বাসের লকারে ১৪ ঘণ্টা বন্দি রেখে বর্বরোচিত উপায়ে দিনাজপুর থেকে সিলেটে ৪৬ ছাগলকে পরিবহনের অভিযোগে মালিককে আটক করেছে পুলিশ।

গাইবান্ধার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

Advertisement

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলা‌দেশ পু‌লিশের এআইজি (মি‌ডিয়া অ্যান্ড পাব‌লিক রি‌লেশন্স) মো. সো‌হেল রানা।

তিনি জানান, দিনাজপুর থেকে সিলেটে ৪৬টি ছাগলকে বাসের লকারে বন্দি করে পরিবহন করা হয়, যেখানে সাধারণত যাত্রীদের পণ্য রাখা হয়। এ নিয়ে একটি জাতীয় দৈনিক সংবাদ প্রকাশ করে। 

ওই সংবাদে উল্লেখ করা হয়, দিনাজপুর থেকে নওশীন পরিবহন নামে একটি যাত্রীবাহী বাসের মালপত্র রাখার লকারে গাদাগাদি করে ৪৬টি ছাগল আটকে সিলেটে নেয়া হয়েছে। বর্বরোচিত উপায়ে লকারের মধ্যে দীর্ঘ সময় ঠাসাঠাসি করে আটকে রেখে পরিবহন করায় অসুস্থ হয়ে পড়ে ছাগলগুলো।

তিনি আরো জানান, বিষয়‌টি দৃষ্টিতে আসার পরপর সংবাদে উল্লিখিত তথ্যানুযায়ী সংবাদটি দিনাজপুর সদর থানার ওসিকে জানিয়ে বিষয়টি তদন্ত শেষে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেয় বাংলা‌দেশ পু‌লি‌শের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং। 

প্রাথমিক তদন্তে দিনাজপুর সদর থানার ওসি নিশ্চিত করেন বাসটি তার এলাকা থেকে ছেড়ে গেছে। কিন্তু বগুড়ার শিবগঞ্জ থানা এলাকায় যাত্রা বিরতির সময় বাসটিতে ছাগলগুলোকে তোলা হয়। এরপর বিষয়টি শিবগঞ্জ থানার ওসি মো. সিরাজুল ইসলামকে জানানো হয়। একই সঙ্গে অপরাধীদেরকে দ্রুত খুঁজে বের করে আইনে আওতায় আনার নির্দেশনা দেয় মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং। 

ওসি শিবগঞ্জ তাৎক্ষণিকভাবে তার একটি টিমকে এ বিষয়ে কার্যক্রম পরিচালনা করতে নিয়োজিত করেন। অভিযুক্তদেরকে গ্রেফতার করতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করেন। অবশেষে ওসি শিবগঞ্জের তৎপরতায় ছাগলের মালিক মো. মোয়াজ্জেম হোসেনকে গাইবান্ধার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে আটক করা হয়। 

মো. সো‌হেল রানা জানান, ছাগলের পরিবহনের সঙ্গে সম্পৃক্ত অন্যদের আইনের আওতায় আনতে তৎপরতা চলমান রয়েছে।

Advertisement