বগলের কালো দাগের সমস্যায় কম বেশি সবাই ভোগে। অযত্ন অবহেলাই সাধারনত এই সমস্যা হয়ে থাকে, আবার অনেকের অতিরিক্ত সেভিং বা হেয়ার রিমুভিং ক্রিম ব্যাবহারের ফলেও বগলে ছোপ ছোপ কাল দাগ বা সারা বগল এমনিতে কাল হয়ে যায়।

অনেকে মনে করেন যে, বগলের এই কালো দাগ এক বার হয়ে গেলে তা আর ভাল হওয়া সম্ভব নয়। আসলে ব্যাপারটা তা নয়, মুখের দাগের থেকে বগলের দাগ দূর করা কষ্টকর হলেও তা দূর করা সম্ভব। আপনি যদি মনে করে থাকেন যে, এমন কোন উপায় আছে যার মাধমে আপনি এক নিমিষেই এই বগলের কাল দাগ দূর করতে পারবেন বা রাতারাতি তা ভালো করতে পারবেন, তাহলে আপনি ভুল মনে করছেন। আপনি বগলের কাল দাগ দূর করতে পারবেন কিন্তু তার জন্য কিছু সময় প্রয়োজন।

এই বগলের কাল দাগ দূর করতে যে আপনাকে নামি দামি ব্র্যান্ডের ক্রিম বা জেল ব্যাবহার করতে হবে তা নয় বরং আপনি ঘরে থাকা উপকরন দিয়ে তা দূর করতে পারবেন। আর দেরি না করে নিচে থেকে সেই সব উপকরনের নাম ও তা কিভাবে ব্যাবহার করতে হবে তার পদ্ধতি দেখে নিন।

বেকিং সোডা ও লেবু

বগলের কাল দাগ দূর করতে সব থেকে সহজ ও কার্যকর যে উপকরন তা হল এই লেবু ও বেকিং সোডা। এটি ব্যাবহারের জন্য আপনাকে সবার আগে আপনাকে আপনার বগল ভালো ভাবে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। এরপর এক চামচ বেকিংসোডার সাথে এক চামচ লেবুর রস মিশিয়ে তা ১০ মিনিট বগলে লাগিয়ে রাখতে হবে। এটি লাগিয়ে রাখার সময় আপনার হালকা কুটকুট করতে পারে, এতে ভয় পাবেন না। ১০ মিনিট পর হালকা গরম পানি দিয়ে আপনার বগল ভালো করে পরিষ্কার করে ফেলুন। এই ভাবে সপ্তাহে ২ থেকে ৩ বার করুন তাহলে এক মাসের মধ্যে আপনার বগলের কাল দাগ দূর হয়ে যাবে।

আলুর রস

আপনি যদি আপনার বগলে নিয়মিত আলুর রস ব্যাবহার করেন তাহলে আপনার বগলে কোন দিন কালো দাগ হবে না এমনকি আপনার বগলের কাল দাগ থাকলে তা এক থেকে দুই সপ্তাহের মধ্যে ভাল হয়ে যাবে। এর জন্য আপনাকে আলুর রস পরিষ্কার বগলে লাগিয়ে রাখতে হবে এবং শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। শুকিয়ে যাবার পর তা ভালো করে ধুয়ে ফেলবেন।

মুলতানি মাটি ও শশার রস

সপ্তাহে দুই দিন যদি আপনি মুলতানি মাটি শশার রসের সাথে মিশিয়ে একটা প্যাক বানিয়ে বগলে ব্যাবহার করেন তাহলে আপনার বগলের কাল দাগ দূর হয়ে যাবে। তবে এর জন্য আপনাকে সব সময় টাটকা শশার রস ব্যাবহার করতে হবে, আপনি যদি অনেকদিনের করে রাখা রস ব্যাবহার করেন তাহলে তা খুব একটা কাজ করবে না।