স্মার্টফোন বর্তমান সময়ে যেমন খুব প্রয়োজনীয় একটা জিনিস। ঠিক তেমনি এর নানা ক্ষতিকর দিকও আছে। এই স্মার্টফোন ব্যবহারের কিছু নিয়ম আছে। রাত জেগে স্মার্টফোন ব্যবহার করলে তার শরীর ও মনে বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে। অনেকেই আছে যারা রাত জেগে মোবাইল ব্যবহার করতে অভ্যস্ত। এদের জন্য ভয়ানক ক্ষতির সম্ভাবনা। আছে। অনেকে অনেক ঘুম আসা সত্বেও ঘুম বাদ দিয়ে সাড়ারাত মোবাইলের আলোতে তাকিয়ে থাকেন, এদের পরিনাম আরো ভয়াবহ। রাত জেগে মোবাইল ব্যবহারের ফলে যে সকল ক্ষতি হয় আসুন দেখে নেই-

১। সম্প্রতি দক্ষিণ ক্যারেলিনার ক্লেমসন বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষনায় দেখা গেছে, ‘যারা রাত জেগে মোবাইল টিপাটিপি করে ও মোবাইলের স্ক্রীনের উপর দীর্ঘ সময় তাকিয়ে থাকে, তারা অন্যদের তুলনায় অনেক বদমেজাজী, হয়ে থাকে। তারা ছোট খাট বিষয়ে অল্পতেই রেগে যায়, অন্যদের সাথে খুবই বাজে ব্যবহার করে। শুধু তাই নয় তারা এই পৃথিবীর সবথেকে অসফল ব্যক্তি হয়। তাদের আত্মবিশ্বাস একেবারেই থাকে না। এছাড়া তাদের বিভিন্ন ত্বকের সমস্যা হয়, চোখের নিচে কালো হয়ে যায়। সবচেয়ে ভয়ঙ্কর যে জিনিসটা হয়, তা হল তাদের বিশেষ সময়ে উত্তেজনা একেবারেই কমে যায়।’

২। মোবাইল ব্যবহারে রাত জাগার ফলে ঘুম কম হয়, এতে শরীরের টেস্টোস্টেরন হরমোনের পরিমাণ একেবারেই কমে যায়। এর ফলে মানুষের মধ্যে বৈবাহিক সম্পর্কে ফাটল ধরে।

৩। রাত জেগে মোবাইল ব্যবহারে ঘুমের অনেক ঘাটতির ফলে মানুষ অনেক সময় মানসিক সমস্যায় ভুগে থাকে।

৪। মোবাইলের আলো আমাদের চোখের জন্য খুবই ক্ষতিকর। এটি অনেক সময় ধরে দেখার ফলে চোখে জালাপোড়া, চোখ ফুলে উঠা, চুল চুলকানি সহ অনেক বড় ধরনের সমস্যার সৃষ্টি করে।

৫। সবথেকে ভয়ানক যে সমস্যা হতে পারে তা হল, মোবাইল থেকে যে ইলেকট্রোম্যাগনেটিক রেডিয়েশন ছড়ায় তা থেকে ক্যান্সার পর্যত্ন হতে পারে।

তাই রাতে ১১ টার মধ্যেই ঘুমাতে চলে যাওয়া উচিত। আর ঘুমাতে যাবার অন্তত ১ ঘন্টা আগে মোবাইল ফোন ব্যবহার করা বন্ধ করে ফেলা উচিত।