বাংলাদেশের এখন প্রায় সকল বিভাগেই ডোমেস্টিক ভাবে এয়ারপোর্ট রয়েছে। আর এই এয়ারপোর্ট থাকার কারণে খুব সহজে ও কম সময়ে এক বিভাগ থেকে আরেক বিভাগে  যাওয়া যাওয়া যায়। প্লেন বা বিমানের মাধ্যমে যাতায়াত কিছুটা ব্যয়বহুল হলেও এটি খুব আরামদায়ক ও দ্রুত যোগাযোগের মাধ্যম। বাংলাদেশে বিভিন্ন এয়ারলাইন্স রয়েছে। যাদের মাধ্যমে ডমেস্টিক ভাবে এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় যাওয়া যায়। এদের মধ্যে সবথেকে প্রসিদ্ধ আর লাইন্স গুলো হল বিমান বাংলাদেশ, নভোএয়ার, ইউএস-বাংলা। এই তিনটি এয়ারলাইন্সের যেকোনো একটির মাধ্যমে অনলাইনে টিকিট কেটে এক বিভাগ থেকে আরেক বিভাগে খুব সহজে যাওয়া যায়। কিভাবে অনলাইনে প্লেনের টিকিট কাটতে হয় নিচে দেখানো হলো-

কিভাবে অনলাইনে প্লেন বা বিমানের টিকিট কাটতে হয়-

অনলাইনে টিকিট কাটার জন্য এখানে আমরা দেখব কিভাবে নভোএয়ার এয়ারলাইন্সে টিকিট কাটতে হয়। এর জন্য flynovoair.com ওয়েবসাইটে ঢুকতে হবে। এখানে ৩০ মিনিটের জন্য টিকিট বুকিং দিয়ে রাখতে পারবেন। আপনি চাইলে যাওয়া আসার টিকিট একসাথে করতে পারবেন। এর জন্য প্রথমে আপনাকে ফর্ম অপশন থেকে বিভাগ সিলেক্ট করতে হবে। আপনি যেই বিভাগে যাবেন বা যে অঞ্চলে যাবেন। সেই অঞ্চল সিলেক্ট করতে হবে। এরপর আপনি কবে যাবেন সেটা সিলেক্ট করে দিতে হবে। আপনি যদি রিটার্নিং আসতে চান তাহলে সেটাও সিলেক করে দিবেন। আপনারা কতজন যাবেন সেটা এখানে সিলেক করে দিতে হবে। আপনার যদি কোন প্রমোশনাল কোড থাকে, তবে সেটি দিতে হবে। চাইল্ড অথবা ইনফান্ট এই অপশন থেকে আপনারা আপনাদের বাচ্চাদের ইনফরমেশন দিয়ে সিলেক্ট করতে হবে। এবার সার্চ বাটনে ক্লিক করতে হবে। আপনি যদি রিটার্ন না চান, তাহলে উপরের থেকে one way সেট করতে হবে। আর রিটার্ন চাইলে round trip সেট করতে হবে।  

Search বাটনে ক্লিক করার পর আপনার সকল তথ্য দেখাবে। আপনার ফ্লাইট কোন কোন সময় রয়েছে, সেটা আপনাকে দেখাবে। এছাড়া বিভিন্ন মানের টিকিটের দাম এখানে দেখাবে।এখান থেকে টিকিট সিলেক্ট করে continue বাটনে ক্লিক করতে হবে।

Continue বাটনে ক্লিক করার পর আপনার নাম, ইমেইল এড্রেস, ফোন নাম্বার ডেট অফ বার্থ দিতে হবে। আপনার সাথে যদি আরও অনেক প্যাসেঞ্জার থাকে তাহলে তাদেরও ইনফরমেশন যেমন নাম মোবাইল নাম্বার ডেট অফ বার্থ এগুলো দিয়ে দিতে হবে। এবার Continue বাটনে ক্লিক করতে হবে। কন্টিনিউ বাটনে ক্লিক করার পর আপনার টিকিটটি রিজার্ভ বা বুকিং হয়ে যাবে। এটি ৩০ মিনিটের জন্য বুকিং হবে। এবার ডান দিকের কমপ্লিট পার্সেস বাটনে ক্লিক করলে আপনি টাকা পে করার জন্য বিভিন্ন অপশন পাবেন। এখান থেকে আপনি আপনার ক্রেডিট কার্ড, বিকা্‌শ, রকেট, নগদ এমনকি নেট ব্যাঙ্কিং এর মাধ্যমেও টাকা পে করতে পারবেন। টাকা পে করার সাথে সাথে আপনার জিমেইলে ও মোবাইলে এসএমএস এ নোটিফিকেশন আসবে। এছাড়া আপনার জিমেইল একটি রিসিপ্ট আসবে। সেই রিসিপ্টটি কাউন্টারে দেখিয়ে আপনি আপনার টিকিট কনফার্ম করতে পারবেন।

এভাবে খুব সহজে অনলাইনে প্লেনের টিকিট কেটে ডমেস্টিক লেভেলে এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় অনায়াসে যেতে পারবেন। তবে ভ্রমণের সময় অবশ্যই আপনার ভোটার আইডি কার্ডটি সাথে রাখবেন। এটি এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ চেক করতে পারে।