অনেকেই শখের বসে ছাদে বাগান করতে চায়। আবার অনেকে জায়গার অভাবে সাদকেই গাছ লাগানোর উপযুক্ত পরিবেশ বলে মনে করে। অনেকে আবার ভেজাল্মুক্ত ও ফরমালিন মুক্ত সবজি ও ফল খাওয়ার জন্য বাগান করে থাকে। আবার অনেকে শুধুমাত্র সৌন্দর্য বর্ধনের জন্য ফুলের গাছ লাগিয়ে থাকে। তবে যে যাই উদ্দেশ্যেই বাগান করে থাকুন না কেন, এটা প্রকৃতি ও স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ভাল। ছাদের বাগানে যখন ফুলের গাছে মৌমাছি আর রং বেরংয়ের প্রজাপতিরা খেলা করে তখন মন একদম জুড়িয়ে যায়। এছাড়া যখন বাগানে রং বেরংয়ের ফুল ধরে থাকে তখন এর গন্ধে প্রাণটাও জুড়িয়ে যায়। আর নিজের লাগানো গাছে যখন ফুল ও ফল ধরে, তখন নিজেকে অনেক সফল মনে হয়।

ছাদে বাগান করতে কি কি লাগে?

ADVERTISEMENT

ছাদে বাগান করতে প্রয়োজন হয় উপযুক্ত মাটি আর টব। এই টব প্লাস্টিক, মাটি বা সিমেন্টের হতে হবে। তবে খেয়াল রাখতে হবে টব গুলো যেন অনেক মজবুত হয়। দুর্বল টব ভেঙ্গে যাওয়ার আশঙ্খা বেশি।
আর ছোট আকারে গাছ করতে চাইলে মাটির টব সবথেকে ভাল। কারণ মাটির টব গাছকে গরমের সময় ঠান্ডা রাখে আর ঠান্ডার সময় গরম রাখে। বাজারে সাধারণত মাটি বা প্লাস্টিকের ছোট টবের মধ্যে
৮, ১০ ও ১২ ইঞ্চির টব পাওয়া যায়। আবার কিছুটা বড় ১৪ ইঞ্চির টবও পাওয়া যায়। যারা বড় গাছ যেমন পেয়ারা, আম, ডালিম, আতা, মাল্টা, লেবু, আমড়া এই ধরনের গাছ লাগাতে চান, তাদের জন্য সিমেন্টের
টব সবথেকে ভাল হবে। এই ধরনের টব যেকোন নার্সারিতে পাওয়া যায়। এছাড়া বড় ড্রাম কেটেও গাছ লাগানো যায়।

ছাদে কি কি ফুল ও ফলের গাছ লাগানো যায়ঃ

ছাদে ফুলের মধ্যে গোলাপ, এলামন্ডা, নাগচাপা, কাঠগোলাপ, জাটরোপা, জবা, বেলী, টগর, ঘাস্ফুল, গাদা, চন্দ্রমল্লিকা, স্নোবল ইত্যাদি গাছ লাগানো যেতে পারে। আর ফলের মধ্যে পেয়ারা, আম, ডালিম, আতা, মাল্টা, লেবু, আমড়া, বরই,কমলা, ছপেদা ইত্যাদি গাছ লাগানো যেতে পারে। আর সবজির মধ্যে পুইশাক, চালকুমড়া, লাউ, মরিচ, ক্যাপসিকাম ইত্যাদি গাছ লাগানো যেতে পারে।