ভাত দেখলেই তার বমি বমি লাগে। তাই জন্মের পর থেকে দীর্ঘ ২১ বছর শুধু সিদ্ধ ডাল, ছোলা, ডিম ও দুধ খেয়ে জীবন পার করছেন শেরপুরের নকলার মাহিদ হাসান লাভলু। তার বাড়ি উপজেলার বানেশ্বরদী ইউনিয়নের বাউসা কবুতরমারী গ্রামে।

লাভলু কবুতরমারী গ্রামের আলম মিয়া ও লাল ভানু দম্পতির সন্তান। তিন ভাইয়ের মধ্যে লাভলু সবার বড়। তিনি শেরপুর সরকারি কলেজে গণিত বিভাগে অনার্স শেষ বর্ষের ছাত্র।

Advertisement

লাভলুর বাবা আলম মিয়া বলেন, ১৯৯৯ সালের ২৫ নভেম্বর জন্ম নেন লাভলু। জন্মের ছয় মাস পর তার মুখে চালের তৈরি নরম খাবার ও ভাত দেওয়া হলে সঙ্গে সঙ্গেই বমি করে ফেলে দিতো। যতবার চালের তৈরি খাবার বা ভাত দেওয়া হতো ততবারই বমি করতো। রোগ মনে করে অনেক চিকিৎসকের কাছে নেয়া হয়। কিন্তু নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে চিকিৎসকরা তার কোনো রোগ শনাক্ত করতে পারেননি।

তিনি বলেন, খাবার হিসেবে লাভলুর মুখে ভাত ছাড়া অন্য কোনো কিছু দিলে সমস্যা হতো না। এরপর প্রায় দুই বছর শুধু মায়ের বুকের দুধ খেয়ে বড় হতে থাকে। মাঝে মধ্যে ভাত খাওয়ানোর চেষ্টা করলেই বমি করে দিতো। তাই তাকে আর ভাত খাওয়ানোর জন্য জোর করা হয়নি। বর্তমানে তার বয়স ২১ বছর হলেও একবারও মুখে ভাত নেয়নি। ভাত ও চালের তৈরি খাবার ছাড়াই চলছে তার জীবন।

তার মা লাল ভানু বলেন, ২১ বছর ধরে লাভলু শুধু সিদ্ধ ডাল, ছোলা, ডিম ও দুধ খেয়ে জীবন ধারণ করছে। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তার খাবারের চাহিদা বাড়তে থাকে। লাভলুর খাবার ও অন্য সন্তানদের পড়ালেখার খরচসহ সংসার চালাতে আমরা এক সময় ভেঙে পড়ি। পরে লেখাপড়ার খরচসহ নিজের অন্যান্য ব্যয় মেটাতে টিউশনি শুরু করে লাভলু। টিউশনির টাকা সংসারেও দিতো। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে টিউশনি কমে যাওয়ায় আপাতত নিজের খরচ চালিয়ে যাচ্ছে ছেলেটি।

লাভলুর প্রতিবেশী কাপড় ব্যবসায়ী হাসানুজ্জামান রাসেল বলেন, ভাতে-মাছে বাঙালি। ভাত বাঙালির প্রধান খাবার। বাঙালিরা যেখানে ভাত খেয়ে বেঁচে থাকে সেখানে জন্মের পর থেকে ২১ বছর পার হলেও এ পর্যন্ত ভাত না খেয়েই জীবনযাপন করছে লাভলু।

লাভলু জানান, তিনি নকলা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক ও চন্দ্রকোনা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন। বর্তমানে শেরপুর সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে গণিত বিভাগে পড়ছেন।

তিনি বলেন, ভাত দেখলেই আমার খারাপ লাগে। বমি বমি ভাব শুরু হয়। তাই সহজলভ্য ছোলা আমার প্রধান খাবার হয়ে গেছে। ছোলা খেয়ে আমার শরীর-স্বাস্থ্য ভালো রয়েছে। কোনো সমস্যা হচ্ছে না।

Advertisement