করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে চলমান কঠোর লকডাউনের মধ্যেই চলছিল বাল্যবিয়ের আয়োজন। চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে বিয়ে দেওয়া হচ্ছিল ৩০ বছরের যুবকের সঙ্গে। খবর পেয়ে বিয়ের আসরে হাজির হলেন ইউএনও। বরসহ তিনজনকে পাঠালেন জেলে, চারজনকে করলেন জরিমানা।

শুক্রবার সকালে বগুড়ার কাহালু উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে। কারাদণ্ডপ্রাপ্ত তিনজন হলেন- বর মোমিন মণ্ডল, কাজি আব্দুল গফুর, কনের ফুফা রফিকুল ইসলাম।

Advertisement

ইউএনও মো. মাছুদুর রহমান জানান, চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে বিয়ে দেওয়ার খবর পেয়েই অভিযান চালানো হয়। এরপর বিয়ে ভেঙে দিয়ে কাজী আব্দুল গফুরকে ১০ মাসের কারাদণ্ড, বর মোমিন মণ্ডল ও কনের ফুফা রফিকুল ইসলামকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এছাড়া কনের ফুফু খালেদা বেগমকে চার হাজার টাকা, বরের দুলাভাই জাহাঙ্গীর ও দাদা আনিছুরকে তিন হাজার টাকা করে, বরের চাচা সেকেন্দারকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, বাল্যবিয়ে বন্ধে প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Advertisement