চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল গত ফেব্রুয়ারি ও এপ্রিলে। তবে মহামারির কারণে তা সম্পূর্ণ অনিশ্চিত হয়ে গেছে। পরীক্ষা দুটি আদৌ অনুষ্ঠিত হবে কিনা, না হলে বিকল্প কী হবে এ নিয়ে ৪৪ লাখ পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা উদ্বিগ্ন।

অবশেষে এই দুই পরীক্ষার ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করা হয়েছে। সংক্ষিপ্ত আকারে পরীক্ষা নাকি অটোপাস সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেছে সরকার। জানা গেছে, বুধ বা বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলনে সরকারের সিদ্ধান্ত সবাইকে জানিয়ে দেবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

Advertisement

জানা গেছে, এই দুই পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব না হলে বিকল্প পদ্ধতিতে পাস করানোর চিন্তাভাবনা করছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এ জন্য একাধিক প্রস্তাব তৈরি করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে পাঠানো হয়েছিল। প্রস্তাবে বলা হয়, রচনামূলক বা সৃজনশীল প্রশ্ন বাদ দিয়ে কেবল বহু নির্বাচনী প্রশ্নে (এমসিকিউ) পরীক্ষা নেওয়া যেতে পারে। বিষয় ও পূর্ণমান (পরীক্ষার মোট নম্বর) কমিয়েও পরীক্ষা নেওয়া যেতে পারে। এ ক্ষেত্রে প্রতি বিষয়ের দুই পত্র একীভূত করা যায়।

আরও প্রস্তাব করা হয়, ২০০ নম্বরের বদলে ১০০ নম্বরের পরীক্ষা নেওয়া হবে। তবে উভয়ক্ষেত্রেই করোনা পরিস্থিতির উন্নতি জরুরি। অর্থাৎ সংক্রমণ ১০ শতাংশের নিচে নেমে এলে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করে পরীক্ষা নেওয়া যেতে পারে। স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে কেন্দ্রের সংখ্যা বর্তমানের তুলনায় দ্বিগুণ করে এই পরীক্ষা নেওয়া যায়।

এটি সম্ভব না হলে এসএসসির ক্ষেত্রে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষার ফলের ৫০ শতাংশ এবং অ্যাসাইনমেন্ট ও শ্রেণিকক্ষের কার্যক্রমের ওপর ৫০ শতাংশ ফলাফল নিয়ে ফল প্রস্তুত করা যায়। এইচএসসির ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীর এসএসসির ফলের ৫০ শতাংশ, জেএসসির ২৫ শতাংশ এবং অ্যাসাইনমেন্টের ফলের ২৫ শতাংশ সমন্বয় করে ফল প্রকাশের জন্যও প্রস্তাব করা হয়েছিল।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এসব প্রস্তাবের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী একটি প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছেন। তবে কোন প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পেয়েছে তা জানা যায়নি। প্রস্তাবটি অনুমোদনের পর সংশ্নিষ্ট নথি শিক্ষামন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়। এ বিষয়ে সরকারের সিদ্ধান্ত সংবাদ সম্মেলনে জানিয়ে দেবেন শিক্ষামন্ত্রী। এ সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে শিক্ষা বোর্ডগুলো ২০২১ সালের এসএসসি ও এইচএসসির ফলাফল প্রকাশের কাজ শুরু করবে বলে জানা গেছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা এমএ খায়ের সমকালকে বলেন, এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী চলতি সপ্তাহেই সংবাদ সম্মেলন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

Advertisement