বাবা ও ছেলে মিলে এক মাসেরও বেশি সময় ধরে এক তরুণীকে ধর্ষণ করেছে। এমনক এরপর এক ব্যক্তির কাছে ওই তরুণীকে তুলে দেওয়া হয় ৬০ হাজার টাকার বিনিময়ে!

সম্প্রতি ভারতের মধ্যপ্রদেশের ভোপালের রতিবাদ এলাকায় এমন অভি‌যোগ উঠেছে। অভিযুক্ত দুই ব্যক্তির নাম রমেশ (বাবা) এবং রবি (ছেলে)।

Advertisement

পুলিশ জানিয়েছে, চার মাস আগে রবির সঙ্গে ২৭ বছরের ওই তরুণীর আলাপ হয়। তখন ওই তরুণীকে কাজ দেওয়ার নাম করে ওই একটি ভাড়াবাড়িতে নিয়ে যায় র‌বি। সেখানেই তাকে ধর্ষণ করে। ওই ঘরেই নির্যাতিতাকে আটকে রাখা হয়েছিল বলে অভিযোগ। পরে রবির বাবা রমেশও ধর্ষণ করে ওই যুবতীকে।

 নির্যাতিতার বয়ানের ভিত্তিতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্ত বাবা-ছেলের খোঁজে তল্লাশি চালানো হচ্ছে বলেও জানি‌য়ে‌ছে পুলিশ।

ঘটনা এখানেই শেষ নয়। সরমন সমাজপতি নামের ৩৮ বছরের এক ব্যক্তি বিয়ে করতে রাজি হন নির্যাতিতাকে। ৬০ হাজার টাকার বিনিময়ে যুবতীকে সরমনের হাতে তুলে দেয় বাবা-ছেলে। খবর পে‌য়ে প‌ুলিশ ওই তরুণীকে উদ্ধার করে।

Advertisement