বিয়ের এক দিন পর শ্বশুর ও শাশুড়িকে বাসে তুলে দিয়ে ফেরার পথে লাশ হলেন এক শিক্ষক। শনিবার (১৭ জুলাই) রাত সাড়ে ৯টার দিকে নাটোর-পাবনা মহাসড়কের বড়াইগ্রামের বনপাড়া বাইপাস মোড়ের তুহিন কাউন্টারের সামনে অজ্ঞাত ট্রাকের চাপায় ঘটনাস্থলেই নিহত হন তিনি।

নিহত ওই শিক্ষকের নাম শহিদুজ্জামান সুমন (৩৮)। সে বাগাতিপাড়ার কাদিরাবাদ ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের সহকারী শিক্ষক (ইংরেজি) ও পটুয়াখালীর বাউফলের উত্তর বনকাজল গ্রামের মৃত আব্দুর ছাত্তার মিয়ার ছেলে।

Advertisement

একই সময় আহত হন শিক্ষক সুমনের মামা শ্বশুর জাকির হোসেন (৪২)। তাকে স্থানীয় হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। নিহত শিক্ষক সুমনের মামা শ্বশুর জাকির হোসেন জানান, শুক্রবার রাতে কাদিরাবাদ ক্যান্টনমেন্ট সংলগ্ন নিজ বাসায় বিয়ে কার্য সম্পাদন করে শিক্ষক সুমন। তার স্ত্রীর নাম লামিয়া জেবিন। বাড়ি বাউফলের দশমিনা এলাকায়।

শনিবার রাতে শ্বশুর-শাশুড়িকে বরিশালগামী তুহিন পরিবহনে তুলে দিয়ে বাসার দিকে ফিরছিলেন। কাউন্টার থেকে সড়ক উঠে পাশ দিয়ে হাঁটার সময় স্ত্রীর সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলছিলেন সুমন। এ সময় পেছন দিক থেকে কুষ্টিয়াগামী অজ্ঞাত ট্রাক তাদের দুজনকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই সুমনের মৃত্যু হয় ও আহত হন মামা শ্বশুর জাকির হোসেন।

বনপাড়া হাইওয়ে থানার ওসি খন্দকার শফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। অজ্ঞাত ট্রাকটি চিহ্নিত করতে পুলিশ তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে।

Advertisement