অনেক বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে লাতিন আমেরিকা অঞ্চলের সেরা ফুটবল প্রতিযোগিতা ‘কোপা আমেরিকা’ মাঠে গড়িয়েছে। উদ্বোধনী ম্যাচে ব্রাজিলের ব্রাসিলিয়ার মানে গারিঞ্জা স্টেডিয়ামে স্বাগতিকদের শুরুটাও হয়েছে দুর্দান্ত জয় দিয়ে। রবিবার (১৩ জুন) রাতে নেইমারের নৈপুন্যে ভেনেজুয়েলাকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে তিতের দল। তিন গোলের একটি করেছেন নেইমার। অন্য দুটির পেছনেও অবদান রয়েছে এই পিএসজি তারকার।

গোল করা আর করানোটাই তো আর ফুটবলের মূল কথা নয়। এদিন জাদুকরি ফুটবলে দর্শকদের চোখে মায়াঞ্জন বুলিয়ে দিয়েছেন নেইমার দা সিল্ভা স্যান্তোস জুনিয়র। নেইমার-জাদুতে বিমোহিত প্রতিপক্ষের কোচ আর খেলোয়াড়রাও।

Advertisement

ঘরের মাঠে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলতে থাকে ব্রাজিল। তাতে গোলের সুযোগ আসে ম্যাচের ৮ম মিনিটেই। ডি-বক্সে নেইমারের দুর্দান্ত এক ক্রসে পা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হন ব্রাজিলের বাকি দুই ফরোয়ার্ড রিচার্লিসন এবং গ্যাব্রিয়েল জেসুস। দুই মিনিট পরে ব্রাজিলের আরেকটি দুর্দান্ত আক্রমণের নেতৃত্বে নেইমার। তাঁর বাড়ানো বলে রিচার্লিসন পা ছোঁয়াতে পারলেও ভেনেজুয়েলার গোলরক্ষককে পরাস্ত করতে পারেননি।

একের পর এক দুর্দান্ত আক্রমণে ভেনেজুয়েলার রক্ষণকে ব্যস্ত রাখে ব্রাজিল। ম্যাচের ১১তম মিনিটে আরও একটি বড় সুযোগ পায় তারা। নেইমারের নেওয়া ছোট কর্নার থেকে বল পেয়ে তা ডি-বক্সে ক্রস করেন রেনান লেদি, সেখানে থাকা এডার মিলিতাও লাফিয়ে উঠে হেড করলেও বল গোলবারের সামান্য উপর দিয়ে বেরিয়ে যায়। ম্যাচের ২০তম মিনিটে আবারও নেইমারের কর্নার থেকে বল বিপদমুক্ত করেন ডেল পিনো কিন্তু বল গিয়ে পড়ে ব্রাজিলের ডিফেন্ডার দানিলোর কাছে। দানিলো বল বুক দিয়ে নিয়ন্ত্রণে এনে ভলিতে শট নেন কিন্তু তা সরাসরি ভেনেজুয়েলের গোলরক্ষকের কাছে গিয়েই ধরা দেয়।

তবে আর বেশি সময় গোলের জন্য অপেক্ষা করতে হয়নি  সেলেসাওদের। ২৩তম মিনিটে নেইমারের নেওয়া আরও একটি কর্নার থেকে বল বিপদমুক্ত করতে ব্যর্থ হয় ভেনেজুয়েলা। আর ডি-বক্সের জটলার ভেতর থেকে নিজেকে ছাড়িয়ে নিয়ে মাটিতে পড়তে পড়তে শট করে বল জালে জড়ান মার্কুইনেস। আর ব্রাজিল লিড নেয় ১-০ গোলের।

লিড নেওয়ার দুই মিনিট পরে লেদির দুর্দান্ত ক্রস আবারও ডি-বক্সে পেয়ে কোনো ভুল না করেই জালে জড়ান রিচার্লিসন। তবে এবার বিধিবাম অফসাইড। দুর্দান্ত গোলটি বাতিল হয়ে যায়। তবে আক্রমণ থামেনি সেলেসাওদের। ৩৮তম মিনিটে রিচার্লিসনের দুর্দান্ত এক শট গোললাইন থেকে ফিরিয়ে দেন ভেনেজুয়েলার ডিফেন্ডার লুইস মার্টিনেজ। শেষ পর্যন্ত প্রথমার্ধে আর কোনো গোল না হওয়ায় ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় ব্রাজিল।

বিরতি থেকে ফিরেও আক্রমণের ধার ধরে রাখে স্বাগতিকরা। আক্রমণের ফলও আসে ম্যাচের সময় এক ঘণ্টা পেরুতেই। ৬২তম মিনিটে দানিলো বল নিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়লে তাকে পেছন থেকে অবৈধভাবে ফাউল করেন চামানা। আর তাতেই সরাসরি পেনাল্টি দেন রেফারি। স্পট কিক থেকে গুটি গুটি পায়ে এগিয়ে গিয়ে ডান দিকে শট করে বল জালে জড়ান নেইমার। আর ব্রাজিল লিড নেয় ২-০ গোলের।

দুই গোলে লিড নিয়েও আক্রমণের ধার এতটুকু কমেনি কোপা আমেরিকার বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের। ৮৯তম মিনিটে নেইমারের দারুণ পাস থেকে ট্যাপ-ইন করে বল জালে জড়ান বদলি হিসেবে মাঠে নামা গ্যাব্রিয়েল বারবোসা। আর তাতেই ৩-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে সেলেসাওরা।

Advertisement