নরওয়ের টোটেন শহরে করোনার তৃতীয় ডোজ টিকা নেওয়ার পর গত শনিবার (৫ জুন) এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে তৃতীয় ডোজ নেওয়ার কারণেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে কি না, তা এখনো নিশ্চিত নয়। বিষয়টি নরওয়ের সরকার খতিয়ে দেখছে।

টোটেন পৌরসভার প্রধান চিকিৎসক জেনস মোর্স বলেছেন, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব পাবলিক হেলথের সম্মতি নিয়েই ৭০ বছর বয়সী ওই ব্যক্তিকে তৃতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছিল। প্রথম ডোজ দেওয়ার দুই সপ্তাহ পর ওই ব্যক্তিকে দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছিল। তাঁরা ভেবেছিলেন, ওই ব্যক্তিকে অল্প সময়ের ব্যবধানে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়ায় তা হয়তো কার্যকর হবে না। এ জন্যই তাঁকে তৃতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছিল।

Advertisement

মোর্স বলেন, ওই ব্যক্তির শরীরে অন্য কোনো ধরনের অন্তর্নিহিত রোগ ছিল কি না, যা ভ্যাকসিনের তৃতীয় ডোজ দেওয়ার পর শরীরকে অসহিষ্ণু করে তুলেছে, তা পরীক্ষা-নিরীক্ষা ছাড়া এখনই বলা যাচ্ছে না। বিষয়টি খুব নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ ও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে টোটেন কর্তৃপক্ষ।

সুইডিশ মেডিসিনস এজেন্সির ইউনিট ম্যানেজার স্টেইনার ম্যাডসেন সাংবাদিকদের বলেছেন, তাঁরা ঘটনাটি সম্পর্কে জেনেছেন। তবে তৃতীয় ডোজ দেওয়ার সঙ্গে ওই ব্যক্তির মৃত্যুর কোনো সংযোগ আছে কি না, তা বলার মতো পর্যাপ্ত তথ্য ও ডাটা এই মুহূর্তে তাদের কাছে নেই। তৃতীয় ডোজ মৃত্যুর উচ্চতর ঝুঁকির কারণ হতে পারে বলেও মেডিক্যাল গবেষণার কোনো তথ্য নাই। 

প্রসংগত, বিষয়টি খুবই স্পর্শকাতর হওয়ার কারণে ওই ব্যক্তির নাম-পরিচয় ও টিকার বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করেনি কর্তৃপক্ষ।

Advertisement