টানা তিন বছরের সম্পর্ক। হঠাৎ করেই প্রেমিকাকে না জানিয়ে অন্য মেয়েকে বিয়ে করেন প্রেমিক। খবর পেয়ে প্রেমিকের বাড়িতে ছুটে যান তরুণী। প্রেমিকের সঙ্গে একটু দেখা করতে অনেক অনুনয়-বিনয় করলেও তাকে গেটের ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। তাই গেটের বাইরে দাঁড়িয়ে আহাজারি করতে থাকেন ওই নারী।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মধ্যপ্রদেশের হোশঙ্গাবাদে। এ ঘটনার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে নেটমাধ্যমে।

Advertisement

আনন্দবাজার জানিয়েছে, হোশঙ্গাবাদের কোঠীবাজারের কামাখ্যা গার্ডেনে সম্প্রতি একটি বিয়ের আয়োজন করা হয়। হঠাৎ সেখানে এক তরুণী হাজির হন। ‘বাবু’, ‘বাবু’ বলে কাতর স্বরে কাউকে ডাকতে শুরু করেন তিনি। 

মূল ফটক টপকে ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করেন। কিন্তু কয়েকজন লোক তাকে ঠেলে বাইরে বের করে মূল ফটকটি ভেতর থেকে বন্ধ করে দেন।

এর পর লোহার গেট ধরে ঝাঁকাতে থাকেন ওই তরুণী। কাতর স্বরে বলতে থাকেন— ‘একবার আমার বাবুকে ডেকে দিন। একটিবারের জন্য ডেকে দিন। আমি শুধু একবার কথা বলতে চাই।’ 

হাত ধরে টেনেহিঁচড়ে বেশ কয়েকবার তাকে সরানোর চেষ্টা করেন অনেকে। কিন্তু নাছোড়বান্দা তরুণী জানিয়ে দেন— ‘বাবু’র সঙ্গে দেখা না করে একচুলও নড়বেন না তিনি।

একপর্যায়ে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। পরে পুলিশই এসে ওই তরুণীকে সরিয়ে নিয়ে যায়। 

পুলিশকে ওই তরুণী জানান, প্রেমিক অন্য কাউকে বিয়ে করছেন, তাতে আপত্তি নেই তার। কিন্তু সেটি তাকে জানানো উচিত ছিল। এতদিনের সম্পর্ক সত্ত্বেও কেন তার সঙ্গে এমন আচরণ করা হলো, তিনি শুধু তার উত্তর চান।

হোশঙ্গাবাদ কোতোয়ালি থানার এসআই শ্রদ্ধা রাজপুত ওই তরুণীর বয়ান শোনেন। তাকে আইনি পদক্ষেপ করার পরামর্শও দেন। কিন্তু ওই তরুণী সাফ জানিয়ে দেন— প্রেমিককে থানা পুলিশের চক্করে ফাঁসাতে চান না তিনি। তার পর নিজে থেকেই বাড়ি ফিরে যান।

Advertisement