কোষ্ঠকাঠিন্য মারাত্মক একটি সমস্যা। যারা এই সমস্যায় ভুগে থাকেন, তারাই জানেন এর কত জ্বালা। এক গবেষনায় জানা গেছে পৃথিবীর প্রায় ২০% মানুষ এই সমস্যায় ভুগে থাকেন। অনিয়িমতান্ত্রিক জীবনযাপন, অনিয়মতান্ত্রিক খাবার খাওয়া, অলসতা, পানি কম পান করা, নিয়মিত শরীরচর্চা না করা সহ নানা কারণে এই কোষ্ঠকাঠিন্য হয়ে থাকে। দেখে নেই কিভাবে এই প্রাকৃতিকভাবে এই কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি পাওয়া যায়ঃ

Advertisement

পর্যাপ্ত পানি পান করুনঃ

শরীরের পানির অভাব হলে শরীরের সব অঙ্গ প্রতঙ্গের কার্যকলাপই বাধাগ্রস্থ হয়। পর্যাপ্ত পানি পানের ফলে হজম প্রক্রিয়া খুব তাড়াতাড়ি হয়। তাই কোষ্ঠকাঠিন্য রোধে খাবার খাওয়ার পর পর্যাপ্ত পানি পান করুন। এছাড়া দিনে ১০-১২ গ্লাস করে পানি খান।

ফাইবার জাতীয় খাবার খাওয়াঃ

ফাইবার জাতীয় খাবার হজম প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করে। এছাড়া এটি মলকে অনেক পিচ্ছিল করে তোলে, যার ফলে এটি সহজেই বেরিয়ে যেতে পারে। দুই ধরনের ফাইবার খাওয়া যেতে পারে। দ্রবনীয় ও অদ্রবনীয় ফাইবার। অদ্রবনীয় ফাইবার সম্মৃদ্ধ খাবার হল
শাকসবজি, গমের তুষ, ওটস্‌, ভুট্টার খই ইত্যাদি। আর দ্রবনীয় ফাইবারের মধ্যে রয়েছে বার্লি, বাদাম, বীজ, মসুর, মটরশুটি,ফলমূল ইত্যাদি।

নিয়িমিত ব্যায়াম করাঃ

নিয়মিত ব্যায়ামের ফলে কোষ্ঠকাঠিন্যের সম্ভাবনা একেবারেই কমে যায়। এরজন্য প্রতিদিন ৩০ মিনিট হাঁটুন। এছাড়া সাতার কাটা, সাইক্লিং না জগিং করা যেতে পারে।

উচ্চ ফ্যাটযুক্ত খাবার পরিহার করাঃ

বিভিন্ন দুগ্ধজাত খবার, পনীর, বিভিন্ন প্রক্রিয়াজাত খাবার, মাংস খাওয়া পরিহার করুন অথবা পরিমাণে অনেক কম খান। দরকার হলে সপ্তাহে ১ দিন করে খান।

লেবু পানি খাওয়াঃ

কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি পাতে ১ গ্লাস হালকা গরম পানিতে ১ টি লেবু চিপে নিয়ে এই লেবু পানিটি প্রতিদিন সকালে খান। লেবুতে ভিটামিন সি ও ফাইবার রয়েছে যা কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে আপনাকে অনেকটাই মুক্তি দিবে।

অ্যালোভেরা জুস খাওয়াঃ

অ্যালোভেরার পাতা থেকে ভেতরের সাদা গুলি বের করে জুস বানিয়ে সপ্তাহে ৩ দিন সকালে খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

কফি পান করুনঃ

কফিতে কিছু পরিমাণ দ্রবনীয় ফাইবার রয়েছে। যা কোষ্ঠ্যকাঠিন্য দূর করতে খুবই কার্যকর। কারণ কফি খাওয়ার ফলে আমাদের পাচনতন্ত্রের পেশিগুলি উদ্দিপীত হয়। যার ফলে মল খুব সহজেই বের হতে পারে। তাই প্রতিদিন কফি পান করুন।

প্রোবায়োটিক ও প্রিবায়োটিক যুক্ত খাবার খানঃ

প্রোবায়োটিকযুক্ত খাবার যেমন দই, আর প্রিবায়োটিক যুক্ত খাবার যেমন- রসুন, পেয়াজ, কলা, ছোলা এই খাবার গুলি বেশি করে খান। এতে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়ে যাবে।

Advertisement