Wix হল পৃথিবীর সবথেকে পাওয়ারফুল ওয়েবসাইট বিল্ডার। আর এটি দিয়ে যেকোন ওয়েবসাইট অনায়েসেই তৈরি করা যায়। Wix এর একটি ওয়েবসাইটকে খুব সহজেই এসইও করে র‍্যাংক করা যায়। অপরদিকে Blogger.com গুগলের একটি ফ্রি সার্ভিস। এর সাহায্যে যেকোন ব্লগ বা ম্যাগাজিন ওয়েবসাইট খুব সহজে বানানো যায়। Blogger.com যেহেতু গুগলের সার্ভিস, তাই এটিরও এসইও করে গুগলে খুব সহজে র‍্যাংক করা যায়।

Wix ওয়েবসাইটে এসইও করা

Wix ওয়েবসাইট বিল্ডারে খুব সহজেই ওয়ার্ডপ্রেস এর মত অনপেজ এসিও করা সম্ভব হয়। Wix একটি পাওয়ারফুল ওয়েবসাইট বিল্ডার। এতে খুব সহজেই সকল ধরনের সঠিক উপায় এসইও করা যায়। কিভাবে wix এর ওয়েবসাইটে এসইও করতে হয় তা নিচে দেখে নিন-

এর জন্য প্রথমে আপনি যেই ওয়েবসাইটটি এসইও করতে চান, সেই ওয়েবসাইটের সিলেক্ট এন্ড এডিট সাইট বাটনে ক্লিক করতে হবে। এবার এখান থেকে মার্কেটিং এন্ড এসইও এই বাটনে ক্লিক করতে হবে। প্রথমত get your home page for google search এখান থেকে Set the homepage for search result অর্থাৎ এখানে আপনার হোমপেজের টাইটেল সেট করে দিতে হবে। এরপর আপনার হোম পেজের জন্য একটি ডেসক্রিপশন লিখতে হবে। তারপর আপনার হোম পেজের টেক্সট দেখতে হবে সব ঠিকঠাক আছে কিনা। সে অনুযায়ী সেট করতে হবে। এরপর আপনার হোমপেজ সার্চ রেজাল্টে ভিসিবেল কিনা সেটা চেক করে নিতে হবে। এরপর আপনার ওয়েবসাইটটি মোবাইল ফ্রেন্ডলি কিনা সেটা চেক করতে হবে। এরপর আপনার ওয়েবসাইটটিকে গুগল সার্চ কনসোলে ইনডেক্স করতে হবে। গুগল সার্চ কনসোলে ইনডেক্স করার জন্য প্রথমত আপনার ওয়েবসাইটকে ভেরিফাই করে নিতে হবে। গুগল search console এ এরপর আপনার ওয়েবসাইটকে সাইটম্যাপ করার জন্য আপনার .xml লিংকটি কপি করে গুগল search console এ সেট করতে হবে।

Wix ওয়েবসাইটের পেজে এসইও করা

এই অপশন থেকে আপনি আপনার প্রতিটি পেজের তথ্য দেখতে পাবেন। আপনার প্রতিটা পেজের ইমেজ অল্টার ট্যাগ, প্রতিটি পেজে ভ্যালিড ইমেইল এড্রেস, ফোন নাম্বার, বিজনেস লোকেশন আছে কিনা তা সেট করতে হবে। আপনার পেইজে instagram, facebook linkdin আছে কিনা সেটা খেয়াল রাখতে হবে। এছাড়া অন্যান্য পেজে বিশেষ করে About পেজে বিজনেসের নাম থাকতে হবে। অন্য লিংকের সাথে লিংক করা আছে কিনা সেটা চেক করে নিতে হবে। একইভাবে দেখে নিতে হবে সবকিছু ঠিকঠাক আছে কিনা। যদি সবকিছু ঠিকঠাক থাকে, তাহলে সবুজ টিক চিহ্ন দেখাবে। এখান থেকে আপনার প্রতিটি পেজের টেক্সট লিংক , প্রতিটি পেজে এসইও, কিওয়ার্ড, ইমেইল এড্রেস এবং ফোন নাম্বার আছে কিনা এগুলো সকল তথ্য দেখাবে। আপনার ব্লগ পেজ আছে কিনা এবং সেই ব্লগ পেজের মেটা ডেসক্রিপশন ঠিক আছে কিনা সেগুলো চেক করে নিতে হবে। আপনার প্রতিটি পেজে যদি সঠিকভাবে এসইও করা থাকে তাহলে এখানে সবগুলো ঠিক চিহ্ন দেখাবে। 

Meta Description সেট করা

এছাড়া এই অপশন থেকে আপনার ওয়েবসাইটের প্রতিটি পেজে মেটা ডিসক্রিপশন, কিওয়ার্ড এ সমস্ত লাগানোর জন্য এডিট সাইড বাটনে ক্লিক করতে হবে। এখান থেকে সব এডিট করে নিতে হবে। টাইটেল, মেটা ডিসক্রিপশন এবং পোস্ট টাইটেল ট্যাগ এগুলো সেট করে দিতে হবে। এছাড়া সোশ্যাল শেয়ার থেকে আপনার ওয়েবসাইটের এই পেজটি ফেসবুক শেয়ারে বা অন্য কোন সোশ্যাল শেয়ারে কিভাবে দেখাবে তা যা দেখার জন্য টাইটেল এবং ডেসক্রিপশন সেট করে দিতে হবে।

এছাড়া ইমেইল মার্কেটিং করার জন্য Email marketing এ ক্লিক করে  আপনি খুব সহজে ইমেইল মার্কেটিং করতে পারবেন। আপনি চাইলে যে কোন ইমেইল যেকোনো ইমেইল Template এখানে দেওয়া আছে সেগুলো সরাসরি বাল্ক ইমেইল করে পাঠাতে পারবেন।  

Blogger.com ওয়েবসাইটে এসইও করা

Blogger.com গুগলের একটি সার্ভিস। এর মাধ্যমে ওয়েবসাইট যেমন ফ্রিতে যেমন বানানো যায়, ঠিক তেমনি এই সাইটের সাথে ডোমেইন লাগিয়ে প্রিমিয়াম ভাবে ব্যবহার করা যায়। কিভাবে blogger.com ওয়েবসাইটে এসইও করতে হয় দেখুন-

প্রথমে ব্লগার ওয়েবসাইটে ঢুকতে হবে। ওয়েবসাইটে ঢোকার পর যে ওয়েবসাইটে আপনি যে ব্লগার ওয়েবসাইট বানিয়েছেন সে ওয়েবসাইটের Setttings এ যেতে হবে। এখান থেকে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের Title, Description, Language এবং Google এনালাইটিক লাগাতে পারবেন। এছাড়া আপনি আপনার ওয়েবসাইটের একটি সঠিক লোগো এখানে সেট করে দিতে পারবেন। 

এবার Privacy থেকে  সার্চ ইঞ্জিন থেকে Visible to search engines অন করতে হবে। Publishing থেকে আপনার একটি custom domain সেট করে নিতে হবে। 

ওয়েবসাইটের সিকিউরিটি বৃদ্ধি করা

HTTPS থেকে https অন করতে হবে।

Email অপশন থেকে Post using email অন করে দিতে হবে। এছাড়া Formatting থেকে Time Zone সেট করে দিতে হবে।

এরপর Meta Tags অন করে দিতে হবে।

Errors and redirects থেকে ৪০৪ পেজ গুলি 301 এ রিডাইরেক্ট করতে হবে।

Crawlers and indexing থেকে Enable custom robots.txt অন করে দিতে হবে। Google Search Console থেকে ওয়েবসাইটটির লিংক সাইটম্যাপ করে নিতে হবে।