বিয়ে করতে যাচ্ছেন প্রেমিক। বরসাজ সেজে যাত্রাও করবেন কনে পক্ষের বাড়ি। ঠিক তখনই ঘটল বিপত্তি। বাড়ির সামনে এসে হাজির প্রেমিকা। তার এক হাতে বিষ। অন্যহাতে কাফনের কাপড়। এসেই বিয়ের দাবিতে শুরু করে দেন অনশন। মুখে শ্লোগান ‘স্বামী চাই, স্বামী চাই’। অবস্থা বেগতিক দেখে বরের পোশাকেই দৌড়ে পালানেন প্রেমিক।

গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঢাকার ধামরাই উপজেলার সুয়াপুর ইউনিয়নের ঈশাননগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত প্রেমিক সুয়াপুর ইউনিয়নের ঈশাননগর এলাকা মো. আব্দুল খালেকের ছেলে মো. দিদার হোসেন। তিনি মানিকগঞ্জ পোড়রা খান বাহাদুর কলেজের ডিগ্রি পরীক্ষার্থী। অনশনরত প্রেমিকাও স্থানীয় একটি মাদরাসার দশম শ্রেণির ছাত্রী।

Advertisement

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ঈশানগর এলাকার বাসিন্দা মো. মোকছেদ আলীর মেয়ের সঙ্গে দিদার হোসেনের প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে। বিয়ের আশ্বাসে দিদার ওই মাদরাসাছাত্রীর সঙ্গে প্রেম করে আসছে। কিন্তু এখন দিদার তাকে বিয়ে না করে উপজেলার সোমভাগ ইউনিয়নের ভালুম এলাকার এক তরুণীকে বিয়ে করতে যাচ্ছেন। গোপন খবরের ভিত্তিতে জানতে পেরে প্রেমিকা একহাতে বিষের বোতল আর অপর হাতে কাফনের কাপড় নিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে এসে হাজির হন। এরপর ওই ছাত্র বিয়ের বরযাত্রীদের সামনেই বিয়ের দাবিতে অনশন শুরু করে সে। সঙ্গে স্লোগান দেয়, ‘দাবি আমার একটাই স্বামী চাই, স্বামী চাই। হয় বিয়ে না হয় বিষপানে আত্মহত্যা হবে।’

অভিযুক্ত দিদারের বাবা আব্দুল খালেক বলেন, ছেলের সঙ্গে ওই মেয়ের প্রেমের কথা জানলে অন্য মেয়ের সঙ্গে বিয়ে ঠিক করতাম না। এই অবস্থায় ভেবে স্থির করতে পারছি না কী করব।

এ বিষয়ে ওই এলাকার ইউপি সদস্য মো. জয়নাল আলী জানান, পরিস্থিতি খুবই জটিল হয়ে গেছে। সমঝোতা করার জন্য আমি চেষ্টা করছি।

Advertisement