গত ইউরোর ফাইনাল খেলেছিল ফ্রান্স-পর্তুগাল। এদেরের ১০৯ মিনিটের গোলে ফরাসিদের বুক ভেঙে প্রথমবার শিরোপা স্বাদ পায় পর্তুগিজরা। নিয়তি এবার গ্রুপ পর্বেই মুখোমুখি করিয়েছে দল দুটিকে। পয়েন্ট টেবিলের হিসাব-নিকাশ দেখে ফরাসি ফরোয়ার্ড আন্তোয়ান গ্রিজমানের কাছে আজকের ম্যাচও আরেকটি ফাইনাল বলেই মনে হচ্ছে, ‘এটা ফাইনালের মতোই। আমাদের ১টি পয়েন্ট দরকার, সবচেয়ে ভালো হয় জিতলে। ম্যাচটি অবশ্যই কঠিন তবে আমরা প্রস্তুত।’

দুই ম্যাচ শেষে মৃত্যুকূপ ‘এফ’-এ ফ্রান্সের পয়েন্ট ৪, জার্মানি ও পর্তুগালের ৩ আর হাঙ্গেরির ১। পর্তুগালকে আজ হারালে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হবে ফ্রান্স। হাঙ্গেরিকে হারাতে পারলে ৬ পয়েন্ট নিয়ে জার্মানিও পাবে পরের রাউন্ডের টিকিট। একই সুযোগ আছে হাঙ্গেরির সামনেও। তবে পর্তুগাল হারলে বিদায় অনেকটা নিশ্চিত। কারণ ৩ পয়েন্ট নিয়ে ছয় গ্রুপের মধ্যে সেরা চার তৃতীয় দল হওয়া কঠিন।

Advertisement

গ্রুপ ‘বি’ ও ‘সি’-র খেলা শেষে অঙ্কটা এমন—অন্তত ৪ পয়েন্ট পাবে যে দল, তাদের নকআউট নিশ্চিত। সেই অঙ্কে নিজেদের শেষ গ্রুপ ম্যাচে নামার আগে নকআউটের টিকিট পেয়ে গেছে ফ্রান্স, ইংল্যান্ড, চেক প্রজাতন্ত্র, সুইডেন ও সুইজারল্যান্ড। পর্তুগালের কাজটা তাই আরো কঠিন। নকআউট নিশ্চিত করতে অন্তত ১ পয়েন্ট দরকার। পরিসংখ্যান অবশ্য পিছিয়ে রাখছে পর্তুগালকে। মুখোমুখি ২৭ ম্যাচে ফ্রান্সের জয় ১৯টি, পর্তুগাল জিতেছে ছয় ম্যাচ, ড্র দুটি। দলের সেরা তারকা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোরও গোল নেই ফরাসিদের বিপক্ষে। এর পরও আশাবাদী কোচ ফার্নান্দো সান্তোস, ‘ফ্রান্সের বিপক্ষে ম্যাচটি খুব গুরুত্বপূর্ণ। জার্মানির সঙ্গে ৪-২ গোলে হারের ম্যাচের ভিডিও ফুটেজ দেখছি আমরা। ভুলগুলো শুধরে ভালো খেলতে হবে সবাইকে।’

গ্রুপ ‘ই’-তে চার দলের কারো নকআউট নিশ্চিত নয় এখনো। স্পেন, সুইডেন, স্লোভাকিয়া ও পোল্যান্ডের সমান সুযোগ পরের রাউন্ডে ওঠার কিংবা ছিটকে পড়ার! গ্রুপের সবচেয়ে ফেভারিট দল স্পেন দুই ড্র থেকে ২ পয়েন্ট নিয়ে আছে তিন নম্বরে। পরের রাউন্ডের জন্য আজ তাই স্লোভাকিয়াকে হারাতেই হবে তাদের। তেমনি সুইডেনকে হারালে রবার্ত লেভানদোস্কির পোল্যান্ডও পাবে নকআউটের টিকিট।

Advertisement