বৈশ্বিক মন্দা যেন মরার উপর খাড়ার ঘা।

তবে আপনি যদি মাসে ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা ইনকাম করার আসল উপায়টি একবার জেনে যান, তাহলে খুব সহজেই ইনকাম করতে পারবেন।

আমাদের সমাজের সবথেকে বড় সমস্যা হল বেকার সমস্যা।

আমরা চাকরি ছাড়া কিছুই বুঝিনা। এই চাকরি ছাড়াও যে কত রকম উপায়ে ইনকাম করা যায়। আমরা তা বুঝিনা বা জানিনা। চাকরি ছাড়াও অনেকে খুব ভাল পরিমাণ ইনকাম করছেন।

তাই আমাদের চাকরির জন্য বসে না থেকে নিজেদের স্বাবলম্বী হতে হবে। এর জন্য আমাদের নিজেদের ইনকামের ব্যবস্থা নিজেদেরকেই কর‍তে হবে।

প্রতিমাসে ২০ হাজার টাকা ইনকাম করার উপায়

বর্তমানে সবকিছু ডিজিটাল হচ্ছে। তাই ইনকামের ক্ষেত্রেও আপনাকে ডিজিটাল হতে হবে।

ইনকাম করার জন্য আপনি যদি আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করেন, তাহলে প্রতিমাসে ২০ হাজার কেন, ৫০ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন, একদম সহজ উপায়ে।

নিচে থেকে দেখে নিন কিভাবে অনলাইনে প্রতিমাসে বিশ থেকে পঁচিশ হাজার টাকা ইনকাম করা যায়।

১. কন্টেন্ট রাইটিং এর মাধ্যমে (Content Writing)

২. Facebook থেকে ইনকাম

৩. ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর মাধ্যমে (Web Development)

৪. এসইও এক্সপার্ট হয়ে (Search Engine Optimization)

৫. Youtube Video বানিয়ে

৬. সোস্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করে (Social Media Marketing)

৭. অনলাইনে বই বিক্রি করে

৮. Photography করে

৯. Freelancing  এর মাধ্যমে

১০. অনলাইনে নিজের পন্য বিক্রি করে (Selling Own Products)

১) মোবাইল দিয়ে কন্টেন্ট লিখে (Content Writing)

আপনার হাতে থাকা মোবাইল দিয়ে আপনি নিশ্চয়ই টাইপ কর‍তে পারেন।

এটি করতে পারলেই আপনি ইনকাম করতে পারবেন।

এভাবে ইনকাম করার জন্য আপনাকে যেকোন বিষয়ের উপর লেখালেখি করার দক্ষতা থাকতে হবে। আর সেটি মোবাইল দিয়ে Article টাইপ করতে হবে।

আপনি টেক, রান্না, জীবনযাপন, স্বাস্থ্য, খেলা, বিনোদন যেকোন বিষয়ে লেখার পারদর্শী হতে পারেন। এরপর আপনাকে Upwork, Fiverr, Freelancer ইত্যাদি ওয়েবসাইটে একাউন্ট খুলতে হবে।

এরপর আপনাকে বায়ারদের জন্য Content বা Article লিখে দিতে হবে। এর জন্য বায়ার আপনাকে টাকা প্রদান করবে৷ আপনি সেই টাকা ব্যাংকের মাধ্যমে, বিকাশে, পেপালে তুলতে পারবেন। আপনি এভাবে অনায়েসেই প্রতিদিন ৬০০ থেকে ৭০০ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। যা মাসে হবে ২০ হাজার টাকা।

২) ফেসবুকের মাধ্যমে

আমরা সকলেই ফেসবুক (Facebook) ব্যবহার করে থাকি। এই ফেসবুকের মাধ্যমে আপনি ঘরে বসে ইনকাম করতে পারবেন।

ফেসবুকে নানা উপায়ে ইনকাম করা যায়। ফেসবুক থেকে ইনকাম করার জন্য আপনাকে সর্বপ্রথম একটি ফেসবুক পেজ খুলতে হবে।

এরপর সেই পেজে একদম সহজ উপায়ে ছোট ছোট ভিডিও আপলোড করতে হবে। এগুলোকে  Reels ভিডিও বলে। এই ভিডিও বানিয়ে আপনার পেজে আপলোড করতে হবে। আর আপনার ভিডিও যত মানুষ দেখবে, তত আপনার ইনকাম হবে।

এভাবে খুব সহজেই আপনি প্রতিমাসে ২০ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনি আপনার হাতে থাকা মোবাইল দিয়েই Reels বানাতে পারবেন।

এছাড়া আপনি ফেসবুকে বড় ভিডিও বানিয়েও মাসে ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

এছাড়া আপনি ফেসবুকের পেজের মাধ্যমে পন্য বিক্রি করেও টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

ফেসবুকে অনেক ভিজিটর থাকায়, আপনার কাস্টমার পেতে সমস্যা হবেনা।

আপনি অনায়েসেই ফেসবুকের এই ইউজারদের কাজে লাগিয়ে এভাবে ইনকাম করতে পারবেন।

৩) ওয়েব ডেভেলপমেন্টের মাধ্যমে (Web Development)

আপনি যদি একজন ভাল ওয়েব ডেভেলপার হতে পারেন তাহলে খুব সহজেই মাসে ২০ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন।

যারা ওয়েবসাইট বানায়, তাদেরকে বলা হয়, ওয়েব ডেভেলপার।

ওয়েব ডেভেলপার হওয়া, আহামরী কোন কঠিন কিছু না।

আপনি একটি ভাল আইটি সেন্টার থেকে কোর্স করে বা ইউটিউব থেকে ভিডিও দেখে শিখতে পারেন।

প্রতিমাসে ২০ হাজার টাকা ইনকাম

How to earn 20 thousand per month?

 

এরপর Upwork, fiverr, People per hour এ কাজ করে মাসে ২০,০০০ থেকে ৩০,০০০ টাকা আয় করতে পারবেন।

ওয়েবসাইটের চাহিদা কোনদিনও শেষ হবেনা। তাই আপনি একজন ভাল ওয়েবডেভেলপার (Web Developer) হয়ে টাকা আয় করতে পারেন।

৪) এসইও এক্সপার্ট হয়ে (Search Engine Optimization)

এসইও (SEO) মানে হল কোন ওয়েবসাইটকে গুগলের সার্চ ইঞ্জিনে র‍্যাংক করানো।

অর্থাৎ একটি ওয়েবসাইটে এর মাধ্যমে ভিজিটর ঢুকানো যায়।

আর একটি ওয়েবসাইটে যত বেশি ভিজিটর হবে।

সেই ওয়েবসাইটের ইনকাম তত বেশি হবে। বিশ্ব বাজারে এই কাজের অনেক বেশি চাহিদা।

আপনি চাইলে একজন এসইও এক্সপার্ট হয়ে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এসইও করে ইনকাম করার নানা মার্কেটপ্লেস আছে। যেমনঃ

আপনি কোন কোচিং সেন্টারের মাধ্যমে কোর্স করে এটি শিখতে পারেন। এছাড়া ইউটিউব দেখেও আপনি এসইও শিখতে পারেন।

৫) ইউটিউব এর মাধ্যমে (Youtube)

আপনি যদি অনেক কম সময়ে মাসে ২০ থেকে ৩০ হাজার টাকা ইনকাম করতে চান। তাহলে ইউটিউবের (Youtube) মাধ্যমে করতে পারেন।

এর জন্য আপনাকে আপনার মোবাইলের ক্যামেরা দিয়ে ভিডিও করতে হবে। আপনি যেকোন বিষয়ের উপর ভিডিও বানাতে পারেন। এরপর সেই ভিডিওগুলি ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড দিতে হবে।

কিভাবে ইউটিউব ভিডিও আপলোড দিতে হয়, তা ইউটিউব থেকে দেখে শিখে নিতে পারেন। আপনার ইউটিউব চ্যানেলে ৪০০০ ঘন্টা ওয়াচটাইম ও ১০০০ সাবস্ক্রাইবার (Subscriber) হলে আপনি এখান থেকে ইনকাম শুরু করে দিতে পারবেন।

আপনি ইউটিউবে Shorts ভিডিও দিয়েও একটা মোটা অংকের টাকা প্রতিমাসে ইনকাম করতে পারবেন।

৬) সোস্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর মাধ্যমে (Social Media Marketing)

সোস্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কাজ হল ফেসবুক, টুইটার, ইন্সটাগ্রাম ইত্যাদি সোস্যাল প্লাটফর্মে পেজে পোস্ট করা, টাইটেল লিখা ইত্যাদি।

এছাড়া পোস্ট বুস্টিং করে দেওয়া, reels বানিয়ে দেওয়া ইত্যাদি করা।

এই কাজগুলি অনেক সহজ হলেও, কাজগুলি করে অনেক টাকা ইনকাম করা যায়।

Fiverr, Upwork, Freelancer ইত্যাদি মার্কেটপ্লেসে সোস্যাল মিডিয়া মার্কেটিং ও সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজার এর অনেক কাজ রয়েছে। আপনি এই সহজ কাজটি করে বিশ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন প্রতিমাসে।

৭) অনালাইনে বই বিক্রি করে

আপনি যদি একজন ভাল লেখক হয়ে থাকেন। তাহলে বই লিখে তা অনলাইনে বিক্রি করতে পারবেন।

এই রকম অনেক প্ল্যাটফর্ম আছে। যেখানে বই লিখে ইনকাম করা যায়।

যেমন: amazon, google books, রকমারি। এই সমস্ত জায়গায় আপনাকে বই লিখে আপলোড দিতে হবে।

এরপর কেউ আপনার বই এর হার্ড কপি ও সফট কপি কিনলে আপনার একাউন্টে টাকা জমা হতে থাকবে।

এভাবে আপনি প্রতিমাসে ভালো পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

৮) ফটোগ্রাফি করে (Photography)

আমরা কারণে ও অকারণে নিজের মোবাইল দিয়ে অনেক ছবি তুলে থাকি।

কিন্তু আমরা জানিনা যে, আমাদের এই তোলা ছবি দিয়েও ইনকাম করা সম্ভব।

এর জন্য আমাদের প্রথমে যেকোন ছবি মোবাইল দিয়ে তুলতে হবে।

এরপর istock, gettyimage, pond5 ইত্যাদি মার্কেটে আমাদের তোলা ছবি আপলোড দিতে হবে। এরপর সেই মার্কেটপ্লেসগুলিত থেকে ছবি কিনলেই আমাদের একাউন্টে টাকা জমা হবে। এরজন্য আমাদের অনেক বেশি বেশি ছবি আপলোড দিতে হবে।

দেখা যাবে যে, কয়েক মাস পর থেকেই মাসে ২০, ০০০ টাকা ইনকাম শুরু হবে।

রিলেটেডঃ অনলাইনে ছবি বিক্রি করে আয় করার সহজ উপায়

৯) ফ্রিল্যান্সিং করে (Freelancing)

বর্তমানে অনলাইন আর্নিং এর ক্ষেত্রে সবচেয়ে জনপ্রিয় হল ফ্রিল্যান্সিং।

এখানে নানা স্কিলের কাজ করে ইনকাম করা যায়। যেমন- ডাটা এন্ট্রি, টাইপিং, ডিজিটাল মার্কেটিং, এসইও, ভিডিও এডিটিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব ডিজাইন ইত্যাদি।

এই কাজগুলি করে আয় করার জন্য প্রথমে কাজগুলি শিখতে হবে।

শেখার জন্য কোন কোচিং সেন্টার থেকে শেখা যেতে পারে।

অথবা ইউটিউব দেখেও শিখতে পারেন। এরপর Flexjobs, Upwork, Fiverr ইত্যাদি মার্কেটপ্লেসে কাজ করে প্রতিমাসে অনায়েসেই বিশ থেকে ত্রিশ হাজার টাকা ইনকাম করা সম্ভব।

১০) অনলাইনে নিজের পন্য বিক্রি করে (Sell own products)

আপনি আপনার যেকোন পন্য কম দামে কিনে তা অনলাইনে বিক্রি করে ইনকাম করতে পারেন।

আপনি এটা ফেসবুক পেজে, দারাজ ইত্যাদির মাধ্যেমে বিক্রি করতে পারেন। এর জন্য আপনাকে কোন ইলেক্ট্রিক পন্য বা কাপড়ের পন্য বা যেকোন পন্য পাইকারী দামে কিনতে হবে।

রপর আপনার লাভ হবে এমন দাম দিয়ে সেই পন্য ফেসবুক পেজ ও দারাজের মাধ্যমে বিক্রি করতে হবে।

এভাবে প্রথম দিকে ইনকাম অনেক কম হলেও ২ থেকে ৩ মাস পর আপনি মাসে অনায়েসেই বিশ থেকে ত্রিশ হাজার বা তার বেশি টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

উপসংহার

আপনি অযথা চাকরির পেছনে না ছুটে যদি সঠিক উপায়ে সঠিক কাজ করেন।

তাহলে ঘরে বসে অনলাইন থেকেই টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আর প্রত্যেক মাসে ২০ হাজার টাকা ইনকাম করা অনেক কঠিন মনে হলেও বাস্তবে তেমন কঠিন না।

অনেকে প্রতিদিন ৪০০ ৫০০ টাকা ইনকাম করছেন। আপনিও পারবেন। এর জন্য আপনাকে লেগে থাকতে হিবে। ধৈর্য্য ধরতে হবে। প্রাকটিস করতে হবে।

তাহলে আপনিও ২০ থেকে ৫০ হাজার টাকা অনায়েসেই আয় করতে পারবেন।

পোস্টটি শেয়ার করুন-