মেজাজ খারাপ হওয়া কিংবা রাগ লাগা খুব স্বাভাবিক বিষয়। কিন্তু এটি মোটেও এমন নয় যে শুধু আপনার প্রচুর রাগ হয় কিংবা মেজাজ খারাপ হয় বলে, এই রকম আমাদের সবার সাথেই সচরাচর হয়ে থাকে। কারও কারও ক্ষেত্রে এই বিষয়তি খুব বেশি প্রকট ভাবে বোঝা যায় আর কারো ক্ষেত্রে তা খুব একটা বোঝা যায় না।

জনপ্রিয় লেখক শিব খেরা তার বই তে লিখেছেন যে, রেগে গেলেন তো হেরে গেলেন। তার লেখা এই বাক্যটি যে এমন এক সত্যি যা এই পৃথিবীর কেউ অস্বীকার করতে পারবে না। আমাদের এই রাগ অনেক সময় আমাদের জীবনে অনেক সময় আমাদের সাফল্য কিংবা সুখ শান্তির পথে বাধা হয়ে দাড়ায়, তাই সব সময় রাগ করে নিজেকে হারতে দেওয়া যাবে না।

  • আপনার যখন খুব বেশি ধরনের রাগ লাগবে তখন উত্তেজিত হবেন না কিংবা কারও সাথে কোন ধরনের কথা বলতে যাবেন না।
  • রাগের সময় নিজেকে যত সম্ভব ঠান্ডা ও শান্ত রাখার চেষ্টা করুন।
  • যে কারণে রাগ লাগছে বা যে ব্যক্তির উপর রাগ লাগছে তার বিষয়ে ভাবা বন্ধ করুন, কারন যত বেশি ভাববেন তত বেশি রাগ লাগবে।
  • সম্ভব হলে একা একটি ঘরে বসুন ও ফান বা এসির নিচে বসুন।
  • এক গ্লাস ঠান্ডা পানি বা জুস খান, আর যে কোন বেলার খাবার সময় হলে তা খেয়ে ফেলুন, রাগ করে না খেয়ে বসে থাকবেন না এতে আরও বেশি মেজাজ খারাপ হবে।
  • কমপক্ষে ৩০ মিনিট মুখ বন্ধ করে অন্য কিছু ভাবুন বা পজেটিভ চিন্তা করুন।
  • মেজাজ ঠান্ডা হলে তারপর অন্য কিছু করুন।
  • এই সময় যে কোন ধরনের কাজ করা কিংবা হাটাহাটি করা বন্ধ করুন।
  • এই সময় চাইলে পছন্দের কোন গান কিংবা সিনেমা দেখতে পারেন, এতে আপনার রক্তচাপ কমে মেজাজ ঠান্ডা হবে।