ভাবুন তো, যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক থেকে যুক্তরাজ্যের লন্ডনে যাচ্ছেন মাত্র সাড়ে তিন ঘণ্টায়! কিংবা মার্কিন শহর সান ফ্রান্সিসকো থেকে জাপানের রাজধানী টোকিওতে পৌঁছলেন মাত্র ছয় ঘণ্টায়। এমন স্বপ্নই বাস্তবে রূপ দিতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের ইউনাইটেড এয়ারলাইনস। প্রতিষ্ঠানটি উচ্চগতির ১৫টি সুপারসনিক উড়োজাহাজ কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ জন্য তারা মার্কিন আকাশযান নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান বুম সুপারসনিকের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে।

সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ২০২৯ সাল থেকে এই উড়োজাহাজে যাত্রী পরিবহন করতে পারবে ইউনাইটেড এয়ারলাইনস। এটি সম্ভব হলে আকাশপথে যাত্রী বহনে কনকর্ডের মতো উচ্চগতির সুপারসনিক ফিরে আসতে পারে। সত্তরের দশকে প্রথম ফ্রান্স থেকে আকাশে ওড়ে বাণিজ্যিক সুপারসনিক (শব্দের থেকে দুই গুণ বেশি গতিতে) উড়োজাহাজ কনকর্ড। মূলত এয়ার ফ্রান্স ও ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ এই উড়োজাহাজের ফ্লাইট পরিচালনা করত। কিন্তু অতিরিক্ত ব্যয়ভার ও পরিবেশগত বিধি-নিষেধের কারণে ২০০৩ সালে এই উড়োজাহাজগুলো তুলে নেওয়া হয়।

Advertisement

বিবিসির এক খবরে বলা হয়েছে, সাধারণ উড়োজাহাজ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৯০০ কিমি বেগে চলে। কিন্তু সুপারসনিক উড়োজাহাজের গতি হবে ঘণ্টায় ১৮০৫ কিমি। অবশ্য কনকর্ডের সর্বোচ্চ গতি ছিল আরেকটু বেশি; ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২১৮০ কিমি।

বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়েছে, ইউনাইটেড এয়ারলাইনস ও বুম সুপারসনিক গত বৃহস্পতিবার এক যৌথ বিবৃতিতে বলেছে, ইউনাইটেড এয়ারলাইনসের চাওয়া অনুযায়ী নিরাপত্তা, চলাচল ও টেকসইয়ের শর্তগুলো পূরণ করতে পারলেই একটি বাণিজ্যিক চুক্তির আওতায় ইউনাইটেড এয়ারলাইনস ওভারচার নামের ওই সুপারসনিক উড়োজাহাজগুলো কিনবে। চুক্তি অনুসারে প্রথমে ১৫টি উড়োজাহাজ সরবরাহ করা হবে। এ ছাড়া আরো ৩৫টি উড়োজাহাজ কিনতে পারবে ইউনাইটেড।

Advertisement