অনেক সময় এমন হয় যে আমরা দীর্ঘক্ষণ ধরে পড়ার টেবিলে বসে থাকি কিন্তু কোন কিছুই পড়া হয় না, আবার অনেক সময় পড়তে বসেতেই ইচ্ছা করে না , খুব বেশি ধরনের আলসেমি লাগে। অনেকের আবার এমনও হয় যে পড়তে বসবো আর ৫ মিনিট পরে থেকে বা এই বার গেম খেলা শেষ হলেই এমন করতে করতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা পেড়িয়ে যায় কিন্তু পড়তে বসা হয় না। এই সব কিছুই অমনোযোগী লক্ষন, এখন বিষয় হচ্ছে কেমন করে আমরা এই অমনোযোগী ভাব কাটিয়ে উঠে নিজেদেরকে পড়াশোনায় মনোযোগী করে তুলবো। কয়েকটি নিয়ম রয়েছে যা আপনি নিয়মিত করতে থাকলেই খুব সহজে নিজেকে পড়াশোনায় মনোযোগী করে তুলতে পারবেন ও সেই সাথে আপনার স্মরণশক্তিও আগের থেকে অনেক বেশি তাড়াতাড়ি কাজ করবে।

১। নিজেকে পড়াশোনায় মনোযোগী করার জন্য সবার আগে যা করতে হবে তা হল সময় নিয়ন্ত্রন করতে শিখতে হবে। সব সময় সময়ের কাজ সময়ে করবেন, এখানে কাজ বলতে পড়াশোনার কথা বলা হয়েছে। মনে করুন যে কালকের জন্য আপনার কিছু পড়া রয়েছে যা আপনাকে আজকের মধ্যেই শেষ করতে হবে, তাহলে এমন মনে করবেন না যে রাতেই সেই পড়াটি করে ফেললেই তো হবে বরং সারাদিনে যখন সময় পাবেন তখনই সেই পড়াটি শেষ করে ফেলবেন।

Advertisement

২। পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়া খুব একটি কঠিন বিষয় নয়, তাই কোন সময় যদি আপনি পড়াতে মন বসাতে না পারেন তাহলে সেই বিষয় নিয়ে খুব বেশি চিন্তা করবেন না। আপনার যদি পড়ার সময় বিরক্ত লাগে কিনবা ঘুম ঘুম ভাব হয় তাহলে পড়া থেকে কিছু ক্ষণের জন্য সামান্য বিরতি নিয়ে চা বা কফি খেতে পারেন তাহলে দেখবেন ঘুম কেটে গেছেন।

৩। আপনাকে কখন কি পড়তে হবে তার একটি রুটিন তৈরি করুন ও সব সময় সেই রুটিন অনুয়ায়ি পড়াশোনা করুন।

৪। অনেকে মনে করেন যে রাত জেগে পড়াশোনা করা ভালো বা রাত জেগে পড়লে পড়া ভালো হয়। কিন্তু বাস্তবে বিষয়টি সম্পূর্ণ ভাবে উল্টো, রাত না জেগে যদি আপনি সকাল সকাল ঘুম থেক উঠে পড়তে বসেন তাহলে পড়া ভাল হয়। রাত জাগলে সারাদিন আপনার ঘুম ঘুম একটা ভাব থেকেই যায়, যার ফলে আপনি সারাদিন একটা হালকা ক্লান্তি বোধ করেন।

৫। সব সময় আপনার পড়ার টেবিল কে গুছিয়ে রাখুন ও যখন আপনি পড়তে বসবেন তখন সম্ভব হলে আপনার ঘরের দরজা বন্ধ রাখুন।

৬। অনেকে লিখার সময় গান শুনে থাকে, আপনার যদি অমন অভ্যাস থেকে থাকে তাহলে তা ধীরে ধীরে পরিত্যাগ করুন।

৭। পড়ার সময় পাসে মোবাইল রাখবেন না, আর যদি মোবাইল পাসে থাকে তাহলে তাতে গেম বা অ্যাপ এর নটিফিকেশান বন্ধ রাখুন।

৮। পড়াতে বসার পর অন্য কোন বিষয় নিয়ে চিন্তা করবেন না বা কোন অপ্রয়োজনীয় কল আসলে তা ধরে গল্প করা শুরু করবেন না।

Advertisement