চুল পরার সমস্যা আমাদের সবার কম বেশি থেকে থাকে। অনেক সময় আমরা প্রথম দিকে খুব একটা এই চুল পরার বিষয়টা নিয়ে গুরুত্ব দেই না যার ফল স্বরুপ পরবর্তীতে এই সমস্যা এতটা প্রকট হয়ে যায় যে তখন আর কোন কিছু করার কোন অবকাশ থাকে না। আপনার বয়স যত হোক না কেন, যদি আপনি চুল পরার সমস্যায় ভুগে থাকেন তাহলে তা নিয়ে অবহেলা করবেন না। খুব সহজ কিছু নিয়মের মাধ্যমের আপনিও খুব সহজে তা কমিয়ে আনতে পারবেন। 

উপায় ১

ADVERTISEMENT

আপনি যদি চুল পরার সমস্যায় পরেন তাহলে সবার আগে আপনাকে বুঝতে হবে যে কেন আপনার এই সমস্যা হয়েছে। অনেক সময় এমন হয় যে শ্যাম্পু পরিবর্তন কিংবা তেল এর পরিবর্তনের জন্য অনেকে এই সমস্যায় ভুগে থাকেন, যদি এমন হয় যে আপনি যে শ্যাম্পু বা তেল বা চুলে ব্যবহার করা অন্য কোন প্রোডাক্ট যা আপনি নিয়মিত ব্যবহার করে থাকেন তার পরিবর্তে অন্য কিছু ব্যবহার করছেন এবং এরপর আপনি এই চুল পরার সমস্যায় ভুগছেন তাহলে তা এখনই ব্যবহার করা বন্ধ করুন। এবং সেই সাথে আগের ব্যবহার করা প্রোডাক্টগুলো পুনরায় ব্যবহার করা শুরু করুন। কিন্তু এতেও যদি কোন উপকার না পান তাহলে কিছুদিন সব কিছু ব্যবহার করা বন্ধ করে চুলে মেহেদি পাতার সাথে অল্প পরিমানে নিম পাতা মিশিয়ে বেটে ব্যবহার করুন। এক্ষেত্রে সব সময় তাজা পাতা ব্যবহার করবেন, কোন প্যাকেটজাত গুড়া নয়।

উপায় ২

সপ্তাহে কমপক্ষে ২ দিন মাথায় খাটি নারিকেল তেল ব্যবহার করুন। আপনার হয়তো অন্য তেলের কথা মনে হতে পারে কিংবা আপনি নানা জনের কাছে থেকে নানা ধরনের তেলের কথা শুনে থাকতে পারেন কিন্তু চুল কে ভাল রাখার জন্য নারিকেল তেলের কোন বিকল্প নেয়, তবে অবশ্যই তা খাটি হতে হবে। বাজারে থেকে কোল্ড প্রসেসড নারিকেল তেল কিনুন, এই ধরনের নারিকেল তেলে তার পুষ্টি গুন সম্পূর্ণ ভাবে বজায় থাকে।

উপায় ৩

সপ্তাহে একদিন চুলে ডিম ও টক দই মিশিয়ে ব্যবহার করুন। আপনার যদি খুব বেশি ধরনের চুল উঠে থাকে তাহলে টক দইয়ের পরিবর্তে দূর্বা ঘাসের রস ডিমের সাথে মিশিয়ে তা চুলে ২০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। সেই সাথে চুলে সব সময় হারবাল শ্যাম্পু ব্যবহার করুন।