নিজের শখের আইফোনটি নষ্ট হয়ে গেলে সেটি মেরামতের জন্য ফোনের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপলের অনুমোদিত কেন্দ্রেই দিয়েছিলেন এক নারী। কিন্তু ওই কেন্দ্রের কর্মীরা ফোনটি মেরামতের পর তাতে থাকা ওই নারীর নগ্ন ছবি ফেসবুকে আপলোড করে দেন। ২০১৬ সালের এ ঘটনায় ওই নারী মামলার প্রস্তুতি নিলে ঝামেলা এড়াতে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে বিষয়টি রফা করে অ্যাপল কর্তৃপক্ষ।

দ্য টেলিগ্রাফের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৬ সালে ক্যালিফোর্নিয়ার এক নারী তার আইনফোনটি সারাই করতে অ্যাপল অনুমোদিত তাইওয়ানের প্রযুক্তি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান পেগাট্রন টেকনোলজি সার্ভিসে নিয়ে যান।

Advertisement

যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি সাময়িকী দ্য ভার্জের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সেই নারীর ফোন সারাইয়ের পর প্যাগাট্রনের দুই কর্মী আইফোনে থাকা নগ্ন ছবি ওই নারীরই ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে আপলোড করেন। এ ঘটনা প্রমাণিত হওয়ার পর সেই দুই কর্মীকে ছাঁটাই করে কর্তৃপক্ষ।

ভুক্তভোগী নারীর আইনজীবী দ্য ভার্জকে বলেন, ‘এতে মনে হবে, আমার মক্কেলই নিজেই এসব ছবি ফেসবুকে আপলোড করেছেন।’

তিনি জানান, এ ঘটনায় তারা ব্যক্তিগত গোপনীয়তা লঙ্ঘন ও মানসিক পীড়নের অভিযোগে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত মোটা অংকের অর্থ দিয়ে তাদের সঙ্গে বিষয়টি মিটমাট করেছে অ্যাপল কর্তৃপক্ষ।

দ্য টেলিগ্রাফের খবরে বলা হয়েছে, অ্যাপলকে ঠিক কত টাকা দিতে হয়েছে সেটা অপ্রকাশিত থাকলেও একটি সূত্র দ্য টেলিগ্রাফকে জানিয়েছে, নারীর আইনজীবী বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য ৫০ লাখ ডলার চেয়েছিলেন।

অ্যাপল এক বিবৃতিতে বলেছে, ‌’আমাদের বিক্রেতা নীতিমালার চূড়ান্ত লঙ্ঘনের ঘটনা জানার সাথে সাথেই আমরা পদক্ষেপ নিয়েছি। আমরা আমাদের বিক্রেতা নীতিমালা আরও কঠোর করছি।’

Advertisement